মহামারীকালে চমেক

  • শ্বাসকষ্ট নিয়ে ফটিকছড়ি থেকে আসা এই বৃদ্ধকে সোমবার চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তির জন্য দীর্ঘ সময় অ্যাম্বুলেন্সে অপেক্ষা করতে হয়। শুয়ে থাকলে শ্বাসকষ্ট বেশি হয় বলে বসিয়ে রাখা হয়েছিল তাকে। ছবি: সুমন বাবু

    শ্বাসকষ্ট নিয়ে ফটিকছড়ি থেকে আসা এই বৃদ্ধকে সোমবার চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তির জন্য দীর্ঘ সময় অ্যাম্বুলেন্সে অপেক্ষা করতে হয়। শুয়ে থাকলে শ্বাসকষ্ট বেশি হয় বলে বসিয়ে রাখা হয়েছিল তাকে। ছবি: সুমন বাবু

  • শ্বাসকষ্ট নিয়ে আনায়ারা উপজেলা থেকে আসা শিশুটিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগ থেকে শিশু ওয়ার্ডে নেওয়া হচ্ছে। ছবি: সুমন বাবু

    শ্বাসকষ্ট নিয়ে আনায়ারা উপজেলা থেকে আসা শিশুটিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগ থেকে শিশু ওয়ার্ডে নেওয়া হচ্ছে। ছবি: সুমন বাবু

  • চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তির জন্য শ্বাসকষ্ট নিয়ে গ্রাম থেকে আসা এক বৃদ্ধকে ফ্লু কর্ণার অবজারভেশন সেলে নেওয়া হচ্ছে। ছবি: সুমন বাবু

    চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তির জন্য শ্বাসকষ্ট নিয়ে গ্রাম থেকে আসা এক বৃদ্ধকে ফ্লু কর্ণার অবজারভেশন সেলে নেওয়া হচ্ছে। ছবি: সুমন বাবু

  • করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে গত ১৯ জুন রাতে ফিলিপিনো নাগরিক রুয়েল ই কাতান চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনার পর ওই রাতেই মারা যান। ১০ দিন পর সোমবার তার পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়। রুয়েল চট্টগ্রাম বন্দরের বার্থ অপারেটর সাইফ পাওয়ার টেকের শিপ প্ল্যানার পদে কর্মরত ছিলেন। ছবি: সুমন বাবু

    করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে গত ১৯ জুন রাতে ফিলিপিনো নাগরিক রুয়েল ই কাতান চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনার পর ওই রাতেই মারা যান। ১০ দিন পর সোমবার তার পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়। রুয়েল চট্টগ্রাম বন্দরের বার্থ অপারেটর সাইফ পাওয়ার টেকের শিপ প্ল্যানার পদে কর্মরত ছিলেন। ছবি: সুমন বাবু

সাম্প্রতিক ছবিঘর