‘আমার রান আউট সিলি মিসটেক, মুশফিক ভাই আনলাকি’

টেস্ট ম্যাচে রান আউট এমনিতেই অনেক সময় মেনে নেওয়ার মতো নয়। আর সেটি যদি হয় ম্যাচ বাঁচানোর লড়াইয়ে থাকার সময় অযথা ঝুঁকিপূর্ণ সিঙ্গেল নিতে গিয়ে, তাহলে তা একরকম অপরাধের পর্যায়েই পড়ে যায়। পাকিস্তানের বিপক্ষে মিরপুর টেস্টে এরকম রান আউটই হয়েছেন মুমিনুল হক ও মুশফিকুর রহিম। ম্যাচ শেষে নিজের দায়টা নিলেন মুমিনুল, মুশফিকের আউটের দায় দিলেন ভাগ্যকে।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 8 Dec 2021, 03:30 PM
Updated : 8 Dec 2021, 03:30 PM

মুমিনুল রান আউট হন বাংলাদেশের প্রথম ইনিংসে। দুই ওপেনারকে হারিয়ে যখন শুরুটা হয়েছে বাজে, অধিনায়ক তখন দ্রুত সিঙ্গেল নিতে গিয়ে নিজের উইকেট হারিয়ে আরও বিপদে ঠেলে দেন দলকে।

মুশফিকের রান আউট দ্বিতীয় ইনিংসে, ম্যাচের শেষ দিনে। ম্যাচ বাঁচানোর লড়াইয়ে ৫ উইকেট হারানোর পর সাকিব আল হাসানের সঙ্গে দারুণ প্রতিরোধ গড়েছিলেন মুশফিক। দুজনের জুটি জমে উঠেছিল বেশ। বাংলাদেশের বিপদও কাটতে শুরু করেছিল।

চা-বিরতির আগে শেষ ওভারটি যখন নিরাপদে পার করে দেওয়ার কথা, সেই ওভারেই ঝুঁকিপূর্ণ রান নিতে গিয়ে উইকেট হারান মুশফিক। যদিও খানিকটা দুর্ভাগ্যের ছোঁয়া ছিল তার আউটে। শেষ মুহূর্তে ডাইভ দিয়ে তিনি ক্রিজের সীমানা পেরিয়ে যান সময়মতোই, তবে ব্যাট ছিল মাটি থেকে সামান্য উঁচুতে। তবে ওই সময় অমন সিঙ্গেল নিতে হবে কেন, সেই প্রশ্ন উঠছেই।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে মুমিনুল নিজের আউটের জন্য কাঠগড়ায় তুললেন নিজেকে।

“আমারটা সিলি মিসটেক ছিল, এটা বলতে পারি। আমার হয়তো তাড়াহুড়ো করে রান নেওয়া উচিত হয়নি। আমার কাছে মনে হয়, আমার আউট অনেক বাজে ছিল। ওই সময় ওসব রান না নেওয়াটাই ভালো।”

মুশফিকের রান আউটের ক্ষেত্রে অবশ্য অধিনায়ক আড়াল করতে চাইলেন সতীর্থকে।

“আমার কাছে মনে হয়, যে ফরম্যাটই হোক না কেন, রানটা গুরুত্বপূর্ণ। আমরা যদি খালি চিন্তা করি ড্রয়ের জন্য খেলব বা রক্ষণাত্মক খেলব, তাহলে কঠিন। মাঝেমধ্যে রানটা নিতে হবে। এতে মাঝেমাঝে ভুল বোঝাবুঝি হয়।”

“আমার কাছে মনে হয়, মুশফিক ভাইয়ের রান আউট পুরো আনলাকি ছিল। ব্যাট একটু ওপরে ছিল, নিচে থাকলে বেঁচে যেতে পারতেন।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক