নতুন ব্যাটিং পজিশনে মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টায় সৌম্য

জাতীয় দলে টিকে থাকার সংগ্রামে থাকা সৌম্য সরকারকে লড়তে হচ্ছে আরেক লড়াই। টি-টোয়েন্টিতে ওপেনিংয়ে জায়গা হারিয়ে লড়ছেন মিডল অর্ডারে অভ্যস্ত হতে। নতুন ব্যাটিং পজিশনে দ্রুত মানিয়ে নিতে প্রত্যয়ী তরুণ বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 24 May 2018, 12:12 PM
Updated : 24 May 2018, 12:12 PM

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের টেস্ট ও ওয়ানডে দলে জায়গা হারান সৌম্য। ছন্দে ছিলেন টি-টোয়েন্টিতে। ব্যাটিং পজিশন পরিবর্তনের পর বিবর্ণ এই সংস্করণেও। 

টি-টোয়েন্টিতে ওপেনিংয়েই বেশি সফল সৌম্য। ২৫ ইনিংসে ১৩০.৩১ স্ট্রাইক রেট ও ২১.৩২ গড়ে তার রান ৫৩৩। তিন নম্বরে দুই ইনিংসে ২৫ বলে করেন ২৫। চারে একমাত্র ইনিংসে ২ বলে রান ১।

৫ নম্বরে চার ইনিংসে ৪৬ বলে সৌম্যর রান ৫৫। ৭ নম্বরে একমাত্র ইনিংসে ২১ বলে ২১।

৩৩ ম্যাচের ছোট্ট ক্যারিয়ারেই ছয় নম্বর ছাড়া প্রথম সাত পজিশনের সবকটাইতে খেলার অভিজ্ঞতা হয়ে গেছে সৌম্যর। শ্রীলঙ্কায় ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে তাকে নিচে নামিয়ে লিটন দাসকে ওপেনিংয়ে খেলায় বাংলাদেশ। সেখানে লিটন সাফল্য পাওয়ায় সৌম্য জানেন তার ওপেনিংয়ে ফেরার পথটা কঠিন।

“দল যদি মনে করে, পাঁচ নম্বরে ব্যাট করতে হবে তাহলে সেখানেই করতে হবে। সেখানেই পারফরম করতে হবে, রান করতে হবে। ... যেটা চলে গেছে তা নিয়ে চিন্তা করলে নিজেই পিছিয়ে যাব। এখন সামনে যে সিরিজ আছে তা নিয়ে চিন্তা করতে হবে।”

শ্রীলঙ্কায় প্রথম ইনিংসে ওপেন করেন সৌম্য। পরের চার ইনিংসের দুটিতে খেলেন তিনে। একটিতে ব্যাট করেন পাঁচে, অন্যটিতে চারে। টুর্নামেন্টে ৫ ম্যাচ মিলিয়ে করেন মোটে ৫০ রান। শ্রীলঙ্কার ব্যর্থতা ভুলে যত দ্রুত সম্ভব ছন্দে ফিরতে চান সৌম্য।

“শেষ কয়েক ম্যাচ তো ভালো করিনি। নিজের কাছে তাগিদ থাকে ভালো করার। মানুষের কথা শুনলে মনে হয়, আসলেই খারাপ খেলছি। ... চেষ্টা করি এসব না শুনে অনুশীলনে জোর দিতে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক