ইংল্যান্ডে টেস্ট সিরিজ না থাকা নিয়ে যা বলছে বিসিবি

নতুন ভবিষ্যৎ সফরসূচিতে অস্ট্রেলিয়ায় টেস্ট থাকলেও ইংল্যান্ডে কোনো টেস্ট নেই বাংলাদেশের।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 August 2022, 02:47 PM
Updated : 17 August 2022, 02:47 PM

২৪ বছর পর অস্ট্রেলিয়ায় টেস্ট ম্যাচ! আইসিসির নতুন ফিউচার টুরস প্রোগ্রাম বা ভবিষ্যৎ সফরসূচিতে (এফটিপি) এই সুখবর পেয়েছে বাংলাদেশ। তবে আলোর নিচে অন্ধকারও আছে। ২০২৭ সাল পর্যন্ত এই সূচিতে ইংল্যান্ডে কোনো টেস্ট ম্যাচ নেই বাংলাদেশের। বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরি বলছেন, এফটিপির বাইরেও তারা সিরিজ আয়োজনের চেষ্টা করবেন। সেখানে লক্ষ্য থাকবে ইংল্যান্ডের মাঠে খেলা।

২০২৩ থেকে ২০২৭ পর্যন্ত আইসিসির ভবিষ্যৎ সফরসূচি ঘোষণা করা হয় বুধবার। এই সময়ে সবচেয়ে বেশি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ।

এই সূচির উল্লেখযোগ্য দিক, ২০২৭ সালে অস্ট্রেলিয়ায় বাংলাদেশের টেস্ট সিরিজ। ২০০৩ সালের পর প্রথমবার সেখানে টেস্ট সফরে যাবে বাংলাদেশ। তবে ততদিনে ইংল্যান্ডে সবশেষ টেস্ট খেলার ১৭ বছর হয়ে যাবে। ২০১০ সালের পর ইংলিশদের সঙ্গে তাদের মাঠে টেস্ট খেলতে পারেনি বাংলাদেশ। সেই সুযোগ নেই নতুন সূচিতেও।

ভবিষ্যৎ সফরসূচি প্রকাশ হওয়ার পর বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরি সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বললেন, ক্রিকেট কূটনীতির লড়াইয়ে তারা সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছেন নিজেদের ম্যাচ বাড়ানোর জন্য।

“একটা সময় বিষয় ছিল যে আমরা বেশি ক্রিকেট খেলার দাবি জানাতাম। সেখান থেকে আমরা বের হয়ে এসেছি। গত এফটিপিতেও আমাদের বেশ উল্লেখযোগ্য সংখ্যক ম্যাচ ছিল দেশের ভেতরে ও বাইরে। আগে যেমন একটা টেস্ট সিরিজের পর আরেকটা সিরিজের আগে অনেক বিরতি থাকত, এখন কিন্তু বিষয়গুলোর অনেক ব্যালান্সড হয়েছে।”

“আমরা আস্তে আস্তে এগোচ্ছি। আমাদের চেষ্টা থাকবে যে দেশগুলোতে আগে সফর ছিল না, সেগুলোতে করা। প্রায় সব দেশের সঙ্গে আমাদের খেলা আছে দেশের ভেতরে-বাইরে, কেবল ইংল্যান্ড ছাড়া। সেটাও আমরা চেষ্টা করছি। একটা ব্যাপার আমাদের মনে রাখতে হবে, সবাই বড় দলগুলির সঙ্গে খেলতে চায়, কেবল বাংলাদেশই নয়। একটা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সবার সঙ্গে খেলা সম্ভব নয়। যতটুকু সম্ভব হয়েছে, আমরা চেষ্টা করেছি।”

ভবিষ্যৎ সফরসূচির বাইরেও বিভিন্ন দেশের বোর্ডের সঙ্গে আলোচনা করে ফাঁকা সময়ে সিরিজ আয়োজন করা সম্ভব। ২০১৭ সালে ইংল্যান্ডে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আগে যেমন আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলেছে বাংলাদেশ, ২০১৯ বিশ্বকাপের আগে আয়ার‌ল্যান্ডেই খেলেছে আরেকটি ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজ। এবার অস্ট্রেলিয়ায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে নিউ জিল্যান্ডে আছে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজ।

ভবিষ্যৎ সফরসূচির বাইরেই এই সিরিজগুলো আয়োজন করা হয়েছে সংশ্লিষ্ট বোর্ডগুলোর মধ্যে আলোচনা করে। সামনেও এসব সিরিজের অংশ হওয়ার আশাবাদ জানালেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী। এর মধ্যে লক্ষ্য থাকবে ইংল্যান্ডের মাঠে খেলাও।

“গত এফটিপিতে অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডে কোনো খেলা ছিল না। এবার অস্ট্রেলিয়ায় একটা সিরিজ নিশ্চিত করেছি। এরপর আমাদের লক্ষ্য থাকবে, যে দেশগুলাতে সফর নেই, পরের এফটিপিতে বা এই এফটিপির মধ্যেও সেই দেশগুলোতে সফর করা যায় কিনা।”

“বিভিন্ন সময় বা পরিস্থিতিতে নানা কিছু ডেভেলপ করে। যেমন, বড় কোনো ইভেন্টের আগে কোনো দ্বিপাক্ষিক সিরিজ হোক বা ত্রিদেশীয় সিরিজ, আয়োজন করা হয়। সেই সুযোগ আছে। আরেকটা ব্যাপার মাথায় রাখতে হবে, এই সূচির বাইরেও কিন্তু আইসিসি ও এসিসি ইভেন্ট আছে। যথেষ্ট পরিমাণে ম্যাচ তাই আছে। চাইলেই ম্যাচ বাড়ানো ঠিক হবে না।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক