নিজেকে শেষ ‘লামা’ ভাবছেন দালাই লামা

তিনিই টাইটেলধারী শেষ ‘দালাই লামা’ হতে পারেন বলে জানিয়েছে তিব্বতের নির্বাসিত আধ্যাত্মিক নেতা দালাই লামা।

নিউজ ডেস্ক>>বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 Dec 2014, 07:51 AM
Updated : 17 Dec 2014, 07:51 AM

বিবিসি’র সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে নিজের এ অনুভূতির কথা জানিয়েছেন জানিয়েছে তিনি, মঙ্গলবার জানিয়েছে বিবিসি।

তবে তিনি বলেছেন, “একজন জনপ্রিয় দালাই লামা’র সময়েই কয়েক শতাব্দির প্রাচীন এই ঐতিহ্য শেষ হলেই ভাল হবে।”

১৯৫৯ সালে তিব্বতের একটি গণঅভ্যুত্থান ঠেকাতে চীনা সেনাবাহিনী হস্তক্ষেপ করলে ভারতে পালিয়ে যান বর্তমান দালাই লামা তেনজিং গিয়াতসো। সেই থেকে তিনি ভারতে নির্বাসিত জীবনযাপন করছেন।

শান্তিতে নোবেলের এই বিজয়ীকে একজন “বিচ্ছিন্নতাবাদী” হিসেবে বিবেচনা করে চীন। যদিও এখন তিব্বতের স্বাধীনতার দাবী ছেড়ে স্বায়ত্ত্বশাসনের দাবীর মতো “মধ্যপন্থি পথ” বেছে নিয়েছেন তিনি, কিন্তু চীনা নীতির কোনো পরিবর্তন হয়নি।

বিবিসি’র নিউজনাইট অনুষ্ঠানকে দেয়া এক বিস্তারিত সাক্ষাৎকারে ৭৯ বছর বয়সী এই আধ্যাত্মিক নেতা বলেছেন, তার কোনো উত্তরাধিকার নাও থাকথে পারে বলে আশঙ্কা করছেন তিনি।

তারপরও নিজের মৃত্যুর পর তিব্বতে নতুন কোনো দালাই লামা আসবে কিনা তা পরিস্থিতি ও তিব্বতের জনগণের উপর নির্ভর করছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

তবে দালাই লামার ভূমিকায় আগের মতো রাজনৈতিক বিষয়গুলো অন্তর্ভুক্ত থাকবে না বলে মনে করেন তিনি। ২০১১ সালে রাজনৈতিক দায়িত্বগুলো নির্বাসিত তিব্বতিদের সরকার প্রধান লোবসাঙ সাঙগে’র কাছে হস্তান্তর করেছিলেন তিনি।

অনেকেই তার এই পদক্ষেপের মাধ্যমে তিব্বতিদের নির্বাচিত প্রতিনিধি থাকার বিষয়ে দালাই লামার সমর্থনের ইঙ্গিত বলেই বিবেচনা করেছেন।

চীন বরাবর জানিয়ে দিয়েছে, চীনা কর্তৃপক্ষই পরবর্তী দালাই লামা কে হবে তা নির্ধারণ করবে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক