লিসিচ্যাংস্কেও পৌঁছে গেছে রুশ বাহিনী, ওদেসা-চেরকাসিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা

পূর্ব ইউক্রেইনের লুহানস্ক প্রদেশে কিইভবাহিনীর হাতে থাকা শেষ গুরুত্বপূর্ণ শহর লিসিচ্যাংস্কের নিয়ন্ত্রণ নিতে রাশিয়া ও তাদের মদতপুষ্ট বাহিনীগুলো তুমুল আক্রমণ চালাচ্ছে।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 27 June 2022, 06:23 AM
Updated : 27 June 2022, 06:23 AM

মস্কো সমর্থিত বিচ্ছিন্নতাবাদীরা লিসিচ্যাংস্কের একাধিক অংশে তাদের অগ্রগতির খবরও দিয়েছে বলে সোমবার জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

কয়েক সপ্তাহ পর রোববার রুশ বাহিনী ইউক্রেইনের রাজধানী কিইভেও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে; মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এ হামলাকে ‘বর্বরতা’ বলে অ্যাখ্যা দিয়েছেন।

রুশ ক্ষেপণাস্ত্র মধ্যাঞ্চলীয় শহর চেরকাসিতে ও দক্ষিণের ওদেসায়ও আঘাত হেনেছে বলে জানিয়েছে ইউক্রেইন।  

এর আগে শনিবার লিসিচ্যাংস্কের জমজ শহর সিয়েভিয়ারোদোনেৎস্কের পতন ঘটেছিল। এই দুই শহরের দখল পেলে লুহানস্ক পুরোপুরি রুশপন্থি বিচ্ছিন্নতাবাদীদের হাতে চলে যাবে, এটি ক্রেমলিনের জন্যও বড় ধরনের বিজয় বলে বিবেচিত হবে।

ইউক্রেইনে তাদের ভাষায় ‘বিশেষ সামরিক অভিযানে’ মস্কো যেসব লক্ষ্য স্থির করেছিল, তার অন্যতম ছিল দনবাসের নিয়ন্ত্রণ নেওয়া। ইউক্রেইনের পূর্বাঞ্চলীয় দুই প্রদেশ লুহানস্ক ও দোনেৎস্ক মিলেই দনবাস।  

মস্কো সমর্থিত বিচ্ছিন্নতাবাদীদের এক কর্মকর্তা রোববার বার্তা সংস্থা তাসকে জানান, তারা পাঁচ দিক থেকে লিসিচ্যাংস্কে ঢুকে পড়েছেন এবং ইউক্রেইনের প্রতিরোধ যোদ্ধাদের কোণঠাসা করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

এ ভাষ্যের সত্যতা যাচাই করতে পারেনি রয়টার্স।  

ইউক্রেইনর সশস্ত্র বাহিনীর জেনারেল স্টাফ জানিয়েছে, রুশ বাহিনী কামান ব্যবহার করে লিসিচ্যাংস্ককে দক্ষিণ দিক থেকে বিচ্ছিন্ন করে দেওয়ার চেষ্টা করছে; বিচ্ছিন্নতাবাদীরা শহরটিতে প্রবেশ করেছে কিনা, সে বিষয়ে কিছু বলেনি তারা।

সোমবার তাদের নতুন তথ্য বিবরণীতে রাশিয়ার বিমান লিসিচ্যাংস্কের কাছে হামলা চালাচ্ছে বলে জানানো হয়েছে।

বিচ্ছিন্নতাবাদীদের এক কর্মকর্তাকে উদ্ধৃত করে বার্তা সংস্থা আরআই এ জানিয়েছে, সিয়েভিয়ারোদোনেৎস্কের আজোত রাসায়নিক কারখানা থেকে শিশুসহ আড়াইশর বেশি বেসামরিককে উদ্ধার করা হয়েছে।

শহরটি ছেড়ে যাওয়ার আগে সর্বশেষ যে স্থাপনাটি কিইভবাহিনীর হাতে ছিল, তা হচ্ছে ওই আজোত কারখানা।

ইউক্রেইনের প্রেসিডেন্টের উপদেষ্টা ওলেক্সি আরেস্তোভিচ জানিয়েছেন, রোববার রুশ ক্ষেপণাস্ত্র মধ্যাঞ্চলীয় শহর চেরকাসির একটি কৌশলগত সেতুতে আঘাত হেনেছে যা ইউক্রেইনের পশ্চিমাঞ্চলের সঙ্গে পূর্বাঞ্চলের সংযোগে ব্যবহৃত হতো।

“তারা (রাশিয়া) পূর্বাঞ্চলে পশ্চিমা অস্ত্রশস্ত্র ও আমাদের রিজার্ভ পাঠানো আটকাতে চেষ্টা করছে,” রয়টার্সকে এমনটাই বলেছেন তিনি।

আর ওদেসায় পড়া রুশ ক্ষেপণাস্ত্রটি কয়েকটি বেসামরিক ভবনের ক্ষতি করেছে এবং এক শিশুসহ ছয়জন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওদেসা আঞ্চলিক কর্তৃপক্ষের মুখপাত্র সেরহি ব্রাতচুক।

তার এ দাবির সত্যতা যাচাই করতে পারেনি রয়টার্স; রাশিয়া অবশ্য তাদের অভিযানের ‍শুরু থেকেই বেসামরিক স্থাপনায় হামলা চালানো হচ্ছে না বলে দাবি করে আসছে।

কিইভে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পর রোববার স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় এক ভিডিও বার্তায় ইউক্রেইনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, রুশ ক্ষেপণাস্ত্র ঠেকাতে ইউক্রেইনের এখনই অত্যাধুনিক আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাপনা দরকার।

“অংশীদারদের দ্রুত অস্ত্রশস্ত্র পাঠানো দরকার, যদি তারা সত্যিই অংশীদার হয়, দর্শক নয়। এই অবস্থায় অস্ত্রশস্ত্র পাঠাতে দেরি বা কোনো বিধিনিষেধ থাকলে, তা হবে কার্যত রাশিয়াকে আমাদের শহরগুলোতে বারবার আঘাত হানার আমন্ত্রণ জানানো,” বলেছেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্র আগামী কয়েকদিনের মধ্যে ইউক্রেইনের জন্য অত্যাধুনিক মাঝারি থেকে দূরপাল্লার ভূমি থেকে আকাশে নিক্ষেপযোগ্য ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনার ঘোষণা দিতে যাচ্ছে বলে বিষয়টির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র রয়টার্সকে জানিয়েছে।

জার্মানিতে জি৭ সম্মেলনে অংশ নিতে আসা বাইডেন রোববার কিইভে ক্ষেপণাস্ত্র হামলাকে ‘বর্বরতা’ অ্যাখ্যা দিয়েছেন। জি-৭ সম্মেলনের পর চলতি সপ্তাহে ইউরোপে নেটোরও শীর্ষ সম্মেলন হওয়ার কথা। সেখান থেকেও ইউক্রেইনে আরও অস্ত্রশস্ত্র পাঠানোর ঘোষণা আসতে পারে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক