মার্কিন কংগ্রেসে তিন দশকের মধ্যে প্রথম বন্দুক নিয়ন্ত্রণ বিল পাস

যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসে একটি বন্দুক নিয়ন্ত্রণ বিল পাস হয়েছে; যেটিকে প্রায় ৩০ বছরে মধ্যে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণে দেশটিতে হতে যাওয়া প্রথম গুরুত্বপূর্ণ কোনো আইন বলা হচ্ছে।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 June 2022, 09:21 AM
Updated : 25 June 2022, 09:21 AM

কংগ্রেসে পাস হওয়া বিলে তরুণ ক্রেতাদের কাছে অস্ত্র বিক্রির আগে তাদের অতীত ইতিহাস ভালোভাবে খতিয়ে দেখায় জোর এবং হুমকি হিসেবে বিবেচিত হওয়া ব্যক্তিদের কাছ থেকে অস্ত্র সরিয়ে নিতে রাজ্যগুলোকে উৎসাহিত করার কথা আছে।

ডেমোক্র্যাট-রিপাবলিকান দুই দলের সদস্যদের সমর্থন নিয়েই বিলটি মার্কিন কংগ্রেসের উভয়কক্ষে পাস হয়েছে।

শুক্রবার কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে ডেমোক্র্যাট আইনপ্রণেতাদের সঙ্গে ১৪ রিপাবলিকান হাত মেলানোয় বিলটি শেষপর্যন্ত ২৩৪-১৯৩ ভোটে গৃহীত হয় বলে জানিয়েছে বিবিসি।

উভয় কক্ষে অনুমোদিত হওয়ায় বিলে এখন প্রেসিডন্ট জো বাইডেন স্বাক্ষর করলেই সেটি আইনে পরিণত হবে।

এর আগে বৃহস্পতিবার এ বন্দুক নিয়ন্ত্রণ বিলটি কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সেনেটে পাস হয়। সেখানেও ১৫ রিপাবলিকান সেনেটর তাদের ডেমোক্র্যাট সহকর্মীদের সঙ্গে মিলে বিলটিতে সমর্থন দিয়েছিলেন। শেষ পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় গভীর রাতে বিলটি ৬৫-৩৩ ভোটে পাস হয়েছিল।

“২৮ বছরের নিস্ক্রিয়তার পর, উভয় দলের কংগ্রেস সদস্যরা দেশজুড়ে অসংখ্য পরিবারের আহ্বানে সাড়া দিলেন এবং আমাদের এলাকাগুলোতে বন্দুক সহিংসতার দুর্ভোগ নিরসনে আইন পাস করলেন,” বৃহস্পতিবার বলেছেন বাইডেন।

গত মাসে নিউ ইয়র্কের বাফেলোতে এক সুপারমার্কেটে ও টেক্সাসে একটি স্কুলে নির্বিচার গুলিবর্ষণের ঘটনার পর এই বিলটি পাস হল।

বিলে যেসব সংস্কারের কথা বলা হয়েছে, সেগুলো হল-

·         ২১ বছরে কম বয়সী বন্দুক ক্রেতাদের ক্ষেত্রে তাদের অতীত ভালোভাবে খতিয়ে দেখা

·         মানসিক স্বাস্থ্যবিষয়ক কর্মসূচি এবং স্কুলের নিরাপত্তার উন্নতিতে ১ হাজার ৫০০ কোটি ডলারের কেন্দ্রীয় তহবিল বরাদ্দ

·         হুমকি বলে বিবেচিত মানুষদের কাছ থেকে আগ্নেয়াস্ত্র দূরে রাখতে ‘রেড ফ্ল্যাগ’ আইনের বাস্তবায়নের জন্য অঙ্গরাজ্যগুলোকে উদ্বুদ্ধ করতে তহবিল বরাদ্দ

·         অবিবাহিত অন্তরঙ্গ সঙ্গীকে নিপীড়ন করা ব্যক্তিদের কাছে বন্দুক বিক্রি আটকে দিয়ে তথাকথিত ‘বয়ফ্রেন্ড লুপহোল’ বন্ধ করা

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বাইডেন অবশ্য বন্দুক আইনে আরও বড়সড় সংস্কারের জন্য চাপ দিয়ে আসছিলেন। তার লক্ষ্য ছিল- আধা-স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা কিংবা নিদেনপক্ষে বন্দুক ক্রয়ের ক্ষেত্রে ন্যূনতম বয়সসীমা বাড়িয়ে দেওয়া।

টেক্সাসে স্কুলে নির্বিচারে গুলি চালানো বন্দুকধারী তার বয়স ১৮ হওয়ার কয়েক দিনের মধ্যেই দুটি আধা-স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র কিনেছিলেন বলে মনে করা হচ্ছে।

আরও একটি কারণে কংগ্রেসে পাস হওয়া বন্দুক নিয়ন্ত্রণ বিলটিকে ‘গুরুত্বপূর্ণ’ বলা হচ্ছে; কেননা, কয়েক দশকের মধ্যে এবারই প্রথম বন্দুক আইন সংস্কারের পক্ষে ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকান উভয় দলের দিক থেকেই ব্যাপক সমর্থন দেখা গেল। অতীতে সাধারণত বন্দুক আইন কঠোর করার চেষ্টায় রিপাবলিকান পার্টি বাধা দিত।

এবার সেনেট ভোটে ৫০ ডেমোক্র্যাটের সবাই, এমনকী দলটির সবচেয়ে রক্ষণশীল আইনপ্রণেতা হিসেবে পরিচত সেনেটর জো মানচিন ও কার্সটেন সিনেমাও বিলটির পক্ষে ভোট দিয়েছেন।

বিলটি তোলার আগে এ নিয়ে ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলকান সেনেটরদের মধ্যে আলোচনা ও সমঝোতা হয়েছিল। সেই সমঝোতা-চুক্তি করা রিপাবলিকানরাও ভোটে বিলের পক্ষ নিয়েছে, এদের মধ্যে আছেন সেনেটে দলটির নেতা মিচ ম্যাককনেল ও সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠ মিত্র হিসেবে পরিচিত ও বন্দুক নিয়ন্ত্রণে আইনের বিরোধী হিসেবে পরিচিত লিন্ডসে গ্রাহাম।

তবে রিপাবলিকান সেনেটরদের মধ্যে দুই তৃতীয়াংশই বিলটির বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন। যারা পক্ষে ছিলেন, তাদের মধ্যে আলাস্কার লিসা মুরকোভস্কি ও ইন্ডিয়ানার টড ইয়ং ছাড়া আর কাউকেই চলতি বছর নভেম্বরের মধ্যবর্তী নির্বাচনে হয় ভোটারদের মুখোমুখি হতে হবে না, না হয় তারা যে আর নির্বাচনে দাঁড়াতে আগ্রহী নন তা জানিয়ে দিয়েছেন।

টেক্সাসের সেনেটর টেড ক্রুজ বিলটির সমালোচনা করে বলেছেন, “এর মাধ্যমে আমাদের সন্তানদের সুরক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ব্যবস্থা নেওয়ার পরিবর্তে আইন মেনে চলা নাগরিকদের নিরস্ত্র করার চেষ্টা হচ্ছে।”

ক্রুজ ২০২৪ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থীতার জন্য লড়তে পারেন, এমন গুঞ্জন রয়েছে।

২০১৮ সালে ফ্লোরিডার পার্কল্যান্ডে স্কুলে গুলির ঘটনায় বেঁচে যাওয়াদের হাতে গড়া বন্দুক নিরাপত্তা গোষ্ঠী ‘মার্চ ফর আওয়ার লাইভস’ কংগ্রেসে বন্দুক নিয়ন্ত্রণ বিল পাস হওয়াকে স্বাগত জানিয়েছে।

“এই মহামারী রুখতে আরও অনেক কাজ করতে হবে তা আমরা জানি। অনেক পরিশ্রম আমাদেরকে আজকের এ রাতে নিয়ে এসেছে। আমরা এই পথ ছেড়ে দিতে বা চুপ থাকতে অস্বীকৃতি জানাচ্ছি। বন্দুক সহিংসতা বন্ধ আমাদের আজীবনের লড়াই,” টুইটারে এমনটাই বলেছে তারা।

তবে যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল রাইফেল অ্যাসোসিয়েশন বিলটির বিরোধিতা করে বলেছে, এতে সহিংসতা বন্ধ হবে না।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক