কম্বোডিয়ার রাজধানী থেকে ভাসমান বাড়ি উচ্ছেদ শুরু

কম্বোডিয়ার রাজধানী ফনম পেনের কর্তৃপক্ষ দীর্ঘদিনের বাসিন্দাদের আপত্তি সত্ত্বেও তোনলে স্যাপ নদী তীরের ‘ভাসমান বাড়িগুলো’ উচ্ছেদ করা শুরু করেছে।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 12 June 2021, 05:14 PM
Updated : 12 June 2021, 05:15 PM

শনিবার উচ্ছেদ অভিযান শুরু হলেও কর্তৃপক্ষ তাদের সরে যাওয়ার পর্যাপ্ত সময় দেয়নি বলে অভিযোগ করেছেন বাসিন্দারা, তাদের যাওয়ার কোনো জায়গা নেই বলেও জানিয়েছেন তারা।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, কয়েক প্রজন্ম ধরে ফনম পেনের এই কাঠের তৈরি ভাসমান হাউসবোটগুলো এর অধিকাংশ জাতিগত ভিয়েতনামি পরিবারগুলোর জীবিকা ও জীবনযাত্রা উভয়ই ছিল। এসব বাড়িতে মাছের চাষ করতেন তারা এবং হস্তনির্মিত সেতুগুলোর মাধ্যমে যুক্ত ছিলেন তারা।

ফনম পেনের প্রেক পনোভ এলাকার নদীতীরে স্বজনদের সঙ্গে নিয়ে নিজের বাড়িটি ভাঙছিলেন ৫৪ বছর বয়সী কিথ ডং; তিনি বলেন, “আমাদের পূর্বসূরীরা এখানেই ছিলেন।”

তিনি জানান, শহর কর্তৃপক্ষ তাদের নতুন স্থানে সরে যাওয়ার পর্যাপ্ত সময় দেয়নি। 

“তারা যদি আর কয়েক মাস সময় বাড়াতো, আমরা একটা বাড়ি তৈরি করার সময় পেতাম,” বলেন তিনি।

২০ বছর আগে প্রতিবেশী ভিয়েতনাম থেকে কম্বোডিয়ায় আসা ডাং ভ্যান চৌ (৫৭) বলেন, “আমি কোথায় যাবো জানিনা, আমার কোনো জমিও নেই।”

ফনম পেন সিটি কর্পোরেশন জানিয়েছে, ভাসমান এই বস্তিগুলো দৃষ্টিকটু ও অস্বাস্থ্যকর, হাউসবোটগুলোর আশপাশে আবর্জনার ব্যাগ ও নর্দমা ভাসতে থাকে।  

প্রেক পনোভ অঞ্চলের ভূমি ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা সি ভুথা শুক্রবার উচ্ছেদ কার্যক্রম তদারকি করছিলেন।

রয়টার্সকে তিনি বলেন, “আজ ৩১৬টি বাড়ি উচ্ছেদ করা হবে। এগুলো শহরের সৌন্দর্য ও পরিবেশের ক্ষতি করছিল। আপনি একটি হাউসবোটে গিয়ে বসেন, দুর্গন্ধ পাবেন।”

২০২৩ সাউথইস্ট এশিয়ান গেমস উপলক্ষ্যে রাজধানী ফনম পেনকে পরিষ্কার করার উদ্দেশ্যে এসব উচ্ছেদ অভিযান চালানো হচ্ছে বলে জানান তিনি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক