প্রিন্স হ্যারি ও মেগানের সিদ্ধান্তে রানির সায়

ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ প্রিন্স হ্যারি ও তার স্ত্রী মেগান মার্কলের নতুন সিদ্ধান্তকে সমর্থন জানিয়েছেন। তবে বলেছেন তারপরও তিনি চান,তারা রাজপরিবারের সদস্য হিসাবে রাজকীয় দায়িত্ব ‘পুরোপুরি’ পালন করুন।

>>রয়টার্স
Published : 14 Jan 2020, 12:45 PM
Updated : 14 Jan 2020, 12:58 PM

গত ৯ জানুয়ারি আচমকাই ব্রিটিশ রাজ পরিবারের জ্যেষ্ঠ সদস্যের দায়িত্ব থেকে সরে এসে আর্থিকভাবে স্বনির্ভর হওয়ার জন্য কাজ করার ঘোষণা দেন প্রিন্স হ্যারি এবং তার স্ত্রী মেগান মার্কল।

ঘটনার আকস্মিকতায় রাজপরিবার আহত হয়।রাজপরিবারের সঙ্গে হ্যারি ও মেগানের ভবিষ্যৎ সম্পর্ক এবং ভূমিকা নিয়ে আলোচনা করতে সোমবার ইংল্যান্ডের নোরফোকে স্যান্ড্রিংহাম প্রাসাদে প্রিন্স হ্যারি, তার বাবা চার্লস ও ভাই উইলিয়ামকে নিয়ে বৈঠক করেন রানি।

বৈঠকে খুবই ‘গঠনমূলক’ আলোচনা হয়েছে এবং রানিও হ্যারি মেগান দম্পতির অবস্থান পরিবর্তনের এই সময়ে কানাডা ও যুক্তরাজ্যে বাস করার সিদ্ধান্ত মেনে নিয়েছেন।

দুই জায়গায় হ্যারি মেগান দম্পতি কোন সময়ে কতদিন কিভাবে থাকবেন সেটিসহ তাদের অর্থায়নের বিষয়টি নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত কয়েকদিনের মধ্যেই জানানো হবে বলে বাকিংহাম প্রাসাদ থেকে প্রকাশিত এক ‍বিবৃতিতে জানিয়েছেন রানি।

বিবৃতিতে রানি বলেন,“হ্যারি এবং মেগানের নতুন জীবনের আকাঙ্ক্ষার বিষয়টি রাজপরিবার বুঝতে পেরেছে এবং তাদের এ সিদ্ধান্তকে সম্মান জানাচ্ছে।তবে রাজপরিবার চায়,তারা পুরোপুরি রাজ দায়িত্ব পালন করুক।”

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন এরই মধ্যে ডিউক অব সাসেক্স হ্যারি এবং ডাচেস অব সাসেক্স মেগানের ভবিষ্যৎ ভূমিকা রাজপরিবারই নির্ধারণ করবে বলে জানিয়েছেন।

হ্যারি এবং মেগানের নতুন সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে ওঠা নানা প্রশ্নের মধ্যে একটি প্রশ্ন উঠেছে ভবিষ্যতে তাদের নিরাপত্তা বিধানের জন্য তহবিল কে দেবে সেটি নিয়ে। এ বিষয়টি নিয়ে আরো আলোচনা হওয়া দরকার বলে মনে করেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী ট্রুডো।

যদিও হ্যারি-মেগান বলেছেন, নতুন জীবনে তারা সরকারি তহবিলের ওপর নির্ভর করতে চান না।তবে রানি এ ব্যাপারে আগামী কয়েক দিনের মধ্যে পরিবারকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে বলেছেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক