চীনের ঋণের ফাঁদে মমবাসা বন্দরের নিয়ন্ত্রণ হারাচ্ছে কেনিয়া

চীনের কাছে ঋণগ্রস্ত কেনিয়া সরকার তাদের প্রধান সমুদ্র বন্দর মমবাসা পোর্টের নিয়ন্ত্রণ হারানোর ঝুঁকিতে পড়েছে।

নিউজডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 1 Feb 2019, 11:42 AM
Updated : 1 Feb 2019, 11:48 AM

রাজধানী নাইরোবি থেকে মমবাসা সরাসরি রেল যোগাযোগের জন্য স্ট্যান্ডার্ড গেজ রেলওয়ে (এসজিআর) নির্মাণে কেনিয়া সরকার ওই ঋণ নিয়েছিল।

চীনের আর্থিক সহায়তায় ২০১১ সালে নাইরোবি-মমবাসা রেলপথ নির্মাণ কাজ শুরু হয়; যা স্বাধীনতার পর কেনিয়ায় সবচেয়ে বৃহৎ এবং ব্যয়বহুল অবকাঠাম নির্মাণ।

চীনের রাষ্ট্রায়াত্ত এক্সিম ব্যাংক মোট ব্যয়ের ৯০ শতাংশ ঋণ দিতে রাজি হলে ২০১৪ সালের ১১ মার্চ দুই দেশের মধ্যে এ সংক্রান্ত ঋণচুক্তি সাক্ষর হয় বলে জানায় কেনিয়ার অনলাইন ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম TUKO.co.ke।

চুক্তি অনুযায়ী ১৫ বছরের মধ্যে কেনিয়াকে সম্পূর্ণ ঋণ পরিশোধ করতে হবে।

এ বছর জুনে চীনের দেওয়া পাঁচ বছরের ‘গ্রেস টাইম’ শেষ হয়ে যাবে। যে কারণে, জুলাই থেকে কেনিয়াকে প্রতি বছর আগের তুলনায় তিনগুণ বেশি অর্থ পরিশোধ করতে হবে।

এসজিআর নামে ওই ঋণচুক্তি সাক্ষরের সময় কেনিয়া নিজেদের সম্পদ রক্ষার সার্বভৌম ক্ষমতা ত্যাগ করেছে। যে কারণে ওই চুক্তির শর্তাবলী চীনা আইন অনুযায়ী পরিচালিত এবং কেনিয়া সরকারের নিজেদের সম্পদ রক্ষার কোনো অধিকার নেই।

সম্প্রতি এসজিআর চুক্তিপত্রের কিছু অংশ অনলাইনে প্রকাশ পেয়েছে বলে স্থানীয় একটি দৈনিকের বরাত দিয়ে জানায় রেডিও ফ্রান্স ইন্টারন্যাশনাল।

 

লিক হওয়া ওই চুক্তিপত্রে দেখা যায়, কেনিয়ার ন্যাশনাল রেলওয়ে কর্পোরেশন যদি চীনের এক্সিম ব্যাংকের কাছ থেকে নেওয়া প্রায় দুইশ কোটি ইউরো সময়মত পরিশোধ করতে না পারে তবে চীন সরকার দেশটির সবচেয়ে বড় এবং লাভজনক বন্দর মমবাসার নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেবে।

যদি চীন মমবাসা বন্দরের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয় তাহলে সঙ্গে সঙ্গেই বন্দরের ব্যবস্থাপণা বিভাগে পরিবর্তন আসবে; এমনকি বন্দরকর্মীরাও চীনা ঋণদাতাদের অধীনে কাজ করতে বাধ্য হবে।

চীন স্বাভাবিকভাবে সেখানে নিজেদের স্বার্থ সবার আগে দেখবে। তার উপর, বন্দর থেকে আসা রাজস্ব আয় সরাসরি চীনে চলে যাবে

এর আগে ২০১৭ সালে ডিসেম্বরে চীন একইভাবে শ্রীলঙ্কার হাম্বানটোটা বন্দরের নিয়ন্ত্রণ ৯৯ বছরের কম সময়ের জন্য নিয়ে নেয়।

হাম্বানটোটা বন্দরের নিয়ন্ত্রণ চীনের বাণিজ্য এবং সামরিক উভয় ক্ষেত্রের জন্য দারুণ লাভজনক হয়েছে। চীনের আঞ্চলিক প্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের উপকূল সেখান থেকে মাত্র কয়েকশ মাইল দূরে।

এরপর ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে চীন ঋণ পরিশোধে ব্যর্থ জিম্বাবুয়ের কেনেথ কউণ্ডা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নিয়ন্ত্রণ নেয়।

২০১৭ সালে হাম্বানটোটা বন্দরের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর নিউ ইয়র্ক টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, “এই ঘটনা চীন সরকারের বিশ্বজুড়ে আধিপত্য বিস্তারে অবকাঠামো উন্নয়নের নামে ঋণ ও সাহায্যকে হাতিয়ার বানানোর একটি উদাহরণ মাত্র। চীন ঋণ আদায়ে কতটা নিষ্ঠুর হতে পারে এটা সে কথাও বলছে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক