‘দানবীয়’ ক্যামেরা সেন্সর শাওমির নতুন ফোনে

নতুন তিনটি স্মার্টফোন দেখিয়েছে চীনের স্মার্টফোন নির্মাতা শাওমি; এর মধ্যে আলোচনার জন্ম দিচ্ছে মি ১২এস আল্ট্রা স্মার্টফোনের ‘দানবীয়’ ক্যামেরা সেন্সর।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 5 July 2022, 07:49 AM
Updated : 5 July 2022, 07:49 AM

স্মার্টফোনে এক ইঞ্চির ক্যামেরা সেন্সরের উপস্থিতিকে চট করে অভূতপূর্ব বলা না গেলেও সার্বিক বাজার বিবেচনায় এটি বিরল। সনির আরএক্স১০০ সিরিজের ‘পয়েন্ট অ্যান্ট শুট’ ক্যামেরার মতো ডিভাইসগুলোতেই এই আকারের সেন্সরের ব্যবহার বেশি।

ক্যামেরা সেন্সরের পাশাপাশি শাওমির নতুন ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনটির প্রায় সবকিছুই নজরে পড়ার মতো আকারে বড় বলে মন্তব্য করেছে প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট ভার্জ। ৬.৭৩ ইঞ্চির ওলেড ডিসপ্লে আছে ডিভাইসটিতে; স্ন্যাপড্রাগন ৮ প্লাস জেন ১ চিপসেট আছে এতে।

ছবি: নির্মাতার ওয়েবসাইট থেকে

ডিভাইসটিতে তিনটি ক্যামেরা রয়েছে। এর প্রথমটি ৪৮ মেগাপিক্সেলের আল্ট্রাওয়াইড ক্যামেরা। এর পাশাপাশি আছে ৪৮ মেগাপিক্সেলের টেলিফটো ক্যামেরা; ৫x অপটিকাল জুম সুবিধা মিলবে এতে। আর এর মূল ক্যামেরাটি ৫০ মেগাপিক্সেলের। মূল ক্যামেরাতেই আছে ১ ইঞ্চির ক্যামেরা সেন্সর।

ক্যামেরার সেন্সরের আকার বড় হওয়ার সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে বেশি আলো গ্রহণ করে ছবি তোলা সম্ভব হয়। ফলে ছবির মান আরও ভালো হয়। এত বড় সেন্সর স্মার্টফোনটিকে রাতারাতি পেশাদারী ডিএসএলআর ক্যামেরার সমতূল্য ডিভাইসে পরিণত না করলেও একে বড় অগ্রগতি হিসেবেই দেখছে ভার্জ।

শাওমি দাবি করছে, মি ১২এস আল্ট্রার পুরো ক্যামেরা সিস্টেমের নকশা করা হয়েছে শীর্ষ ক্যামেরা নির্মাতা লাইকার সহযোগিতা নিয়ে; আর নির্মাণ খরচ ভাগাভাগি করা হয়েছে সনির সঙ্গে।

ছবি: নির্মাতার ওয়েবসাইট থেকে

গত বছরে নিজস্ব একটি স্মার্টফোনেও এক ইঞ্চির ক্যামেরা সেন্সর রেখেছিল সনি। তবে ভার্জ বলছে, সেন্সরের আংশিক ব্যবহার করতো সনির স্মার্টফোন। কিন্তু এই সেন্সরের পূর্ণ সক্ষমতা ব্যবহার করবে শাওমির নতুন ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন।

ক্যামেরা সেন্সর বাদে ৪৮৬০ মিলিঅ্যাম্প আওয়ার ব্যাটারি এবং ৬৭ ওয়াটের ‘ফাস্ট চার্জিং’ সুবিধা আছে মি ১২এস আল্ট্রায়। ডিভাইসটি ‘ডলবি ভিশন এইচডিআর’ ভিডিও ধারণে সক্ষম প্রথম অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন বলে দাবি করছে শাওমি।

প্রথমে চীনের বাজারে ডিভাইসটির অভিষেক হবে বলে জানিয়েছে ভার্জ। ডিভাইসটি আন্তর্জাতিক বাজারে কবে নাগাদ আসবে, সে বিষয়ে এখনও কোনো ঘোষণা দেয়নি শাওমি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক