ভিডিও প্ল্যাটফর্মগুলোর ওপর নামছে চীনের খড়্গ

চীনের অনলাইনে লাইভ স্ট্রিমিং এবং ক্ষুদ্র ভিডিও ব্যবসায় থাকা ‘আবর্জনা’ পরিষ্কারের কাজে হাত দিয়েছে চীন। আর সে জন্য দুই মাসের এক বিশেষ অভিযানের ঘোষণা দিয়েছে দেশটির ইন্টারনেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 April 2022, 09:30 AM
Updated : 16 April 2022, 09:30 AM

‘উপযুক্ত’ ও ‘আইনসম্মত’ হিসেবে বিবেচিত কনটেন্টকে সুবিধা দেওয়ার বৃহত্তর পরিকল্পনায় এই অভিযান চালানোর কথা বলেছে দেশটি।

“প্রাথমিকভাবে, ‘পর্ণোগ্রাফি, কুৎসিত, অদ্ভুত, চোরাই, অশ্লীল এবং জুয়া সমর্থক’ কনটেন্ট সংশোধনে নজর দেওয়া হচ্ছে।” --এক বিবৃতিতে বলেছে ‘সাইবারস্পেইস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন অফ চায়না’।

গেল বছর প্রায় ১০০ কোটির বেশি অনলাইন অ্যাকাউন্ট এবং হাজার হাজার ওয়েবসাইট সরাতে ‘স্পেশাল অপস’ চালু করেছিল চীন। দেশটির সমাজতান্ত্রিক মূল্যবোধকে প্রতিফলিত করে, এমন ইন্টারনেট ব্যবস্থা তৈরিতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার বিষয়টি উঠে এসেছে রয়টার্সের প্রতিবেদনে।

‘মাল্টি-চ্যানেল নেটওয়ার্ক’ (এমসিএন) প্রতিষ্ঠান, ক্ষুদ্র ভিডিও এবং লাইভ-স্ট্রিমিং মাধ্যমের ওপর চলবে দুই মাসের এই ‘শুদ্ধিকরণ’ অভিযান। পাশাপাশি, বেআইনি কনটেন্ট প্রকাশ করা অ্যাকাউন্টেও নজর রাখার উল্লেখ রয়েছে বিবৃতিতে।

শুদ্ধিকরণ অভিযান তালিকায় এমসিএন কোম্পানির উপস্থিতি থেকে অনুমান করা যায়, সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল কনটেন্ট নির্মাতাদের বড় অংশ চীনের সাইবারস্পেস কর্তৃপক্ষের উদ্বেগের কারণ।

অবশ্য যে সব অনলাইন ইনফ্লুয়েন্সার সাম্প্রতিক মাসগুলোতে কর ফাঁকির মতো ঘটনায় তদন্তের মুখে পড়েছে চীনা কর্তৃপক্ষ এরইমধ্যে তাদের কঠোরতার নমুনা দেখিয়েছে।

অনেক লাইভ স্ট্রিমিং এবং শর্ট ভিডিও প্লাটফর্ম, নেটওয়ার্ক উপস্থাপক বা অ্যাকাউন্ট মালিকের আয়ের উৎস ও প্রকৃতির উপযুক্ত জবাব দিতে ব্যর্থ হচ্ছে, বা কর ফাঁকি দিতে তাদের প্রকৃত আয় প্রকাশ করছে না।

দুই মাসের অভিযানে নিয়ন্ত্রকরা সেসব প্রতিষ্ঠানকে লক্ষ্য করার হুমকি দিয়েছে বলে প্রতিবেদনে লিখেছে রয়টার্স।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক