প্রতিষ্ঠানের গতি বাড়াতে চান টুইটারের নতুন প্রধান

প্রযুক্তি খাতের সংশ্লিষ্টদের জন্য পরিষ্কার বার্তা দিচ্ছেন টুইটারের নতুন প্রধান পারাগ আগরাওয়াল; অতীতের যে কোনো সময়ের তুলনায় দ্রুতগতিতে সামনে এগোবে সামাজিক যোগাযোগের প্ল্যাটফর্মটি।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 8 Dec 2021, 10:55 AM
Updated : 8 Dec 2021, 10:55 AM

মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারের প্রধান নির্বাহীর দায়িত্ব আকস্মিকভাবেই নেওয়ার পর প্রথমবারের মতো জনসমক্ষে কথা বলেছেন আগরাওয়াল। ‘বার্কলেস গ্লোবাল টেকনোলজি, মিডিয়া অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন কনফাররেন্স’-এ টুইটারের কার্যপ্রণালী আরও গুছিয়ে এনে কাজের গতি ও মান বৃদ্ধির উপর জোর দিয়েছেন তিনি।

আগরাওয়াল টুইটার প্রধানের দায়িত্ব নিয়েছেন নয় দিন হলো, এর মধ্যেই বড় পরিবর্তন এনেছেন প্ল্যাটফর্মটির প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামোয়। শুক্রবারেই প্রতিষ্ঠানকে তিনটি মূল ভাগে ভাগ করেছেন আগরাওয়াল। ‘কনিজিউমার’, ‘রেভিনিউ’ এবং ‘কোর টেক’ এই তিন বিভাগ দেওয়া হয়েছে নতুন তিন মহাব্যবস্থাপকের অধীনে।

আগরাওয়াল বলছেন, “আমার বিশ্বাস আমরা তাদের এমনভাবে গুছিয়ে দিয়েছি যে তারা দ্রুত গতিতে কাজ করতে পারবেন”।

সাবেক টুইটার প্রধান জ্যাক ডরসির কাছের মানুষ হিসেবে পরিচিত ছিলেন তৎকালীন প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা আগরাওয়াল। কিন্তু আগরাওয়াল প্রধান নির্বাহীর দায়িত্ব নিয়ে প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামোতে পরিবর্তন আনা শুরু করার পর টুইটার ছাড়ছেন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান মাইকেল মন্টানো এবং ‘ডিজাইন অ্যান্ড রিসার্চ’ প্রধান ডেন্টলি ডেভিস। ডিসেম্বর শেষে টুইটার ছাড়ছেন এতোদিন সরাসরি ডরসি’র অধীনে কাজ করে আসা ওই দুই নির্বাহী। 

“আগের কাজের কাঠামোতে আমাদের একটি ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, একটি গবেষণা বিভাগ ছিল এবং পণ্য নির্মাণের দায়িত্ব থাকা দলগুলো ছিল ওই বিভাগগুলোর সঙ্গে সমন্বিত হতো।”-- টুইটারের আগের কার্যপ্রণালী দুর্বল ছিল-- আগরাওয়ালের বক্তব্য থেকে এমন ইঙ্গিত মেলে বলে উঠে এসেছে প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট ভার্জের প্রতিবেদনে।  

নতুন তিন মহাব্যবস্থাপক হিসেবে কাভিওন বেকপুর, ব্রুস ফ্ল্যাক এবং নিক কাল্ডওয়েলকে নিয়োগ দিয়েছেন আগরাওয়াল। অপারেশনস বিভাগের ভাইস-প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে লিন্ডসে লানুচ্চিকে।

লিন্ডসে লানুচ্চিকে ভাইস-প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব দাওয়া প্রসঙ্গে আগরাওয়াল বলেন-- “নতুন কাঠামোতে তিনি আমাদের কাজের গতি বাড়িয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত গ্রহণ, পরিষ্কার মালিকানা, বর্ধিত জবাবদিহিতা, কাজের মানোন্নয়নের পথ সহজ করবেন যার ফল হবে সার্বিক কর্মকাণ্ডের গতি ও মান বৃদ্ধি পাবে।”

বার্কলের প্রযুক্তি সম্মেলনে ৩০ মিনিটের সাক্ষাৎকার দিয়েছেন আগরাওয়াল। এর মধ্যে প্রতিষ্ঠানিক কর্মকাণ্ডের গতি বৃদ্ধির কথা বারবার উঠে এসেছে বলে জানিয়েছে ভার্জ। প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালনের সময় নতুন পণ্য বাজারজাতকরণের গতি বাড়াতে প্রতিষ্ঠানের অভ্যন্তরীণ প্রযুক্তি কাঠামো কীভাবে ঢেলে সাজিয়েছিলেন, তার উপর জোর দিয়েছেন আগরাওয়াল।   

আগরাওয়াল এটাও স্বীকার করেছেন যে “ধীর গতিতে সিদ্ধান্ত নেওয়ার মূল কারণ ছিল” বিভিন্ন দলের মধ্যে “অতিমাত্রায় সমন্বয়ের প্রয়োজনীয়তা”। 

শেয়ার বাজারে পাবিলক লিমিটেড কোম্পানি হিসেবে যাত্রা শুরু করার পর থেকে টুইটার যে বিনিয়োগকারীদের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেনি এবং গ্রাহকদের চাহিদা মেটানোর ক্ষেত্রেও প্রতিষ্ঠানটি ছিল ধীরগতির, আগরাওয়ালের বক্তব্য থেকে যেন সেই স্বীকারোক্তিই মিলছে-- মন্তব্য করেছে ভার্জ।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক