মার্কিন কংগ্রেসের জিজ্ঞাসাবাদে ডাক পেলেন আট শীর্ষ ‘ক্রিপ্টো নির্বাহী’

মার্কিন কংগ্রেসনাল কমিটির সামনে সাক্ষ্য দেওয়ার জন্য ডাক পড়েছে আটটি প্রধান ক্রিপ্টোকারেন্সি সংস্থার প্রধান নির্বাহীদের। তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে এ মাসের ৮ তারিখ।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 Dec 2021, 08:08 AM
Updated : 3 Dec 2021, 11:44 AM

এই প্রথম বিতর্কিত এই আর্থিক খাতের প্রতিনিধিত্বকারী সংস্থাগুলোকে এইভাবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হচ্ছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে বিবিসি। কয়েনবেইসের অ্যালিসিয়া হাস, সার্কেলের জেরেমি অ্যালায়ার এবং বিটফিউরির ব্রায়ান ব্রুকস রয়েছেন ডাক পাওয়া নির্বাহীদের তালিকায়।

দলমত নির্বিশেষে মার্কিন রাজনীতিবিদরা এক সুরে ক্রিপ্টো মুদ্রার আরও নিবিড় যাচাইয়ের কথা বলছেন।

ডেমোক্রেটিক পার্টির এলিজাবেথ ওয়ারেন একদিকে এই খাতের কঠোর নিয়ন্ত্রণের আহ্বান জানিয়েছেন, অন্যদিকে রিপাবলিকান দলের সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প ক্রিপ্টো মুদ্রাকে "বুজরুকি" আখ্যা দিয়েছেন।

বিটফিউরির ব্রায়ান ব্রুকস এর আগে ট্রাম্প প্রশাসনে ব্যাংকিং সেক্টরের শীর্ষ নিয়ন্ত্রক হিসাবে কাজ করেছেন। সে সময় ক্রিপ্টো মুদ্রাকেন্দ্রীক নীতি নির্ধারণে তার ভূমিকা ছিলো।

ক্রিপ্টো মুদ্রা প্রচলিত অর্থে মুদ্রা নয়। তবে, আর্থিক লেনদেনের মাধ্যম হিসেবে এর ব্যবহার রয়েছে। অনলাইনভিত্তিক ‘ডিজিটাল ওয়ালেটে’ সংরক্ষণ করা এই মুদ্রা বিনিয়োগ মাধ্যম বা সিকিউরিটির মতো কাজ করলেও মূল্যে অস্থিরতা এর অন্যতম বৈশিষ্ট্য।

পরিচয় গোপন রেখে ক্রিপ্টো মুদ্রায় লেনদেন করার সুবিধা থাকার ফলে এটি মাদক বাণিজ্যসহ বিভিন্ন অবৈধ লেনদেন এবং র‌্যানসমওয়্যার আক্রমণের মতো অপরাধমূলক কাজে জনপ্রিয়তা পেয়েছে। তবে এই মুদ্রার পক্ষের লোকজন বলছেন, ফাঁকি দেওয়ার দৃষ্টিকোণ থেকে প্রচলিত মুদ্রাভিত্তিক ব্যাংকিং আইন সেকেলে এবং আর্থিক এই ক্ষেত্রটিতে উদ্ভাবনের বিশাল সুযোগ রয়েছে।

বিশ্বে ক্রিপ্টো মুদ্রার বেলায় দেশগুলির অবস্থান ভিন্ন

চীন এরইমধ্যে ক্রিপ্টো-কারেন্সি লেনদেন অবৈধ ঘোষণা করেছে। ভারতও লক্ষণ দেখিয়েছে একই পথ অনুসরণ করার। অন্যান্য অনেক কেন্দ্রীয় ব্যাংক এই খাতের দিকে তীক্ষ্ণ নজর রাখছে এবং এর নিয়ন্ত্রণ নিয়ে আলোচনা করছে।

অন্যদিকে, এল সালভাদর সম্প্রতি সবচেয়ে জনপ্রিয় ক্রিপ্টো মুদ্রা বিটকয়েনকে দেশটির ‘অনুমোদিত মুদ্রা’ বলে ঘোষণা করেছে। দেশটির প্রেসিডেন্ট একটি আগ্নেয়গিরির পাদদেশে একটি বিটকয়েন শহর নির্মাণেরও পরিকল্পনা করেছেন। এর তহবিলও আসবে ক্রিপ্টো মুদ্রা থেকে।

গোটা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র জুড়েই অনেক নাগরিক, শহর কর্তৃপক্ষ এবং রাজ্য ক্রিপ্টো মুদ্রাকে তাদের কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জুড়ে নেওয়ার পরিকল্পনা করেছে। মায়ামির মেয়র এবং নিউ ইয়র্কের নবনির্বাচিত মেয়র নিজ নিজ শহরকে ক্রিপ্টোকারেন্সি ব্যবসার কেন্দ্রে পরিণত করার কথা বলেছেন।

সাম্প্রতিক ঘোষণা অনুযায়ী, মার্কিন হাউস ফিনান্সিয়াল সার্ভিসেস কমিটির সামনে শুনানির সময় “আর্থিক উদ্ভাবনের চ্যালেঞ্জ এবং সুবিধার” উপর মনোযোগ দেওয়ার কথা বলেছেন মার্কিন আইনপ্রণেতারা।

ডাক পাওয়া অন্যান্য প্রধান নির্বাহীর মধ্যে রয়েছেন এফটিএক্স ট্রেডিংয়ের স্যাম ব্যাংকম্যান-ফ্রাইড, প্যাক্সোসের চাড ক্যাসকারিলা এবং স্টেলার ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের ড্যানিয়েল ডিক্সন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক