অভিভাবকের অনুমতি নিতে সামাজিক মাধ্যমকে ‘বাধ্য করবে’ অস্ট্রেলিয়া

সামাজিক মাধ্যমগুলোকে চাপে ফেলার নতুন পরিকল্পনা করেছে অস্ট্রেলিয়া সরকার। অপ্রাপ্তবয়স্কদের নিজস্ব প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করতে দেওয়ার আগে অভিভাবকের অনুমতি নিশ্চিত করতে হবে সামাজিক মাধ্যমগুলোকে। অভিভাবকের অনুমতি নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হলে কয়েক লাখ ডলারের জরিমানা গুনতে হবে প্রতিষ্ঠানগুলোকে।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 Oct 2021, 09:53 AM
Updated : 25 Oct 2021, 10:19 AM

বার্তাসংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, অনলাইনে সাধারণ ব্যবহারকারীদের গোপনতা ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নতুন খসড়া আইন বিচার-বিবেচনা করছে অস্ট্রেলিয়ার নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ। সেটির বাস্তবায়ন হলে ফেইসবুক, রেডিট, হোয়াটসঅ্যাপের মতো সেবাদাতাদের ব্যবহারকারী প্রাপ্তবয়স্ক কি না সেটি নিশ্চিত করতে যথাযথ পদক্ষেপ নিতে হবে এবং সবকিছুর উর্ধ্বে শিশুদের গুরুত্ব দিতে বাধ্য থাকবে ওই সামাজিক মাধ্যমগুলো।

রয়টার্স বলছে, খসড়া আইন চূড়ান্ত হলে বয়স সীমার বিবেচনায় সামাজিক মাধ্যমের উপর সবচেয়ে কঠোর আইন প্রয়োগকারী দেশগুলোর মধ্যে একটি হিসেবে আত্মপ্রকাশ করবে অস্ট্রেলিয়া। ইতোমধ্যেই সংবাদমাধ্যমগুলোর কন্টেন্ট নিয়ে চুক্তিভিত্তিক কার্যপ্রণালী নির্ধারণে সামাজিক মাধ্যমগুলোকে বাধ্য করেছে অস্ট্রেলিয়া; অনলাইনে ভুয়া ও মানহানিকর তথ্যের প্রচারণা বন্ধেও আইন কঠোর করেছে দেশটির সরকার।   

এই প্রসঙ্গে এক বিবৃতিতে দেশটির অ্যাটর্নি জেনারেল মিকেইলা ক্যাশ বলেন, “অস্ট্রেলিয়ার নাগরিকদের ডেটা ও গোপনীয়তা যেন নিরাপদ থাকে ও যত্নের সঙ্গে তার দেখভাল করা হয় সেটা নিশ্চিত করছি আমরা। আমাদের খসড়া আইনের মানে এটাই যে মান অর্জনে ব্যর্থ হলে কঠোর শাস্তির মুখে পড়তে হবে এই প্রতিষ্ঠানগুলোকে।”  

অন্যদিকে, চলতি মাসে এক তথ্য ফাঁসকারী সাবেক কর্মীর কারণে বড় বিপাকে পড়েছে বিশ্বের সবচেয়ে প্রভাবশালী সামাজিক মাধ্যম হিসেবে পরিচিত ফেইসবুক। ফেইসবুক মুনাফার লোভে অপ্রাপ্তবয়স্কদের মানসিক স্বাস্থ্যের উপর ইনস্টাগ্রামের বিরূপ প্রভাব অগ্রাহ্য করছে-- সাবেক কর্মী ফ্রান্সেস হাউগেনের ফাঁসকরা নথি থেকে এমন অভিযোগ উঠায় মার্কিন আইনপ্রণেতাদের রোষের মুখে পড়েছে ফেইসবুক। সেই বিতর্কের আঁচ লেগেছে অস্ট্রেলিয়াতেও।   

এই প্রসঙ্গে অস্ট্রেলিয়ার মানসিক স্বাস্থ্য ও আত্মহত্যা প্রতিরোধবিষয়ক উপমন্ত্রী ডেভিড কোলম্যান বলেন, “ফেইসবুকের অভ্যন্তরীণ গবেষণা থেকেই এটা উঠে এসেছে যে, তরুণদের মানসিক স্বাস্থ্য এবং নিজের শারীরিক গঠন ভাবনাকে প্রভাবিত করতে পারে সামাজিক মাধ্যম প্ল্যাটফর্মগুলো।”  

অস্ট্রেলিয়ার নতুন খসড়া আইন প্রসঙ্গে ফেইসবুকের অস্ট্রেলিয়া ও নিউ জিল্যান্ড পরিচালক মিয়া গালিক জানিয়েছেন, নতুন আইনের খসড়া বিশ্লেষণ করে দেখছে তার প্রতিষ্ঠান। “উদ্ভাবনী নতুন প্রযুক্তির গতির সঙ্গে তুলনামূলক একই গতিতে অস্ট্রেলিয়ার গোপনতা আইন যে উন্নত হচ্ছে সেটি নিশ্চিত করার গুরুত্ব” তার প্রতিষ্ঠান অনুধাবন করতে পেরেছে বলে মন্তব্য করেছেন তিনি। 

নতুন খসড়া আইনটি চূড়ান্ত হওয়ার পর সামাজিক মাধ্যমগুলো এর যে কোনো ধারা লঙ্ঘন করলে অস্ট্রেলিয়ার বাজার থেকে আসা ওই প্রতিষ্ঠানের বার্ষিক আয়ের ১০ শতাংশ, অথবা আইন লঙ্ঘনের ঘটনা থেকে আসা আর্থিক লাভের তিনগুণ অথবা ১ কোটি অস্ট্রেলিয়ান ডলার জরিমানা করা হবে বলে জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক