‘বিভ্রান্তিকর’ টুইট নিয়ে অভিযোগের ফিচার আনছে টুইটার

ভুয়া ও বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রচারে টুইটার সহযোগিতা করে--এমন অভিযোগ অনেক দিনের। ব্যবহারকারীদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে ওই মাইক্রোব্লগিং সেবায় অবশেষে যোগ হচ্ছে ‘মিসলিডিং’ বা বিভ্রান্তিকর টুইট রিপোর্ট করার ফিচার।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 18 August 2021, 01:31 PM
Updated : 18 August 2021, 05:30 PM

টুইটার প্রাথমিক অবস্থায় নতুন ফিচারটি সীমিত পরিসরে পরীক্ষামূলকভাবে চালু করার ঘোষণা দিয়েছে মঙ্গলবার।

টুইটার জানিয়েছে, প্রাথমিক অবস্থায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, দক্ষিণ কোরিয়া ও অস্ট্রেলিয়ার নির্দিষ্ট কিছু ব্যবহারকারী ভুয়া অথবা বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রচার করছে এমন টু্ইটগুলো নিয়ে রিপোর্ট করতে পারবেন।

কোনো টুইট নিয়ে আপত্তি থাকলে সেটি নিয়ে রিপোর্ট করার সময় “ইটস মিসলিডিং” অপশনটি পাবেন ওই ব্যবহারকারীরা। তবে সীমিত পরিসরের এই পরীক্ষা থেকে তাৎক্ষণিক কোনো ফলাফল নাও আসতে পারে বলে জানিয়েছে টুইটার।

“আমরা কোনো পদক্ষেপ নাও নিতে পারি, এবং প্রতিটি অভিযোগের উত্তর দিতে সক্ষম নাও হতে পারি। কিন্তু আপনাদের মতামত বিভ্রান্তিকর তথ্যের প্রচারণা ঠেকাতে আমাদের নিয়মিত কাজের গতি ও পরিসর বাড়াবে”-- বলছে টুইটার।

সম্প্রতি ভুয়া ও ভুল তথ্যের প্রচারণা ঠেকাতে তৎপর হয়েছে শীর্ষস্থানীয় সামাজিক মাধ্যমগুলো। টুইটারের নতুন সিদ্ধান্ত ওই প্রক্রিয়ারই অংশ বলে জানিয়েছে সিএনএন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচন ও চলমান করোনা মহামারী নিয়ে ইন্টারনেটে একাধিকবার ভুয়া তথ্যের প্রচারণার পরিপ্রেক্ষিতে তৎপর হয়েছে প্রতিষ্ঠানগুলো।

ভুয়া খবরের প্রচারণা ঠেকাতে সামাজিক মাধ্যমগুলোর ব্যর্থতা রেষারেষির জন্ম দিয়েছে ফেইসবুক আর বাইডেন সরকারের মধ্যেও। শীর্ষ সামাজিক মাধ্যমটি মিথ্যাচারের সুযোগ করে দিয়ে মার্কিন নাগরিকদের প্রাণহানির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে অভিযোগ করেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

এমন পরিস্থিতিতে, টুইটার অনেকটা ফেইসবুকের পদক্ষেপ অনুসরণ করছে বলে মন্তব্য করেছে সিএনএন। স্বাস্থ্য, রাজনীতি এবং সামাজিক সমস্যাগুলো নিয়ে প্রচারিত ভুয়া খবর রিপোর্ট করার সুযোগ আছে ফেইসবুকে।

‘কন্টেন্ট মডারেশন’-এর ক্ষেত্রে টুইটার বরাবরই ব্যবহারকারী নির্ভর কার্যপ্রণালীর উপর জোর দিয়েছে। পাশাপাশি ‘বার্ডওয়াচ’ নামে নতুন একটি ফিচার নিয়েও কাজ করছে মাইক্রোব্লগিং সাইটটি। নিবন্ধিত ব্যবহারকারীরা এই ফিচার কাজে লাগিয়ে টুইটের সঙ্গে নোট এবং বাড়তি তথ্য জুড়ে দিতে পারবেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক