বেলারুশ: গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে হাজার পুলিশের ডেটা ফাঁস

এক হাজার বেলারুশ পুলিশের ব্যক্তিগত ডেটা ফাঁস করে দিয়েছে অজ্ঞাতনামা হ্যাকাররা। বেলারুশে চলছে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ, প্রতিবাদকারীদের গ্রেপ্তার করছে পুলিশ। সেটারই জবাব এলো ডেটা ফাঁসের মধ্য দিয়ে।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 20 Sept 2020, 01:53 PM
Updated : 20 Sept 2020, 01:53 PM

“গ্রেপ্তার অব্যাহত থাকার সময়টিতে আমরাও বড় আকারে ডেটা প্রকাশ অব্যাহত রাখবো।”  -- বিবৃতি এসেছে হ্যাকারদের কাছ থেকে। বিবৃতিটি বিরোধী পক্ষের সংবাদ চ্যানেল নেক্সটা লাইভে ছাড়া হয়েছে বলে প্রতিবেদনে জানিয়েছে রয়টার্স। নেক্সটা লাইভ চ্যানেলটি মেসেজিং অ্যাপ টেলিগ্রামে সক্রিয়।

“কেউ আর অজ্ঞাতনামা থাকবেন না, এমনকি ‘বালেক্লাভার’ নিচে থাকলেও।” – হুমকিতে বলেছে হ্যাকাররা। ‘বালেক্লাভা’ হচ্ছে বিশেষ এক ধরনের মাস্ক যেটি পরলে কেবল চোখের অংশটুকু বের হয়ে থাকে। স্কি মাস্কের সঙ্গে মিল রয়েছে এর।

বেলারুশের সরকার বলছে, হ্যাকিংয়ের সঙ্গে জড়িতদের খুঁজে বের করে ডেটা ফাঁসের জন্য শাস্তি দেওয়া হবে। শনিবার টেলিগ্রাম চ্যানেলে বিস্তৃত পরিসরে ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে সরকারের ওই বার্তা।

দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ওলগা কেমোদানোভা বলেছেন, “কর্তৃপক্ষের কাছে যে শক্তি ও প্রযুক্তি রয়েছে তা দিয়ে ইন্টারনেটে ডেটা ফাঁসের সঙ্গে জড়িত অধিকাংশকে চিহ্নিত করা এবং শাস্তির আওতায় আনা সম্ভব।”

রয়টার্স লিখেছে, বেলারুশে প্রেসিডেন্ট আলেক্সান্ডার লুকাশেঙ্কার বিরুদ্ধে প্রতিবাদে নেমেছেন জনসাধারণ। গত মাসে বেলারুশের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে ব্যাপক ব্যবধানে জয় লাভ করেন তিনি। তারপর তার বিরুদ্ধে নির্বাচন কারুচপির অভিযোগ আনে বিরোধী পক্ষ। বেলারুশের আইন প্রয়োগকারী শক্তি এ মুহূর্তে লুকাশেঙ্কার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়।

বিক্ষোভ সামাল দেওয়ার নামে হাজারো মানুষকে হেফাজতে নিয়েছে বেলারুশের নিরাপত্তা সংস্থাগুলো। দেশটির সরকারের দেওয়া তথ্য অনুসারে, শনিবারের লুকাশেঙ্কা বিরোধী বিক্ষোভে অংশ নেওয়ার জন্য ৩৯০ জন নারীকে হেফাজতে নেওয়া হয়েছিল, পরে তাদের অধিকাংশকেই ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক