ভেনেজুয়েলার ভার্চুয়াল মুদ্রা উন্মোচন

দেশের অর্থনৈতিক সংকটকে সহজ করতে নতুন একটি ভার্চুয়াল মুদ্রা আনার ঘোষণা দিয়েছেন ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 Dec 2017, 12:09 PM
Updated : 4 Dec 2017, 12:26 PM

মাদুরো বলেন, ভেনেজুয়েলার সম্পদ তেল, গ্যাস, সোনা আর হীরার সমর্থনে ‘পেট্রো’ নামের নতুন ভার্চুয়াল মুদ্রা আনা হচ্ছে। 

যদিও এই পরিকল্পনা নিয়ে দেশটির বিরোধীদলীয় সংসদ সদস্যরা নিন্দা জানিয়েছেন বলে উল্লেখ করা হয় বিবিসি’র প্রতিবেদনে।

তেল থেকে আয়ে ধ্বস নামায় আর বর্তমানে প্রচলিত মুদ্রার দাম একদম নিচে পড়ে যাওয়ায় ধাক্কা খেয়েছে ভেনেজুয়লার অর্থনীতি।

এমন পরিস্থিতিতে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধেও তিরস্কার জানিয়েছেন মাদুরো। তিনি এই নিষেধাজ্ঞাকে ‘অবরোধ’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন।

রোববার দেশটির টেলিভিশনে সম্প্রচারিত ঘোষণায় মাদুরো বলেন, নতুন এই ক্রিপ্টোকারেন্সি ভেনেজুয়েলাকে “আর্থিক অবরোধ কাটিয়ে উঠতে, আর্থিক লেনদেন তৈরিতে আর আর্থিক সার্বভৌমত্বের ক্ষেত্রে থাকা সমস্যাগুলো পার করতে” সহায়তা করবে।

সমর্থকদের উল্লাসের প্রতি তিনি বলেন, “একবিংশ শতাব্দী এসে গেছে।”  

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের এক নিয়ন্ত্রক সংস্থা বলেছে, তারা প্রচলিত পন্থায় আর্থিক সেবাদাতা দুই প্রতিষ্ঠানকে বিটকয়েন সম্পর্কিত আর্থিক চুক্তি করতে দেবে। যদিও এই ডিজিটাল মুদ্রা নিয়ে থাকা ঝুঁকি এখনও রয়েই গেছে। 

বিদেশি ঋণদাতাদের কাছে ভেনেজুয়ালর ঋণের পরিমাণ আনুমানিক ১৪ হাজার কোটি মার্কিন ডলার। দেশের ঋণের এই অবস্থা নতুন করে সাজাতে পেট্রো’র মাধ্যমে এই ঋণ শোধ করতে চাচ্ছেন মাদুরো, এমনটাই মত মাদুরো’র। 

অন্যদিকে, দেশটির বিরোধীদলীয় সংসদ সদস্যদের দাবি, প্রস্তাবিত এই মুদ্রা আনতে কংগ্রেসের সমর্থন লাগবে। এটি কখনও হবে কিনা তা নিয়েও সন্দেহ প্রকাশ করেছেন তাদের মধ্যে কেউ কেউ। 

“মাদুরো ভাঁড়ে পরিণত হচ্ছেন। এর কোনো নির্ভরযোগ্যতা নেই”- রয়টার্স-এর কাছে এমন মন্তব্য করেন বিরোধী দলীয় সংসদ সদস্য আর অর্থনীতিবিদ অ্যাঞ্জেল আলভারাদো।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক