সফটওয়্যারে আয় বাড়ছে ব্ল্যাকবেরি’র

টানা ষষ্ঠ প্রান্তিকে প্রত্যাশার চেয়ে বেশি আয় হয়েছে বলে জানিয়েছে কানাডীয় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান ব্ল্যাকবেরি। উচ্চ লাভের সফটওয়্যার ব্যবসায়ের দিকে চলে আসার পর স্মার্টফোন ব্যবসায়ের পথিকৃত এই প্রতিষ্ঠানটি আয় বৃদ্ধির এমন তথ্য প্রকাশ করেছে।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 1 April 2017, 12:39 PM
Updated : 1 April 2017, 12:39 PM

শুক্রবার কানাডীয় প্রতিষ্ঠানটি জানায়, তারা টানা দ্বিতীয় বছরেও লাভের প্রত্যাশাকরছে। শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিষ্ঠানটির প্রতি শেয়ার মূল্য সাড়ে ১১ শতাংশ বেড়ে৭.৭৫ ডলারে পৌঁছায়, আর নিজ দেশে অংকটা ১১ শতাংশ বেড়ে ১০.৩০ কানাডীয় ডলার হয় বলে জানিয়েছেরয়টার্স।

এক সময় স্মার্টফোন ব্যবসায় আধিপত্য বজার রাখা ব্ল্যাকবেরি পুরো টাচস্ক্রিনেরস্মার্টফোনগুলো সঙ্গে পাল্লা দিতে ব্যর্থ হওয়ার পর সফটওয়্যার বাজারে একটি টেকসই ব্যবসায়তৈরির দিকে নজর দিয়েছে।  

২০১৬ সালে প্রতিষ্ঠানটি তৃতীয় পক্ষের প্রতিষ্ঠান থেকে তাদের ব্র্যান্ডের স্মার্টফোনবানানো শুরু করে। এ ক্ষেত্রে তারা ইন্দোনেশিয়ার বিবি মেরাহ পুতিহ-এর সঙ্গে নতুন ব্ল্যাকবেরিব্র্যান্ডের ডিভাইস তৈরি ও বাজারজাত নিয়ে চুক্তি করে। সেইসঙ্গে চীনের টিএলসি আর ভারতেরঅপটিমাস ইনফ্রাকম লিমিটেড-এর সঙ্গেও চুক্তি করে ব্ল্যাকবেরি।

ব্ল্যাকবেরির সফটওয়্যার ও সেবা খাতের মধ্যে মোবাইল ডিভাইস ব্যবস্থাপনা পণ্যআর শিল্পখাতে ব্যবহৃত কিউএনএক্স অপারেটিং সিস্টেম রয়েছে। এ খাত থেকে প্রতিষ্ঠানটিরবাড়তি যোগ হওয়া আয়ের পরিমাণ চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতে শেষ হওয়া প্রান্তিকে ১২.২ শতাংশবেড়ে ১৯ কোটি ৩০ লাখ ডলার হয়েছে। 

স্বচালিত গাড়ি শিল্পে কিউএনএক্স ব্ল্যাকবেরি’র একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রচেষ্টা।ইতোমধ্যে একটি স্বয়ংক্রিয় গাড়ি চালনা সফটওয়্যার বানানো নিয়ে গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানফোর্ড-এর সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

সংযোজিত হিসাব অনুযায়ী ব্ল্যাকবেরির সর্বশেষ অর্থবছরের শেষ প্রান্তিকে মোটআয় ছিল ২৯ কোটি ৭০ লাখ ডলার, যা বিশ্লেষকদের প্রত্যাশা করা ২৮ কোটি ৩০ লাখ ডলারকে ছাড়িয়েগেছে।

ওই প্রান্তিকে প্রতিষ্ঠানটির মোট লাভ ৬০.১ শতাংশ বেড়েছে, আগের বছর এই হারছিল ৪৩.৩ শতাংশ। এই প্রান্তিকে প্রতিষ্ঠানটি সাড়ে তিন হাজারেরও বেশি এন্টারপ্রাইজ গ্রাহকেরঅর্ডার পেয়েছে, যা তৃতীয় প্রান্তিকের তুলনায় ১৬.৭ শতাংশ বেশি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক