অ্যামাজনে স্ন্যাপ-এর শত কোটি

মার্কিন ই-কমার্স জায়ান্ট অ্যামাজন-এর ক্লাউড সেবায় ১০০ কোটি মার্কিন ডলার খরচের কথা জানিয়েছে স্ন্যাপ। সামনের পাঁচ বছরে এই অর্থ ব্যায়ের আশা করছে ছবি শেয়ারিং ও মেসেজিং অ্যাপ স্ন্যাপচ্যাট-এর মালিক প্রতিষ্ঠানটি।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 10 Feb 2017, 09:45 AM
Updated : 10 Feb 2017, 09:45 AM

ইতোমধ্যেই গুগলের সঙ্গে ২০০ কোটি মার্কিন ডলারের ক্লাউড চুক্তি রয়েছে স্ন্যাপ-এর। এবার অ্যামাজনের সঙ্গেও চুক্তিতে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। শেষ পর্যন্ত হয়ত পুরোপুরি নিজস্ব সেবা অবকাঠামোর জন্যই বিনিয়োগ করবে স্ন্যাপ, জানিয়েছে রয়টার্স।

চলতি বছরের মার্চে শেয়ার বাজারে প্রবেশ করতে জমা দেওয়া নথিতে সংশোধন আনার সময় বৃহস্পতিবার অ্যামাজনের ক্লাউড সেবায় অর্থ ব্যায়ের কথা জানায় প্রতিষ্ঠানটি।

শেয়ার বাজারে এলে স্ন্যাপ-এর বাজার মূল্য হতে পারে দুই থেকে আড়াই হাজার কোটি মার্কিন ডলার। ফলে ফেইসবুকের পর এটিই হতে পারে সবচেয়ে বেশি বাজার মূল্যের মার্কিন প্রযুক্তি আইপিও।

নথিতে উত্তর আমেরিকা এবং ইউরোপ অঞ্চলের ব্যবহারকারীদের অভ্যাসের কথাও উল্লেখ করেছে স্ন্যাপ। এই দুই অঞ্চলের বাইরে ধীর এবং খরুচে সেলুলার নেটওয়ার্কের কারণে তাদের অ্যাপের ব্যবহার সীমিত হয়ে পড়ছে। প্রতিষ্ঠানটি জানায় তাদের অ্যাপে বেশি ব্যান্ডউইথ প্রয়োজন।

নথিতে স্ন্যাপ-এর পক্ষ থেকে বলা হয়, “কম স্ন্যাপস এবং চ্যাট পাঠানোর মানে বন্ধুদেরকে অ্যাপ্লিকেশনে ফিরে আসতে কম আমন্ত্রণের নোটিফিকেশন এবং এর কারণে দৈনিক ব্যবহার কমে যায় এবং ব্যবহারকারীরা বিক্ষিপ্ত হয়ে পড়েন।”

২০১২ সালে প্রথমবারের মতো চালু হয় স্ন্যাপচ্যাট। এতে ছবি পাঠানো হলে তা কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে গায়েব হয়ে যায়। এখন টুইটার এবং ফেইসবুকের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে এগোচ্ছে অ্যাপটি।

বর্তমানে ১০ কোটির বেশি সক্রিয় গ্রাহক রয়েছে স্ন্যাপচ্যাট-এর। যার মধ্যে ৬০ শতাংশ গ্রাহকের বয়স ১৩ থেকে ২৪ বছরের মধ্যে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক