এআই: হকিং, মাস্ক-এর বিপরীতে জাকারবার্গ

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার বিষয়ে নিজের অবস্থান ব্যাখ্যা করেছেন বশ্বের সবচেয়ে বড় সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেইসবুক প্রধান মার্ক জাকারবার্গ। "অনেকগুলো ভিন্ন দিক থেকে এটি অনেক সম্ভাবনা খুলে দিচ্ছে" বলে মত দিয়েছেন তিনি।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 19 August 2016, 02:16 PM
Updated : 19 August 2016, 02:16 PM

‘হাও টু বিল্ড দ্য ফিউচার’ নামের এক ভিডিও সিরিজে কথা বলা সময়তিনি জানান, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা-কে একটি বিপজ্জনক প্রযুক্তিগত উন্নয়ন হিসেবে দেখাউচিত নয়। বরং, একে তিনি একটি টুল হিসেবে দেখেন যা জীবন বাঁচাতে সহায়তা করবে।এক্ষেত্রে তিনি রোগ নির্ণয়, রোগ প্রতিকারে উন্নত ওষুধ বের করা আর আগের চেয়ে নিরাপদস্ব-চালিত গাড়ির সিস্টেমে এর ব্যবহারের কথা উল্লেখ করেন বলে জানিয়েছে ব্রিটিশট্যাবলয়েড মিরর।

ওই সাক্ষাৎকারে জাকারবার্গ বলেন, "আমি এই সম্মেলনে সম্প্রতি একটিকাহিনী শুনেছি যে- কেউ একজন এমন একটি মেশিন লার্নিং অ্যাপ্লিকেশন বানিয়েছে, যা দিয়ে কারও ত্বকে কোনো ক্ষত থাকলেতার ছবি নেওয়া যাবে আর ওই ক্ষত ক্যান্সার কি না তা এটি বিশ্বের সেরা ত্বক বিশেষজ্ঞও ডাক্তারদের মতো সঠিকভাবে নির্ণয় করতে পারবে।"

"এখন আপনি আপনার ডাক্তারকে বিশ্বের সবচেয়ে ভালো ডাক্তারহতে তার হাতে এমন ক্ষমতা দিতে সক্ষম। প্রত্যেকেই বিশ্বের সেরা ডাক্তার হবেন আর এটিআসলেই একটি মৌলিক বিষয়"- বলেন তিনি।

জাকারবার্গ এআই নিয়ে কাজ করার জন্য সুপরিচিত। ইতোমধ্যে এইপ্রযুক্তি ফেইসবুকের ফিল্টার ব্যবস্থায় ভালভাবেই ব্যবহৃত হচ্ছে। এর মাধ্যমেব্যবহারকারীদের জন্য আগের চেয়ে বেশি উপযুক্ত কনটেন্ট আর তারা খবর রাখতে চান এমনমানুষদের প্রদর্শন করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে ২০১৫ সালে একটি এআই সহযোগী বানাতেও কাজকরেন তিনি। এই সহযোগী তাকে তার বাসা নিয়ন্ত্রণ করতে সহায়তা করবে, এমনকি সহায়তাকরবে তার নাশতা বানাতেও।

অন্যদিকে, এআই সবসময়ের জন্য ভালো হবে, এমন ধারণা যে সবাই পোষণকরেন তাও নয়। একদিন এআই মানবজাতি ধ্বংস করে দিতে পারে বলে সতর্ক করেছেন ব্রিটিশতাত্ত্বিক পদার্থবিদ ও মহাকাশবিদ স্টিফেন হকিং।

হকিং তার ব্যাখ্যায় বলেন, "একবার যখন যন্ত্র এমন জায়গায়পৌঁছে যাবে যে, তারা নিজেরাই তাদের বিবর্তন ঘটাতে পারবে, তখন তাদের লক্ষ্য আরআমাদের লক্ষ্য একই হবে এমনটা আমরা আগে থেকেই বলতে পারি না। মানবজাতি অপেক্ষা এআইআরও দ্রুত বিবর্তনের সম্ভাবনা রাখে।"

অনেকটা একই ধরনের আশংকা প্রকাশ করেছেন নানা উদ্ভাবনী ধারণাদিয়ে সুপরিচিত হয়ে উঠা প্রযুক্তিবিদ ও বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাতা মার্কিন প্রতিষ্ঠানটেসলা আর মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান স্পেসএক্স প্রধান ইলন মাস্কও। এআই খাতেউন্নয়নকে ‘দানব ডেকে আনা’র সঙ্গে তুলনা করেছেন তিনি।

এ দিকে, মাস্ক আর হকিংয়ের এমন উদ্বেগ-কে কানে নেননিজাকারবার্গ। তিনি বলেন, "আমি কিছুটা হতাশ হয়ে পড়ি, যখন দেখি মানুষ এআই আর এটিকীভাবে মানুষকে অযথা ভয় পায় আর এটি কীভাবে মানুষের ক্ষতিগ্রস্থ হওয়া শেষ করে দেয়,কারণ রোগ সম্পর্কিত আর আরও নিরাপদের গাড়ি চালানোর মতো অনেক বাস্তব পথে এর কিছুউপায় আছে বলে আমার ধারণা। আমি বলতে চাই, এটি মানুষের জীবন বাঁচাতে আর অনেক মানুষকেসামনে এগিয়ে দিতে যাচ্ছে।"

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক