বাজার শঙ্কায় আইফোন এসই

চলতি বছরের ২১ মার্চ পর্দা উঠে মার্কিন টেক জায়ান্ট অ্যাপলের পণ্য উন্মোচন অনুষ্ঠান স্পেশাল অ্যাপল ইভেন্ট’-এর। এই ইভেন্টকে কেন্দ্র করে নানা ধরনের সমালোচনা ও গুজব চলে আসছে অনেকদিন ধরেই। বাস্তবে সেইসব গুজবের প্রায় সম্পুর্ণটাই মিলে গেছে এই অনুষ্ঠানে।

ফুয়াদ তানভীর অমিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 22 March 2016, 08:34 PM
Updated : 22 March 2016, 08:34 PM

এই ইভেন্টের প্রধান আকর্ষণ ছিল আইফোনের নতুন সংস্করণ আইফোন এসই। অপেক্ষাকৃত কম মূল্যের এই ফোনটি দেখতে যেন আইফোন ৫এস-এর আকারে আইফোন ৫এস। দামে কিছুটা সস্তা হলেও কার্যক্ষমতায় এটি আইফোন ৬ এর সমান বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

যারা সাধারণত ছোট আকারের ফোন ব্যবহার করতে ভালোবাসে মূলত তাদের কথা চিন্তা করেই এই আইফোনটি তৈরি করেছে অ্যাপল। আর সেক্ষেত্রে চীনের বাজারকেই প্রধান লক্ষ্য হিসেবে ধরেছে প্রতিষ্ঠানটি। ওই অনুষ্ঠানে আইফোনের মার্কেটিং ভাইস প্রেসিডেন্ট গ্রেগ জোসওয়াইক জানান যারা প্রথমবার আইফোন ব্যবহার করছে তাদের কাছে এখনো ৪ ইঞ্চি পর্দার ফোনগুলোই বেশি জনপ্রিয়। তাই ছোট আকারের আইফোন এসই ও গ্রাহকের চাহিদা মেটাতে পারবে বলে আশা করছেন তিনি।

চীনকে আইফোনের দ্বিতীয় বৃহত্তম বাজার ধরা হয়। আর ভারতকে সেক্ষেত্রে ধরা হয় দ্রুত বর্ধনশীল স্মার্টফোন বাজার হিসেবে। কিন্তু ভারতে বেশিরভাগ স্মার্টফোন ব্যবহারকারী ল্যাপটপ বা ট্যবের পরিবর্তে স্মার্টফোন ব্যবহার করে। সেক্ষেত্রে পর্দা বড় হলেই তাদের সুবিধা।

ভারতের প্রযুক্তিবিষয়ক গবেষণা প্রতিষ্ঠান কাউন্টারপয়েন্টের গবেষণা পরিচালক আনশুল গুপ্তা বলেন, “নিম্নমানের ১০০ মার্কিন ডলারের ফোনগুলোও সাধারণত ৫ ইঞ্চি পর্দার হয়।” সেক্ষেত্রে ভারতে অ্যাপল এসই এর বাজার নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

গত বছরের ডিসেম্বরে ভারতে ৪ ইঞ্চি পর্দার ফোন বিক্রির হার ছিল ১০ শতাংশ। আর সেখানে অ্যাপলের পণ্য ছিল ২ শতাংশ। আর দেশটিতে ১৫০ ডলারের কম দামের ফোন বিক্রির হার ৭০ শতাংশ। সেখানে আইফোন এসই এর মূল্য ৪০০ ডলার।

সবমিলিয়ে তাই আইফোন এসই এর বাজার নিয়ে এখন সংশয় প্রকাশ করছেন প্রযুক্তি গবেষকেরা।