মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক গেইম ‘হিরোজ অব ৭১’ এ বিপুল সাড়া

ইন্টারনেটে মুক্তির প্রথম দিনই বাংলাদেশি কম্পিউটার গেইমপ্রেমীদের বিপুল সাড়া পেয়েছে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক ‘হিরোজ অব ৭১’।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 Dec 2015, 01:03 PM
Updated : 17 Dec 2015, 03:04 AM

গুগল প্লে স্টোরের তথ্যানুযায়ী, মুক্তির প্রথম দিন থেকে বুধবার দুপুর পর্যন্ত ৭ হাজার ২০৯ বার ডাউনলোড করা হয়েছে গেইমটি।

১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে মুক্তিবাহিনী ও পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর যুদ্ধকে অবলম্বন করে এই গেইমটি প্রস্তুত করা হয়েছে বলে জানিয়েছে নির্মাতা প্রতিষ্ঠান পোর্টব্লিস।

গেইমটি জনপ্রিয় হয়ে ওঠার কারণ হিসেব কম্পিউটার গেইমপ্রেমী আকিব হোসেন বলেন, “নতুন গেইম খেলার একটা আনন্দ তো আছেই, কিন্তু তারচেয়েও বেশি যেটা- একটা অনুভূতি, একটা সংগ্রামের চেতনা। এই গেইমটা খেলার পর থেকে কেমন যেন আবেগ আপ্লুত হয়ে উঠছি। আমাদের সূর্যসন্তানদের লড়াই এর চেতনা মনে করিয়ে দেয় এই গেইম।”

১৯৭১ সালে মুক্তিবাহিনীর গেরিলা গ্রুপ ‘সামসু বাহিনীর’ সঙ্গে মধুমতি নদীর তীরে শনির চরে হানাদার বাহিনীর লড়াইকে উপজীব্য করে প্রস্তুত করা হয়েছে ‘হিরোজ অব ৭১’। শনির চর থেকে শুরু করে বরিশাল বিজয় পর্যন্ত এটি বিস্তৃত।

আকিব হোসেন বলেন, “আমরা গোলাগুলির যেসব গেইম খেলি, তা সবই পাশ্চাত্য প্রেক্ষাপট, কাহিনী ভিত্তিক। আমি সবসময়ই চাইতাম এমন একটা গেইম যার মূল ভিত্তি হবে আমার দেশের গৌরব, আমাদের রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধ। আমি খুবই খুশি, যে আজ আমার সেই চাওয়া পূরণ হল।”

বিজয় দিবসের কয়েকদিন আগে মুক্তিপ্রাপ্ত এই থার্ড শুটার গেইমটি বাংলাদেশি গেইমপ্রেমীদের কাছে ৪.৯ রেটিং পেয়েছে।

তবে গেইমপ্রেমী রেজা মাহমুদের মতে, এর জনপ্রিয়তার কারণ শুধু হানাদার বাহিনীর সঙ্গে যুদ্ধ নয়।

“এটা আসলে আমাদের মুক্তিযোদ্ধাদের সাহসিকতার গাথা। যে কারণে আমরা তাদেরকে অবনত মস্তকে শ্রদ্ধা জানাই।”

“এতদিন পর্যন্ত আমাদের গৌরবের ইতিহাস জানতাম আমরা, এখন সময় এসেছে আমাদের দেশের এই সূর্যসন্তানদের প্রতি বিশ্ববাসীর শ্রদ্ধা প্রদর্শনের।”

গেইমপ্রেমীদের আশা, অদূর ভবিষ্যতে আরও উন্নত হবে এই গেইমটি।