নিয়ন্ত্রক সংস্থার পদক্ষেপে সূচক ঊর্ধ্বমুখী

অস্থির বিশ্ববাজারের ধাক্কা সামলাতে নতুন সার্কিট ব্রেকার চালুসহ নিয়ন্ত্রক সংস্থার দুই সিদ্ধান্তে ঊর্ধ্বমুখী সূচক নিয়ে লেনদেন চলছে দেশের পুঁজিবাজারে।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 9 March 2022, 05:59 AM
Updated : 9 March 2022, 05:59 AM

সপ্তাহের চতুর্থ দিন বুধবার প্রথম দেড় ঘণ্টায় ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান সূচক এগিয়েছে ৭৪ পয়েন্ট।

সকারে লেনদেনের শুরুতে ডিএসইএক্স ছিল ৬ হাজার ৪৭৪ দশমিক ২৯ পয়েন্টে। ৫০ মিনিটের মাথায় তা আগের দিনের চেয়ে ৯২ দশমিক ৮৭ পয়েন্ট বেড়ে ৬ হাজার ৫৬৭ পয়েন্টে পৌঁছায়।

এরপর সামান্য নেমে এলেও মোটামুটি স্থিতিশীল অবস্থায় এগোতে থাকে ঢাকার বাজারের প্রধান সূচক। বেলা ১১টা ৩৪ মিনিটে ডিএসইএক্স ছিল ৬ হাজার ৫৪৮ দশমিক ৮৮ পয়েন্টে, যা আগের দিনের চেয়ে ৭৪ পয়েন্ট বা ১.১৫ শতাংশ বেশি।

ইউক্রেইনে যুদ্ধের জেরে বিশ্ববাজারে অস্থিরতার প্রভাবে গত কয়েক দিন ধরে টানা দরপতন হচ্ছিল দেশের পুঁজিবাজারে। যুদ্ধ শুরুর পর থেকে প্রায় ৫০০ পয়েন্ট হারায় দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ডিএসই।

আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম ২০০৮ সালের পর সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছে গেলে ১১ মাসের মধ্যে সবচেয়ে বড় পতন দেখে ডিএসই। মঙ্গলবারও সেই ধারা চলতে থাকলে পতন ঠেকাতে উদ্যোগী হয় পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা-বিএসইসি।

সেকেন্ডারি মার্কেটে তারল্য প্রবাহ বাড়াতে বিএসইসি গঠিত পুঁজিবাজার স্থিতিশীলতা তহবিল (সিএমএসএফ) থেকে ১০০ কোটি টাকা দ্রুত বিনিয়োগের নির্দেশ দেয় নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

পাশাপাশি বুধবার থেকে নিম্নমুখী সার্কিট ব্রেকার ২ শতাংশ করার কথা বলা হয়।অর্থাৎ, কোনো শেয়ারের দর কমতে পারবে সর্বোচ্চ ২ শতাংশ। তবে আগের মতোই একদিনে দর বাড়তে পারবে সর্বোচ্চ ১০ শতাংশ।

এই দুই উদ্যোগে মঙ্গলবার ঘুরে দাঁড়ায় দেশের পুঁজিবাজার। ডিএসইএক্স দিন শেষ করে আগের দিনের চেয়ে ১১৮ পয়েন্ট বেশি নিয়ে। বুধবারও সেই ধারা চলছে।

বুধবার বেলা পৌনে ১২টা পর্যন্ত ঢাকার বাজারে ২৭০ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

ওই সময় পর্যন্ত হাতবদল হওয়া ৩৭৫টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিটের মধ্যে ৩২১টির দর বাড়ে, ২৩টির কমে এবং ৩১টির দর অপরিবর্তিত থাকে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক