উৎপাদনে যাচ্ছে এমারেল্ড অয়েল, ৬ মাসে শেয়ারদর বেড়েছে ৩ গুণ

বেশ কিছুদিন থেকে গুঞ্জনের মধ্যে শেয়ারদর বাড়তে থাকা বন্ধ কোম্পানি এমারেল্ড অয়েল উৎপাদনে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 12 July 2021, 07:02 PM
Updated : 12 July 2021, 07:02 PM

সোমবার পুঁজিবাজারে খাদ্য খাতে তালিকাভুক্ত কোম্পানিটি চলতি বছরের ১ সেপ্টেম্বর থেকে উৎপাদন শুরু করবে বলে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের ওয়েবসাইটে জানিয়েছে।

কোম্পানিটি আরও জানিয়েছে, মিনোরি বাংলাদেশের পরিচালক মো: আফজাল হোসেন এমারেল্ড অয়েলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

২০১৪ সালে দেশের পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত জামালপুরে অবস্থিত কোম্পানিটির কার্যক্রম গত চার বছর ধরে বন্ধ আছে।

সম্প্রতি এটি চালুর জন্য জাপানি কোম্পানি মিনোরি বিনিয়োগ করতে যাচ্ছে এমন গুঞ্জনে গত ছয় মাসে কোম্পানিটির শেয়ারদর তিনগুণের বেশি বেড়েছে।

চলতি বছরের ১৪ জানুয়ারি এমারেল্ড অয়েলের শেয়ারদর ছিল ১১ টাকা, যা সোমবার সর্বশেষ লেনদেন হয়েছে ৩৪ টাকা ৪০ পয়সায়।

ডিএসইর ওয়েবসাইটে সোমবার কোম্পানিটি জানিয়েছে, ১ সেপ্টেম্বর থেকে তারা প্রতিদিন ৩৩০ মেট্রিক টন চালের ভুষি বা রাইস ব্র্যান থেকে ৪৮ মেট্রিক টন রাইস ব্র্যান অয়েল এবং ২৮২ মেট্রিক টন ডিওআরবি তৈরি করবে।

চালের ভুষি থেকে তেল বের করে ফেলার পর অনেকটা উপজাত হিসেবে ডিওআরবি থাকে, যা মাছের বা মুরগির খাদ্য হিসেবে ব্যবহার করা যায়।

পুঁজিবাজরে তালিকাভুক্তির তিন বছর পরই কোম্পানিটির তৎকালীন ব্যবস্থাপনা পরিচালক বেসিক ব্যাংক ঋণ কেলেঙ্কারি জড়িয়ে জেলে যান। পরে জামিন নিয়ে দেশের বাইরে চলে গেছেন।

চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতে বর্তমান পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা এমারেল্ড অয়েল চালু করতে পর্ষদ ভেঙে দিয়ে নতুন করে পরিচালক নিয়োগ দেয়।

এরপর চলতি মাসে খবর আসে মিনোরি বাংলাদেশ জাপানি বিনিয়োগের একটি কোম্পানি এমারেল্ড অয়েলের শেয়ার কিনে মালিকানা নিয়েছে।

মিনোরি বাংলাদেশের পক্ষ থেকে পরিচালক আফজাল হোসেনকে এমারেল্ড অয়েলের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

নতুন ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোমবার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “আমাদের কোম্পানি এমারেল্ড অয়েলকে কিনে নেওয়ার প্রক্রিয়ায় আছে। এতে ৫০ কোটি টাকার মত খরচ হবে অর্থাৎ এমারেল্ড অয়েলে বিনিয়োগ হবে। তবে এখনও কিছু কাজ বাকি আছে।“

তিনি আরও বলেন, “আমরা প্রাথমিক কিছু সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সামনের দুই মাস ঠিকমত কাজ করতে পারি তাহলে ১ সেপ্টেম্বরের দিকে উৎপাদনে যেতে পারব।”

তিনি জানান, চালুর পর এই কারখানায় উৎপাদিত তেলের ৮০ শতাংশ জাপানে রপ্তানি করার হবে। রপ্তানি করার সক্ষমতা আছে বলেই এই কোম্পানি কেনার প্রক্রিয়া চলছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

পুঁজিবাজারে কোম্পানিটির ৫৯ কোটি ৭১ লাখ ৩ হাজার ৫০০টি শেয়ার আছে। এর মধ্যে ৩৮ দশমিক ২৬ শতাংশ আছে পরিচালকদের হাতে।

প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের হাতে আছে ১২ দশমিক ৪১ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে ৪৯ দশমিক ৩৩ শতাংশ শেয়ার আছে।

এমারেল্ড অয়েল এর বর্তমান বাজার মূলধন ১৯২ কোটি ২৭ লাখ টাকা। কোম্পানির পরিশোধিত মূলধন ৫৯ কোটি ৭১ লাখ টাকা।  

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক