• দুই ম্যাচে তিন পেনাল্টি গোল মানের, সেনেগালের জয়
    আফ্রিকান কাপ অফ নেশন্সের কোয়ালিফায়ারে সাদিও মানের গোল উৎসব ও পেনাল্টি ঝলক চলছেই। আগের ম্যাচে পেনাল্টি থেকে দুটি গোল করার পর এবার রুয়ান্ডার বিপক্ষে তার শেষ সময়ের পেনাল্টি গোলে জিতেছে সেনেগাল।
  • দেশের মানুষের কথা শুনে লিভারপুল ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেবেন মানে
    সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনুসারীদের মন্তব্যে চোখ রাখতে চান না অনেক তারকাই। কত ধরনের কথাই তো লোকে বলে। তবে সাদিও মানে করতে যাচ্ছেন উল্টোটা। জীবনের বড় এক সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছেন তিনি সামাজিক মাধ্যমে দেশের মানুষের মন্তব্য দেখেই!
  • টাইব্রেকারে আবারও মিশরের আশা গুঁড়িয়ে বিশ্বকাপে সেনেগাল
    মাস দুয়েক আগে টাইব্রেকারে হেরে আফ্রিকান নেশন্স কাপ থেকে খালি হাতে ফিরতে হয়েছিল মিশরকে। আবারও সেই একই প্রতিপক্ষ, একইরকম পেনাল্টি শুটআউট। কিন্তু ভাগ্য বদলাল না তাদের। পুরনো ক্ষতে প্রলেপ দিতে পারলেন না মোহামেদ সালাহ ও তার সতীর্থরা। ১২ গজ দূর থেকে জালে বল পাঠালেন সাদিও মানে। কাতার বিশ্বকাপের টিকেট নিশ্চিত করার আনন্দে ভাসল সেনেগাল।
  • সেনেগালের ইতিহাস সেরা র‍্যাঙ্কিং, আর্জেন্টিনার উন্নতি
    প্রথমবারের মতো আফ্রিকান নেশন্স কাপ জিতে ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে নিজেদের ইতিহাস সেরা অবস্থানে জায়গা করে নিয়েছে সেনেগাল। উন্নতি হয়েছে সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনারও।
  • ‘জিরো’ থেকে ‘হিরো’ মঁদির গল্প
    আট বছর আগের কথা। দল হারিয়ে কঠিন বাস্তবতার মুখোমুখি এদুয়াঁ মঁদি। একটা বছর পার করতে হয় ‘বেকার জীবন।’ তার ফুটবল ক্যারিয়ার নিয়েই জাগে শঙ্কা। সেখান থেকে নাটকীয় পট পরিবর্তনে ধীরে ধীরে খুঁজে পান আলোর রেখা। ফেলে আসা সেই সময়ের পর তার গত এক বছরের অবিশ্বাস্য সব সাফল্য যেন রূপকথাকেও হার মানায়।
  • এই দিন, এই ট্রফি আমার জীবনের সেরা: মানে
    প্রিমিয়ার লিগে লিভারপুলের তিন দশকের শিরোপা খরা দূর করার নায়কদের একজন তিনি। দলটির হয়ে জিতেছেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগও। তবে দেশের হয়ে ছিল না কোনো অর্জন। আফ্রিকান নেশন্স কাপ জয়ের মধ্য দিয়ে অবশেষে সেই শূন্যতা ঘুচল। সাদিও মানের কাছের দিনটি তাই জীবনের সেরা। আর এই সাফল্য? বললেন, নিশ্চিতভাবেই তার ক্যারিয়ারের সেরা অর্জন।
  • শ্রেষ্ঠত্বের চূড়ায় উঠে উন্মাতাল সেনেগাল
    সাদিও মানের শট গোললাইন পেরিয়ে যেতেই শুরু হয় উৎসব। বাঁধভাঙা উল্লাসে নিজ নিজ জায়গা থেকে শামিল হন খেলোয়াড় থেকে শুরু করে মাঠে থাকা দর্শক আর দেশবাসী। উদযাপনে বাদ ছিলেন না কেউই। অর্জনও তো কম বড় নয়। ছয় দশকের অপেক্ষার মধুর সমাপ্তি ঘটিয়ে মাথায় উঠল আফ্রিকার ফুটবলের মুকুট। আনন্দের জোয়ারে ভেসে যেতে এই যথেষ্ট। মহামারীর কঠিন সময়ে আফ্রিকান নেশন্স কাপের শিরোপা সেনেগালের জন‍্য এলো দ্বিগুণ খুশির উপলক্ষ‍ হয়ে।
  • সেনেগাল কোচের দায়মোচন
    দুই দশক আগে দেশের প্রথম ফাইনালে হারের পেছনে ‘বড় দায়’ ছিল খেলোয়াড় আলিয়ু সিসের। দুই বছর আগে আবারও শিরোপা মঞ্চে উঠে খালি হাতে ফেরে সেনেগাল, এবার ডাগআউটে ছিলেন তিনি। ২০ বছরের হতাশার বৃত্ত ছিড়ে অবশেষে বের হতে পারল দেশটি। আফ্রিকান নেশন্স কাপ জিতিয়ে দলকে সুউচ্চে তোলার আনন্দের পাশাপাশি নিশ্চিতভাবে ‘ভারমুক্ত’ হওয়ার স্বস্তিও কাজ করছে কোচ সিসের মনে।
  • বুরকিনা ফাসোকে হারিয়ে ফাইনালে সেনেগাল
    শক্তি-সামর্থ্যে পিছিয়ে থাকা বুরকিনা ফাসো অনেকটা সময় প্রতিপক্ষকে আটকে রাখল। তবে দ্বিতীয়ার্ধে আর পারল না তারা। প্রত্যাশিত জয়ে আফ্রিকান নেশন্স কাপের ফাইনালে উঠল সেনেগাল।
  • আফ্রিকার বর্ষসেরা লিভারপুলের মানে
    আফ্রিকা মহাদেশের বর্ষসেরা ফুটবলার নির্বাচিত হয়েছেন সেনেগালের ফরোয়ার্ড সাদিও মানে।
  • ব্রাজিলকে রুখে দিল সেনেগাল
    রবের্তো ফিরমিনোর গোলে পাওয়া দারুণ শুরু কাজে লাগাতে পারল না ব্রাজিল। প্রথমার্ধের শেষ দিকে পেনাল্টিতে গোল করে পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের রুখে দিয়েছে সেনেগাল।
  • আফ্রিকার বর্ষসেরার লড়াইয়ে সালাহ, মানে ও আউবামেয়াং
    আফ্রিকা মহাদেশের ২০১৮ সালের বর্ষসেরা ফুটবলারের চূড়ান্ত তালিকায় জায়গা পেয়েছেন মিশরের মোহামেদ সালাহ, সেনেগালের সাদিও মানে ও গ্যাবনের পিয়েরে-এমেরিক আউবামেয়াং।
  • ফিফার কাছে ‘ফেয়ার প্লের’ নিয়ম পুনর্বিবেচনার দাবি সেনেগালের
    জাপানের চেয়ে বেশি হলুদ কার্ড পাওয়ার কারণে রাশিয়া বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্ব থেকে ছিটকে যাওয়ার পর ফিফার কাছে ফেয়ার প্লের নিয়ম পুনর্বিবেচনার দাবি জানিয়েছে সেনেগালের ফুটবল ফেডারেশন (এফএসএফ)।
  • গ্যালারির মুখ: কলম্বিয়া-সেনেগাল
    সেনেগালের বিপক্ষে দলের জয়ে 'ডাবল' আনন্দে মাতলো কলম্বিয়ার সমর্থকরা। শেষ ষোলোয় ওঠার পাশাপাশি 'এইচ' গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হলো দলটি। ছবি: রয়টার্স
  • কলম্বিয়া-সেনেগাল: গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন কলম্বিয়া
    সেনেগালকে হারালেই শেষ ষোলো। ম্যাচটি জিতে 'এইচ' গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে পরের রাউন্ডে উঠল কলম্বিয়া। ছবি: রয়টার্স
  • কার্ডের খাঁড়ায় বাদ সেনেগাল, জিতে শেষ ষোলোতে কলম্বিয়া
    কলম্বিয়া, জাপান আর সেনেগাল- তিন দলের সামনেই ছিল শীর্ষস্থানের হাতছানি। ছিল বাদ পড়ার শঙ্কাও। ইয়েরি মিনার গোলে লক্ষ্য পূরণ হল কলম্বিয়ার। গ্রুপ সেরা হয়ে শেষ ষোলোতে গেল দক্ষিণ আমেরিকার দলটি। কার্ডের খাঁড়ায় বাদ পড়ে গেল সেনেগাল। তাদের চেয়ে ডিসিপ্লিনারি রেকর্ড ভালো থাকায় রানার্সআপ হয়ে নকআউট পর্বে গেল জাপান। 
  • গ্রুপ এইচ: জাপান, সেনেগাল ও কলম্বিয়ার সমীকরণ
    জাপান, সেনেগাল ও কলম্বিয়া এই তিন দলেরই গ্রুপের শীর্ষস্থান পাওয়ার সম্ভাবনা যেমন আছে তেমনি বাদ পড়ারও শঙ্কা আছে।
  • জাপান-সেনেগাল: লড়াই সমানে সমান
    জাপান ও সেনেগালের লড়াইয়ে হারল না কেউই। রোমাঞ্চ ছড়ানো ম্যাচটি ড্রয়ে শেষ হওয়ায় নক-আউট পর্বে যাওয়ার আশা ধরে রাখল উভয় দল। ছবি: রয়টার্স
  • গ্যালারির মুখ: জাপান-সেনেগাল
    ম্যাচের বাঁকে বাঁকে ছিল রোমাঞ্চ। দারুণ ড্রয়ে সেই রোমাঞ্চ ছড়িয়ে গেল দল দুটির সমর্থকদের মাঝেও। ছবি: রয়টার্স
  • রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে সমতায় সেনেগাল-জাপান
    দুইবার এগিয়ে গেল সেনেগাল। দুইবারই সমতা ফেরাল জাপান। জয় দিয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপ শুরু করা দুই দলের রোমাঞ্চকর লড়াই শেষ পর্যন্ত সমতাতেই শেষ হয়েছে।
  • গ্যালারির মুখ: পোল্যান্ড-সেনেগাল
    বিশ্বকাপে ফেরার দিনটাকে রাঙিয়ে রাখতে নানা রঙে সেজে মস্কোর স্পার্তাক স্টেডিয়ামে হাজির হয়েছিল সেনেগাল ও পোল্যান্ডের সমর্থকরা। সমর্থকদের উৎসব বহুগুনে বাড়িয়ে দিয়েছে আফ্রিকার দলটি।  পারেনি ইউরোপের পোল্যান্ড। ছবি: রয়টার্স
  • পোল্যান্ড-সেনেগাল: জয়ে রাঙানো ফেরা
    ২০০২ সালে বিশ্বকাপে অভিষেক আসরে ওই সময়ের শিরোপাধারী ফ্রান্সকে হারিয়ে চমকে দিয়েছিল সেনেগাল। পোল্যান্ডকে হারিয়ে ১৬ বছর পর ফেরাটাও জয়ে রাঙালো আফ্রিকার দেশটি। ছবি: রয়টার্স
  • পোল্যান্ডকে হারিয়ে চমক সেনেগালের
    বিশ্বকাপে ফেরা দুই দলের লড়াইয়ে জিতেছে সেনেগাল। ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে বেশ এগিয়ে থাকা পোল্যান্ডকে হারিয়ে দিয়েছে আফ্রিকার দেশটি।
  • অবসর নেবেন না ভয়ংকর দুর্ঘটনায় পড়া ডেম্বা বা
    চীনের সুপার লিগে প্রতিপক্ষ খেলোয়াড়ের লাথিতে পায়ের হাড় ভেঙে দুই টুকরো হয়ে যাওয়া ডেম্বা বার মনের জোরের কোনো ঘাটতি নেই। ভয়ানক এই চোটে পড়ার পরও অবসর নেবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন সাংহাই শেনহুয়ার এই স্ট্রাইকার।
  • প্রতিপক্ষের লাথিতে ডেম্বা বার পায়ের হাড় দুই টুকরো
    চীনের সুপার লিগে প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়ের লাথিতে ডেম্বা বার পায়ের হাড় ভেঙে দুই টুকরা হয়ে গেছে। সেনেগালের এই স্ট্রাইকারের ক্যারিয়ারই শেষ হয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।