• ফিনিশিং নিয়ে দুর্ভাবনা বাংলাদেশের
    গত সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশের তিন গোলের মধ্যে দুটি ডিফেন্ডার তপু বর্মনের; একটি ফরোয়ার্ড মাহবুবুর রহমান সুফিলের। বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপে লাওসের বিপক্ষে জয়টি এসেছে মিডফিল্ডার বিপলু আহমেদের গোলে। আরও পেছনের ম্যাচে তাকালে ফরোয়ার্ডদের গোল না পাওয়ার পরিসংখ্যান বাড়তেই থাকবে। কোচ জেমি ডের তাই ফরোয়ার্ডদের ‘ফিনিশিং’ নিয়ে দুর্ভাবনা দূর হচ্ছে না মোটেও।
  • আরও গোল না পাওয়ার আক্ষেপ বাংলাদেশ কোচের
    শুরুর একাদশে থাকা তিন ফরোয়ার্ড প্রতিপক্ষের রক্ষণে চাপ অব্যাহত রাখলেও জালের নাগাল পাননি। মিডফিল্ডার বিপলু আহমেদের একমাত্র গোলে আসে স্বস্তির জয়। লাওসকে হারিয়ে বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপে শুভসূচনা করার পর তাই কোচ জেমি ডের কণ্ঠে আরও গোল না পাওয়ার আক্ষেপ।
  • বাংলাদেশের জয়ের তাড়নার প্রশংসায় লাওস কোচ
    ম্যাচ জুড়ে আধিপত্য করা বাংলাদেশের খেলার প্রশংসা করতে ভোলেননি লাওসের কোচ মাইক অং মুন হেং। নিজের শিষ্যদের চেয়ে বিপলু-সুফিলদের জয়ের তাড়না বেশি ছিল বলে ম্যাচ শেষে জানান তিনি।
  • ‘আজ লক্ষ্যই ছিল গোল করার’
    রেফারির গোলের বাঁশি বেজে ওঠার পরই তিনি ছুটলেন দক্ষিণ গ্যালারির দিকে। সটান দাঁড়িয়ে স্যালুট দিলেন। ম্যাচ শেষে বাংলাদেশের জয়ের নায়ক বিপলু আহমেদ জানালেন গ্যালারিতে থাকা পরিবারের সবাই, যারা তাকে ফুটবলার হয়ে ওঠার পথটা মসৃণ করেছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতেই ছুটে গিয়েছিলেন সেখানে।
  • লাওসকে হারিয়ে শুরু বাংলাদেশের
    গ্যালারি ভর্তি দর্শক। হাজারো কণ্ঠে ‘বাংলাদেশ-বাংলাদেশ’ শ্লোগান। এমন উৎসবমুখর দিনটাকে আরও রাঙিয়ে দিলেন বিপলু আহমেদ। এই মিডফিল্ডারের গোলেই লাওসকে হারিয়ে বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপে শুভসূচনা করেছে বাংলাদেশ।