এমবাপেকে আমরা শূলে চড়াতে পারি না: মদ্রিচ

সব কিছু যেভাবে এগোচ্ছিল, এতো দিনে রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে চুক্তি হয়ে যাওয়ার কথা ছিল কিলিয়ান এমবাপের। কিন্তু ফরাসি তারকা মন বদল করে থেকে যান পিএসজিতেই। নাটকীয় এই মোড় লা লিগার দলটির জন্য বড়সড় ধাক্কা হয়ে এলেও এমবাপের সিদ্ধান্তকে সম্মান জানালেন লুকা মদ্রিচ।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 July 2022, 01:33 PM
Updated : 3 July 2022, 01:33 PM

রিয়ালের এই ক্রোয়াট মিডফিল্ডারের মতে, সিদ্ধান্ত বদলের জন‍্য তো আর বিশ্বকাপজয়ী ফুটবলারকে শূলে চড়ানো যায় না।

এমবাপের পিএসজি ছেড়ে রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দেওয়ার গুঞ্জন অনেক দিনের। নাটকীয়তার নানা পর্ব পেরিয়ে গত মে মাসে শেষ মুহূর্তে স্প্যানিশ ক্লাবটিকে ‘না’ করে দেন ২৩ বছর বয়সী এই ফুটবলার। পিএসজির সঙ্গে নতুন চুক্তি করেন ২০২৫ সাল পর্যন্ত।

যা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন রিয়াল সমর্থক থেকে শুরু করে লা লিগা প্রেসিডেন্ট হাভিয়ের তেবাসও। এমন ঘটনাকে ‘ফুটবলের অপমান’ উল্লেখ করেন তিনি। সঙ্গে পিএসজির বিরুদ্ধে উয়েফার কাছে অভিযোগও করে লা লিগা কর্তৃপক্ষ।

রিয়ালকে এমবাপের ‘না’ করার কারণ হিসেবে অনেকেই দেখছেন আকাশছোঁয়া আয়ের হাতছানি। রিয়াল সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেস অবশ্য বিষয়টি দেখেন আরও বৃহৎ পরিসরে। গত মাসে এল চিরিঙ্গিতো টিভিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি দাবি করেন, ফ্রান্স আর কাতারের রাষ্ট্র প্রধান ও প্যারিসের মেয়র ফোন করে চাপ দেওয়ার পর ভাবনায় বদল আসে এমবাপের।

লম্বা সময় ধরে ফুটবল বিশ্বে চর্চিত এই বিষয়টি নিয়ে স্পোর্টসকে-তে নিজের ভাবনা তুলে ধরলেন মদ্রিচও। তিনি খুব একটা দায় দেখছেন না এমবাপের। ৩৬ বছর বয়সী এই ফুটবলার মতে, ভবিষ্যৎ নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার থাকা উচিত সবারই।

“এমবাপে যেভাবে ভেবেছে সেভাবেই সিদ্ধান্ত নিয়েছে, এটা তার অধিকার এবং এই সিদ্ধান্ত নিয়েই সে থাকছে। কোনো কিছুই থেমে থাকে না।”

“আমরা সবাই ভেবেছিলাম, সে এখানে (রিয়াল মাদ্রিদে) আসবে। কিন্তু সেটা হয়নি। এখন কী? আমরা তাকে শূলে চড়াতে যাচ্ছি না।”

এমবাপের জন্য রিয়াল মাদ্রিদের দরজা এখনও খোলা আছে বলে মনে করেন মদ্রিচ।

“এমবাপে দারুণ একজন খেলোয়াড়। তবে যে কারো প্রসঙ্গে আমি যেটার পুনরাবৃত্তি করি তা হলো, কোনো খেলোয়াড়ই ক্লাবের চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ নয়। রিয়াল সর্বশ্রেষ্ঠ, সব খেলোয়াড়ের ঊর্ধ্বে এবং সবসময় এমনই থাকবে।”

“কে জানে আগামীকাল কী হবে, তিন বা চার বছর তাকে ফুটবল খেলতে দিন। সময়ই বলে দেবে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক