তিতের কাছে ভিনিসিউস ‘২০১৪ সালের নেইমার’

রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে ভিনিসিউস জুনিয়রের উন্নতি নজর না কাড়ার কোনো কারণ নেই। নিশ্চিতভাবেই গত মৌসুমে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি উন্নতি করা ফুটবলারদের একজন ছিলেন তরুণ এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ারার্ড। তাকে দেখে ব্রাজিল কোচ তিতের মনে পড়ছে আরেকজনের নাম, ২০১৪ সালের নেইমার।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 28 June 2022, 01:57 PM
Updated : 28 June 2022, 03:19 PM

উইং ধরে ছুটছেন নেইমার। তাকে ঠেকাতে ভুগছেন লা লিগা আর চ‍্যাম্পিয়ন্স লিগের তাবত ডিফেন্ডাররা। এক সময়ের নিয়মিত এক দৃশ‍্যের অনকেটা যেন পুনরাবৃত্তি করছেন ভিনিসিউস। রিয়াল মাদ্রিদের ‘ডাবল’ জয়ে রেখেছেন বড় অবদান।

লা লিগা শিরোপা পুনরুদ্ধার করা রিয়াল লিভারপুলকে হারিয়ে জেতে চ‍্যাম্পিয়ন্স লিগ। ১৭ গোল করে লা লিগার তৃতীয় সর্বোচ্চ স্কোরার ছিলেন ভিনিসিউস। আর চ‍্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালে ব‍্যবধান গড়ে দেওয়া একমাত্র গোলটি করেন তিনিই।

ফরাসি স্ট্রাইকার করিম বেনজেমার সঙ্গে মিলে গড়ে তুলেছেন দারুণ এক জুটি। ব্রাজিল দলেও এমন কিছু দেখতে উন্মুখ হয়ে আছেন কোচ তিতে। ‘সেক্সটা এস্ট্রেলা পডকাস্ট’ এ ভিনিসিউসের ব্যাপারে নিজের ভাবনা জানান তিনি।

“আমরা যখন অনুশীলনে ছিলাম, আমি ভিনিকে (ভিনিসিউস) বলেছিলাম, ‘তুমি ২০১৪ সালের নেইমার।’ কারণ বার্সেলোনা ও সেই সময়ের জাতীয় দলের নেইমার ছিলেন উইংয়ে। এখন সে মাঝে খেলে।”

“অনেকে বলে নেইমার সেখানে খেললে অনেক ভুল করবে। তবে তার পজিশনই এমন যেটা তাকে বেশি ভুল করায়। কারণ, সব কিছু সে সৃজনশীলতার সঙ্গে করে যেগুলো হয়ে ওঠে নির্ণায়ক।”

রিয়াল মাদ্রিদে যেভাবে নিজেকে মেলে ধরছেন ভিনিসিউস, ব্রাজিলের হয়েও যেন তা পারেন, এটাই চাওয়া তিতের। আর এজন্য রিয়াল কোচ কার্লো আনচেলত্তির পরামর্শও চেয়েছিলেন বলে স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম মার্কাকে বলেছিলেন তিনি।

“রিয়ালে তার পরিপক্কতার জন্য দুই বছর লেগেছে। কিন্তু জাতীয় দলে এটা অনেক দ্রুত হয়েছে। তার জন্য এটা আরও সহজাত হয়ে উঠেছে, যেন সে নিজের কাঁধ থেকে কিছু ভার সরিয়ে নিয়েছে।”

“আমি আনচেলত্তির কাছে পরামর্শ চেয়েছিলাম, আমরা কী করতে পারি, রিয়াল মাদ্রিদে তারা কী ধরনের ট্যাকটিক‍্যাল কাজগুলো করে, যেগুলো করলে জাতীয় দলেও খেলোয়াড়রা রিয়ালে যা করে তা করতে পারবে।”

দুই জন অভিজ্ঞ কোচের আলোচনায় এসেছে অনেক তাত্ত্বিক দিকও। তবে স্বাভাবিকভাবেই বিস্তারিত তুলে ধরলেন না তিতে।

“আনচেলত্তি ও আমি আক্রমণাত্মক ফুটবলের কিছু পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেছিলাম, যা তাকে (ভিসিসিউস) আরও সৃজনশীল হতে স্বাধীনতা দেবে। আলোচনাটা ছিল তার সেরাটা বের করে আনার জন‍্য দুই কোচের মধ‍্যে মধ‍্যে সুন্দর ও স্বচ্ছ আলোচনা।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক