দুই ব্রাজিলিয়ানের নৈপুণ্যে কিংসের জয়

খেলা শুরু হলো ঢিমেতালে। এর মধ্যেই এগিয়ে গেল শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র। পিছিয়ে পড়ার পর একটু একটু করে চেনা রূপে ফিরল বসুন্ধরা কিংস। গোলের একাধিক সুযোগ নষ্ট করলেও শেষ পর্যন্ত তুলে নিল স্বস্তির জয়। লিগ শিরোপা জয়ের পথে আরেকধাপ এগিয়ে গেল অস্কার ব্রুসনের দল।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 June 2022, 12:36 PM
Updated : 27 June 2022, 09:35 AM

বসুন্ধরা কিংস অ্যারেনায় রোববার শেখ রাসেলকে ৩-২ গোলে হারিয়েছে কিংস। একটি করে গোল করেছেন মিগেল ফিগেইরা দামাশেনো, খালেদ শাফিই ও রবসন দি সিলভা রবিনিয়ো। শেখ রাসেলের গোল দুটি করেন আইজার আখমাতভ ও মান্নাফ রাব্বী।

টানা ছয় জয়ে ১৭ ম্যাচে ৪৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থান আরও শক্ত করল কিংস। ৩৫ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে এক ম্যাচ কম খেলা আবাহনী লিমিটেড।

ম্যাচের শুরুতে দুই দলের খেলায় তেমন ধার ছিল না। আক্রমণে কিছুটা এগিয়ে ছিল আগের ম্যাচে রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস অ্যান্ড সোসাইটিকে ২-০ গোলে হারিয়ে আসা কিংস।

২০তম মিনিটে বিপলুর সঙ্গে দারুণভাবে বল দেওয়া নেওয়া করে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েছিলেন রবিনিয়ো। তবে শেখ রাসেল ডিফেন্ডারদের প্রতিরোধে গোলমুখে শট নেওয়ার সুযোগই পাননি এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড। পরের মিনিটে মারোংয়ের শট ফেরান শেখ রাসেল গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানা।

২৮তম মিনিটে পেনাল্টি থেকে শেখ রাসেলকে এগিয়ে নেন কিরগিজস্তানের ডিফেন্ডার আইজার আখমাতভ। রিচার্ড গাডজেকে বক্সের মধ্যে বিশ্বনাথ ঘোষ ফেলে দিলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি।

রেফারির সিদ্ধান্তে অসন্তোষ জানায় কিংসের খেলোয়াড়রা। তাদের দাবি ফাউলটি হয়েছে বক্সের বাইরে। এ নিয়ে কিছুটা উত্তেজনা ছড়ায়। তবে সিদ্ধান্ত বদলায়নি।

৩৯তম মিনিটে মিডফিল্ড থেকে বল ধরে মারোং দুজনকে কাটিয়ে বল বাড়ান রবিনিয়োর উদ্দেশ্যে। স্বদেশির পাস ধরে বক্সে অরক্ষিত ব্রাজিলিয়ান দামাশেনো প্রথম প্রচেষ্টায় দারুণ শটে দূরের পোস্ট দিয়ে সমতা টানেন।

৪৩তম মিনিটে শেখ রাসেলকে এগিয়ে নেওয়ার সুবর্ণ সুযোগ হাতছাড়া করেন জুয়েল। ডানপ্রান্ত দিয়ে আকিনাদে ঢুকে পড়েন কিংসের বক্সে। তার কাট ব্যাক পেয়ে গোলমুখ থেকে বিস্ময়করভাবে পোষ্টের ওপর মারেন জুয়েল।

বিরতির পর কিংসের খেলায় মরিয়া ভাব লক্ষ্য করা যায়। একই সঙ্গে গোলের সহজ সুযোগও হাতছাড়া করতে থাকে তারা।

৫১তম মারোংয়ের থ্রু পাস ধরে রাসেলের তিন ডিফেন্ডারকে পেছনে ফেলে বক্সে ঢুকে পড়েন বিপলু। কিন্তু রানাকে একা পেয়েও গোল করতে ব্যর্থ হন তিনি। পোস্ট ছেড়ে খানিকটা বেরিয়ে এসে বিপলুর শট ঠেকিয়ে দেন এই অভিজ্ঞ গোলরক্ষক।

৫৮তম মিনিটে হতাশা বাড়ান বিপলু। একক প্রচেষ্টায় বক্সে ঢুকে পড়েছিলেন তিনি। কিন্তু তার নেওয়া শট ফিরিয়ে দেন এক ডিফেন্ডার। ফিরতি বলে রবিনিয়ো হতাশ করেন পোস্টের অনেকটা বাইরে মেরে।

কিংস ৬৫তম মিনিটে এগিয়ে যায় শাফিইয়ের গোলে। মিগেলের ফ্রি কিকে মারোং মাথা ছোঁয়ানোর পর রানার গায়ে লেগে বল চলে যায় শাফিইয়ের পায়ে। ইরানি এই ডিফেন্ডার ডান পায়ের শটে জাল খুঁজে নেন।

৮৩তম মিনিটে দিপক রায়ের বাড়ানো বল ডি-বক্সে ভালো জায়গায় পেয়ে যান হেমন্ত ভিনসেন্ট বিশ্বাস। তবে শট পোস্টে রাখতে পারেননি তিনি।

দুই মিনিট পর বাঁ দিক দিয়ে বক্সে ঢুকে প্লেসিং শটে বল জালে জড়ান রবিনিয়ো। কিংস এগিয়ে যায় ৩-১ গোলে। ৯২তম মিনিটে বদলি ফরোয়ার্ড কিংসলের শট পোস্টে লেগে ফিরলে ব্যবধান আর বাড়েনি।

খানিক পরই দিপক রায়ের পাস থেকে মান্নাফ রাব্বী ব্যবধান কমান। তাতে রোমাঞ্চকর কিছুর ইঙ্গিত মিললেও তা হয়নি। শুরুতে এগিয়ে গিয়েও হতাশা নিয়ে ফিরতে হলো আগের ম্যাচে শেখ জামালকে হারানো শেখ রাসেলকে।

প্রথম লেগে কিংসের কাছে ১-০ গোলে হেরেছিল শেখ রাসেল। ১৭ ম্যাচে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে আগের মতোই অষ্টম স্থানে দলটি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক