নষ্ট হওয়া গোলের সুযোগগুলো পোড়াচ্ছে কাবরেরাকে

পিছিয়ে পড়ার ধাক্কা সামলে ওঠা, ম্যাচজুড়ে দারুণ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ফুটবল খেলার তৃপ্তি আছে হাভিয়ের কাবরেরার। কিন্তু নষ্ট হওয়া সুযোগগুলো পোড়াচ্ছে বাংলাদেশ কোচকে। ওই সুযোগগুলো ভেস্তে না গেলে যে, তুর্কমেনিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচে লাল-সবুজ জার্সিধারীদের গল্পটা হতে পারত ভিন্ন।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 11 June 2022, 02:14 PM
Updated : 11 June 2022, 02:14 PM

মালয়েশিয়ার কুয়ালা লামপুরে শনিবার এশিয়ান কাপের বাছাইয়ে তুর্কমেনিস্তানের বিপক্ষে ২-১ গোলে হারে বাংলাদেশ। সপ্তম মিনিটে পিছয়ে পড়া দলকে পাঁচ মিনিট পরই সমতা ফেরান মোহাম্মদ ইব্রাহিম। ৭৭তম মিনিটে গোল হজম করে হেরে যায় কাবরেরার দল।

ম্যাচজুড়ে একাধিক সুযোগ পায় বাংলাদেশ। কিন্তু সাজ্জাদ হোসেন-রাকিব হোসেন-ইব্রাহিমরা তা নষ্ট করেছেন কখনও উড়িয়ে মেরে, কখনও দরকারি টোকা দিতে না পেরে। ৩৬তম মিনিটে বিশ্বনাথের লম্বা থ্রো ইনে সাজ্জাদের ব্যাক হেডের পর ইয়াসিন আরাফাত গোলমুখ থেকে মাথা ছোঁয়াতে পারেননি।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে রাকিবের ক্রসে সাজ্জাদ আগুয়ান গোলরক্ষককে একা পেয়েও লক্ষ্যে শট নিতে পারেননি। ৭১তম মিনিটে একক প্রচেষ্টায় আক্রমণে ওঠা বিপলু আহমেদ পাস বাড়িয়েছিলেন বক্সে বাঁ দিক থাকা ফাহিমের উদ্দেশে। বদলি এই ফরোয়ার্ড গোলরক্ষক বরাবর শট নিয়ে হতাশ করেন।

৮৮তম মিনিট নষ্ট হয় সমতায় ফেরার সুবর্ণ সুযোগ। জামালের ফ্রি কিকে দুরের পোস্টে ফাঁকায় ছিলেন বাংলাদেশের তিন জন। তাদের মধ্যে টুটুল হোসেন বাদশার শট বাইরে দিয়ে বেরিয়ে যায়। ম্যাচ শেষের প্রতিক্রিয়ায় ভালো খেলার তৃপ্তির পাশাপাশি নষ্ট হওয়া সুযোগগুলো নিয়ে আক্ষেপ ঝরল কাবরেরার কণ্ঠে।

“অনেক গর্বিত, একই সঙ্গে খারাপও লাগছে যে, আমাদের যে ফলটা প্রাপ্য ছিল সেটা আজ পাইনি। আজ জেতার ভালো সুযোগ ছিলা আমাদের। আগের ম্যাচে কর্নার থেকে গোল খাওয়ার পর আজকেও আমরা সেই কর্নার থেকেই শুরুতে গোল হজম করলাম। শুরুতে গোল খেলেও ছেলেদের ম্যাচে ফেরার তাড়না আর শক্তি ছিল। প্রথমার্ধে আমরাই ম্যাচটা নিয়ন্ত্রণে রেখেছিলাম।”

“আমরা জানতাম তুর্কমেনিস্তানের ফুটবলাররা শারীরিকভাবে শক্তিশালী এবং ম্যাচে তারা ফিরবেই। তবে আমাদের এটাও জানা ছিল কাউন্টার অ্যাটাক থেকে আমাদের গোলের সুযোগ আছে। পেয়েছিলামও কিন্তু সুযোগগুলো নষ্ট হলো। এমনকি শেষ দিকেও ফ্রি-কিক থেকেও গোলের সুযোগ ছিল কিন্তু আমরা পারলাম না।”

মঙ্গোলিয়া ও ইন্দোনেশিয়ার বিপক্ষে ড্র এবং এরপর বাহরাইন ও তুর্কমেনিস্তানের বিপক্ষে হারলেও দলের খেলার ধরণে খুশি কাবরেরা।

“অনেক ভালো পারফরম্যান্স। আজকের শুরু থেকেই ছেলেরা ভালো খেলেছে। আমার প্রথম ম্যাচেই বাংলাদেশ ভালো খেলেছে, মঙ্গোলিয়ার বিপক্ষে আমাদের প্রাধান্য ছিল। সেই ম্যাচে আমরাই প্রাধান্য বিস্তার করে খেলেছি। জেতার সুযোগ ছিল। ইন্দোনেশিয়া ম্যাচ থেকে আমরা খেলার ধরণ পাল্টেছি। সেই ম্যাচে ভালো একটা লড়াই হয়েছিল, এরপর আজকেও লড়াই হলো।”

“এভাবেই আমরা একটা একটা ধাপ ধরে এগোবো। সবার সঙ্গে লড়াই করব আর এটাই আমাদের লক্ষ্য। ভালো পারফরম্যান্স তবে জানি না এটাই সেরা পারফরম্যান্স কিনা। আমরা ড্র করতে পারতাম। তবে এটা সত্যি, আমাদের ভালো একটা ফল প্রাপ্য ছিল আজকে। গোলের অনেক সুযোগ ছিল। এখান থেকে একটা গোল হলেও হতে পারত কিন্তু এটাই ফুটবল। বল দখলে ভুল হলেই বুম (গড়বড় হয়ে যায়)।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক