‘নকআউটে কেউ আয়াক্সের সামনে পড়তে চাইবে না’

গ্রুপ পর্বে ছয় ম্যাচের সবকটিতে জয়; প্রতিপক্ষের জালে বল পাঠিয়েছে ২০ বার, হজম করেছে মাত্র পাঁচটি। এই সংখ্যাগুলোই প্রমাণ করে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে কী দারুণ ছন্দে আছে আয়াক্স। অপেক্ষা এবার নকআউট পর্বের। একের পর এক দুর্দান্ত পারফরম্যান্স উপহার দেওয়া ডাচ দলটি বাকিদের জন্য চিন্তার কারণ হয়ে উঠেছে বলে মনে করছেন তাদের কোচ এরিক টেন হাগ।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 8 Dec 2021, 01:35 PM
Updated : 8 Dec 2021, 01:36 PM

এই ডাচ কোচের মতে, কোয়ার্টার-ফাইনালের ওঠার লড়াইয়ে কেউই আয়াক্সের সামনে পড়তে চাইবে না।

গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে মঙ্গলবার রাতে ঘরের মাঠে স্পোর্তিং লিসবনের বিপক্ষে ৪-২ গোলে জেতে আয়াক্স। ছয় ম্যাচের সবকটি জিতে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে ‘সি’ গ্রুপের সেরা তারা। ৯ পয়েন্ট নিয়ে তাদের সঙ্গে শেষ ষোলো নিশ্চিত করেছে স্পোর্তিং।

অপরাজেয় এই পথচলায় দারুণ এক কীর্তি গড়েছে আয়াক্স। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ পর্বে শতভাগ জয়ের অভিজাত ক্লাবে জায়গা করে নেওয়া আট দলের একটি তারা। গত রাতে এসি মিলানকে হারিয়ে প্রথম ইংলিশ দল হিসেবে এই তালিকায় জায়গা করে নেয় লিভারপুলও। অসামান্য এই কীর্তি দুইবার দেখাতে পেরেছে কেবল প্রতিযোগিতাটির রেকর্ড ১৩ বারের চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদ।

আয়াক্স কোচের কথায় আত্মবিশ্বাসের কমতি না থাকলেও পরের ধাপের লড়াইয়ের জন্য বেশ সতর্কও তিনি। জানেন, শেষ ষোলোয় কঠিন পরীক্ষা অপেক্ষা করছে। স্পোর্তিংয়ের বিপক্ষে ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে টেন হাগের কণ্ঠে শোনা যায় পরবর্তী ধাপ পার করার প্রত্যয়।

“এক ম্যাচই জেতা কঠিন, সেখানে টানা ছয়টি জয়। দেখা যাক (শেষ ষোলোয়) কী হয়। একটা বিষয় তো আগে থেকেই জানা যে কঠিন লড়াই হবে। তবে আমরা আত্মবিশ্বাসী।”

স্পোর্তিংয়ের বিপক্ষে দলের প্রথম গোলের পর সতীর্থদের সঙ্গে সেবাস্টিয়ান হলারের উদযাপন

আগামী সোমবার হবে ইউরোপ সেরার নকআউট পর্বের ড্র। তখনই জানা যাবে, প্রতিপক্ষ হিসেবে কাকে পাচ্ছে আয়াক্স। তবে টেন হাগ প্রতিপক্ষ নিয়ে ভাবছেন না। বললেন, বাকি দলগুলোর চিন্তার জায়গা এটি।
“জানি, আমরা কিছু অর্জন করতে পারব। (শেষ ষোলোর) ড্রয়ে কোনো দলই আয়াক্সের বিপক্ষে পড়তে চাইবে না। তবে আমরা এটাও জানি, পরের রাউন্ডে যেতে হলে আমাদের খুবই ভালো খেলতে হবে।”
আয়াক্সের সাফল্যমণ্ডিত এই পথচলার বড় অবদান সেবাস্টিয়ান হলারের। এই ফরোয়ার্ড নাম লিখিয়েছেন দারুণ এক অর্জনে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ পর্বে ছয় ম্যাচেই গোল করা দ্বিতীয় খেলোয়াড় তিনি। এতদিন এই কীর্তি ছিল কেবল ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর, ২০১৭/১৮ মৌসুমে রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে।
চলতি আসরে এখন পর্যন্ত ১০ গোল করেছেন হলার। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গ্রুপ পর্বে যা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। ২০১৫-১৬ আসরের গ্রুপ পর্বে রেকর্ড ১১ গোল করেছিলেন পর্তুগিজ তারকা রোনালদো।
দলের সঙ্গে নিজের এই অর্জন; সব মিলিয়ে উৎফুল্ল হলার।
“অবশ্যই আমার দারুণ লাগছে, মূলত ছয় ম্যাচে ১৮ পয়েন্ট পাওয়ার কারণে।”
“গ্রুপ পর্বে যা করেছি, তা নিয়ে আমরা গর্বিত হতে পারি। একজন পেশাদার ফুটবল খেলোয়াড় হিসেবে, সবাই এই ধরনের ম্যাচ খেলার এবং এই মঞ্চে ভালো করার স্বপ্ন দেখে। ১০ গোল করা দারুণ ব্যাপার।”
তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক