ম্যানচেস্টার সিটিকে হারিয়ে ইউরোপা লিগে লাইপজিগ

আগের ম্যাচের একাদশে সাতটি পরিবর্তন এনে নিজেদের সেরাটা মেলে ধরতে পারল না ম্যানচেস্টার সিটি। তাদের হারিয়ে শেষটা দারুণ করে ইউরোপা লিগে জায়গা করে নিল লাইপজিগ।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 7 Dec 2021, 07:42 PM
Updated : 7 Dec 2021, 10:09 PM

নিজেদের মাঠে মঙ্গলবার রাতে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ‘এ’ গ্রুপের ম্যাচে ২-১ গোলে জিতেছে জার্মান ক্লাবটি। ডমিনিক সোবোসলাইয়ের গোলে লাইপজিগ এগিয়ে যাওয়ার পর ব্যবধান দ্বিগুণ করেন আন্দ্রেই সিলভা। রিয়াদ মাহরেজ ব্যবধান কমালেও শেষ দিকে একজন কম নিয়ে পেরে ওঠেনি সিটি।

৬ রাউন্ড শেষে চার জয়ে ১২ পয়েন্ট নিয়ে ‘এ’ গ্রুপের সেরা হয়ে নকআউট পর্বে খেলবে সিটি। একই সময়ে শুরু হওয়া আরেক ম্যাচে ক্লাব ব্রুজকে ৪-১ গোলে হারানো পিএসজি ১১ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ রানার্সআপ।

৭ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় হওয়া লাইপজিগ খেলবে ইউরোপা লিগে। ৪ পয়েন্ট নিয়ে তলানিতে ক্লাব ব্রুজ।

জার্মানিতে করোনাভাইরাসের চতুর্থ ঢেউ মাথাচাড়া দেওয়ায় ম্যাচটিতে দর্শক না রাখার সিদ্ধান্ত হয় আগেই। শূন্য গ্যালারিতে স্টেডিয়ামের উত্তাপ কমলেও মাঠের লড়াই ছিল জমজমাট।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নকআউট পর্বে ওঠার আশা আগে শেষ হয়ে গেলেও শুরু থেকে দারুণ উজ্জীবিত ফুটবল খেলতে থাকে লাইপজিগ। পঞ্চদশ মিনিটে প্রথম উল্লেখযোগ্য সুযোগও পায় তারা; তবে কনরাড লাইমারের শট ঝাঁপিয়ে কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান গোলরক্ষক।

এ পর্যন্ত কিছুটা ঝিমিয়ে থাকা সিটি এরপরই যেন জেগে ওঠে। দুই মিনিট পর কেভিন ডে ব্রুইনের শট অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। খানিক পর জ্যাক গ্রিলিশের শটে বল প্রতিপক্ষের পায়ে লেগে চলে যায় ক্রসবারের ওপর দিয়ে।

চাপ ধরে রেখে ২৪তম মিনিটে কাঙ্খিত গোল পেয়ে যায় লাইপজিগ। প্রতি-আক্রমণে লাইমারের দারুণ পাস ধরে মাঝমাঠ থেকে এক ছুটে সবাইকে পেছনে ফেলে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন সোবোসলাই। এরপর এগিয়ে আসা গোলরক্ষক জ্যাক স্টেভেনকে কাটিয়ে ফাঁকা জালে বল পাঠান হাঙ্গেরির তরুণ এই মিডফিল্ডার।

৩৯তম মিনিটে লাইপজিগের আন্দ্রেই সিলভার কাছ থেকে নেওয়া হেড ঠেকিয়ে দেন স্টেভেন। দুই মিনিট পর ফিল ফোডেনের শটে বল লাইপজিগের গোলরক্ষক পেতার গুলাচির হাতে লেগে পোস্টে বাধা পেলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় স্বাগতিকরা।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুর দিকে প্রথম ভাগের ছন্দ ধরে রাখতে পারেনি লাইপজিগ। এসময় সিটিও অবশ্য পারেনি তেমন কোনো সুযোগ তৈরি করতে।

এরই মাঝে ৭১তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করে লাইপজিগ। মাঝমাঠের সিটির ডিফেন্ডার জন স্টোনসের ভুলে বল পেয়ে আক্রমণে ওঠেন এমিল ফোর্সবার্গ। ডি-বক্সে ঢুকে একজনকে ফাঁকি দিয়ে ডান পাশে খুঁজে নেন আন্দ্রেই সিলভাকে। ডান পায়ের শটে কাছের পোস্ট দিয়ে গোলটি পর্তুগিজ এই ফরোয়ার্ড।

পাঁচ মিনিট পরই ব্যবধান কমিয়ে ম্যাচ জমিয়ে তোলার আভাস দেয় সিটি। বাঁ থেকে অলেকসান্দার জিনচেঙ্কোর ক্রসে গোলমুখ থেকে নিচু হয়ে হেডে গোলটি করেন মাহরেজ।

এর কিছুক্ষণ পরই অবশ্য বড় ধাক্কা খায় সিটি। বাঁ দিক দিয়ে আক্রমণে ওঠা প্রতিপক্ষের সিলভাকে পেছন থেকে ফাউল করে সরাসরি লাল কার্ড দেখেন ডিফেন্ডার কাইল ওয়াকার। এক জন কম নিয়ে বাকি সময়ে আর কোনো সুযোগ তৈরি করতে পারেনি ইংলিশ চ্যাম্পিয়নরা।

সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে টানা সাত জয়ের পর হারল পেপ গুয়ার্দিওলার দল।

আর লাইপজিগে টানা বাজে পারফরম্যান্সের দায়ে গত রোববার চাকরি হারান কোচ জেসি মার্শ। অন্তর্বর্তীকালীন কোচ আখিম বায়োলরজারের হাত ধরে শুরুটা দারুণ হলো দলটির।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক