লাপোর্তার বিরুদ্ধে মেসির সঙ্গে কূটকৌশলের অভিযোগ

লিওনেল মেসি থাকবে, থাকছে, চুক্তি আসন্ন- ছয় মাসের বেশি সময় ধরে এমন কথা শুনে আসায় বুক বেঁধে ছিলেন বার্সেলোনার সমর্থকরা। শেষ পর্যন্ত সবিস্ময়ে আবিষ্কার করলেন, হাল ছেড়ে দিয়েছে দল, কাম্প নউ ছেড়ে গেছেন ক্লাবের ইতিহাসের সেরা ফুটবলার। অনেকের মনেই প্রশ্ন জেগেছে, মেসিকে ধরে রাখতে যথেষ্ট চেষ্টা কি করেছিল বার্সেলোনার কর্তাব্যক্তিরা?

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 15 August 2021, 05:15 PM
Updated : 15 August 2021, 05:15 PM

অভিযোগের তীর স্বাভাবিকভাবেই ক্লাব সভাপতি হুয়ান লাপোর্তার দিকে। দ্বিতীয় দফায় নির্বাচিত হওয়ার আগে, দাবি করেছিলেন তিনিই কেবল ধরে রাখতে পারবেন মেসিকে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কথা রাখতে পারেননি তিনি। তার সদিচ্ছার অভাব দেখছেন কেউ কেউ। তারা অভিযোগ করেছেন, মেসির সঙ্গে কূটকৌশল করেছেন লাপোর্তা।

মেসিবিহীন মৌসুম শুরু করতে যাচ্ছে বার্সেলোনা রোববার, রিয়াল সোসিয়েদাদের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে। এদিনই করোনাভাইরাসের কঠিন পরিস্থিতিতে লম্বা সময় পর কাম্প নউয়ে মাঠে প্রবেশ করবে দর্শক।

এর আগে মাঠের বাইরে দেখা গেছে নানা ধরনের ব্যানার। যার মধ্যে অনেকগুলোই লাপোর্তার বিরুদ্ধে। মেসির বার্সেলোনার ছাড়ার পেছনে সরাসরি আঙুল তোলা হয়েছে সভাপতির দিকে। সমর্থকদের অনেকের মতে, মেসিকে রাখতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করেনি বোর্ড।

চুক্তির একটি ধারা কার্যকর করে গত বছর ফ্রি ট্রান্সফারে বার্সেলোনা ছাড়তে চেয়েছিলেন মেসি। কিন্তু ওই ধারা কার্যকরের সময় পেরিয়ে যাওয়ায় অনেক টানাপোড়েনের পর অনিচ্ছায় থেকে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি।

ক্লাবটির সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ শেষে গত ১ জুলাই ফ্রি এজেন্ট হয়ে যান মেসি। তবে এবার নতুন চুক্তিতে পুরনো ঠিকানায় ফিরতে রাজি ছিলেন তিনি। ক্লাবের কথা চিন্তা করে বেতনের ৫০ শতাংশের কমে চুক্তিও করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু এরপরও তাকে রাখতে পারেনি বার্সেলোনা।

ক্লাবের আর্থিক দুরবস্থা ও লা লিগার ফিন্যান্সিয়াল ফেয়ার প্লের নিয়মে আটকে যায় মেসির সঙ্গে বার্সেলোনার চুক্তি। ছিন্ন হয় তার সঙ্গে ক্লাবটির ২১ বছরের সম্পর্ক। এরপর লাপোর্তা মন্তব্য করেছিলেন, সবার আগে ক্লাবের কথা চিন্তা করেই নেওয়া হয়েছে মেসিকে ছাড়ার সিদ্ধান্ত।

সুযোগ হাতিয়ে নিতে দেরি করেনি পিএসজি। সময়ের সেরা ফুটবলারদের একজন মেসির সঙ্গে তারা চুক্তি করেছে দুই বছরের। ফরাসি ক্লাবটির হয়ে এখন থেকে মাঠ মাতাবেন তিনি।

সেই ২০০৪ সালে যে পথচলার শুরু, তা শেষ হয়েছে দুই দশক পর। এই সময়ে ক্রমেই মেসি হয়ে উঠেছিলেন বার্সেলোনার মধ্যমণি, সাফল্যের নায়ক। ছিলেন ক্লাবের সবচেয়ে বড় বিজ্ঞাপন।

স্প্যানিশ ক্লাবটির জার্সিতে রেকর্ড ৩৫টি শিরোপা জেতেন মেসি। বার্সেলোনার হয়ে ৬৮২ গোল করে ক্লাবটির ইতিহাসে রেকর্ড গোলদাতা তিনি। লা লিগার সর্বোচ্চ গোলদাতাও আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। আরও অনেক রেকর্ডও রয়েছে তার নামের পাশে। এমন একজনকে হারানো স্বাভাবিকভাবেই প্রচণ্ড ব্যথা দিয়েছে বার্সেলোনা সমর্থকদের মনে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক