পেদ্রি অলিম্পিক খেলুক, চান না কুমান

বছর জুড়ে ফুটবলারদের ব্যস্ততার শেষ নেই। ঘরোয়া লিগ, চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ছাড়াও আছে অনেক টুর্নামেন্ট। আছে জাতীয় দলের হয়ে খেলা। এবার দরজায় কড়া নাড়ছে টোকিও অলিম্পিক, সব মিলিয়ে ঠাসা সূচিতে খেলোয়াড়দের নাভিশ্বাস উঠে যাওয়ার অভিযোগ করেছেন অনেক কোচই। পেদ্রির স্পেনের হয়ে টোকিওর আসরে খেলার প্রসঙ্গ টেনে বার্সেলোনা কোচ রোনাল্ড কুমানও জানালেন নিজের চাওয়া।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 9 July 2021, 03:26 PM
Updated : 9 July 2021, 03:26 PM

টোকিও অলিম্পিক হওয়ার কথা ছিল গত বছর। তবে বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রীড়াযজ্ঞ এক বছরের জন্য পিছিয়ে দেওয়া হয়। নতুন সূচিতে এটি শুরু হওয়ার কথা আগামী ২৩ জুলাই।

লিগ মৌসুম শেষের পরই পেদ্রিকে খেলতে হয়েছে ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ। সে অর্থে বিশ্রামের সুযোগ মেলেনি তার। ১৮ বছর বয়সী এই মিডফিল্ডারকে এবার খেলতে হবে অলিম্পিকে। এই তরুণের ওপর এত খেলার ধকল চান না বার্সেলোনা কোচ।

“একজন ফুটবল খেলোয়াড়ের জন্য এক গ্রীষ্মে দুটি শীর্ষ পর্যায়ে প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া ‍খুব বেশি হয়ে যায়। পেপ গুয়ার্দিওলা এরই মধ্যে এটা বলেছেন এবং আমি তার সঙ্গে একমত।”

“ঘরোয়া মৌসুমে প্রায় সবগুলো ম্যাচ খেলেছে পেদ্রি। স্পেনের হয়ে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপেও প্রায় পুরোটা খেলেছে। এখন মাত্র চার দিনের বিরতি নিয়ে জাপানে রওনা দেওয়া এবং অলিম্পিকে খেলা আদর্শ নয়। এটা খুব বেশি হয়ে যায়।”

বিশ্বের সবচেয়ে বড় এই ক্রীড়াযজ্ঞে অংশ নেওয়া প্রতিটি অ্যাথলেটের জন্যই সম্মানের, মর্যাদার। তবে কুমানের চাওয়া ফুটবলকে যেন অলিম্পিক ইভেন্টের বাইরে রাখা হয়!

“এটা স্রেফ আমার ব্যক্তিগত অভিমত, আমার মনে হয় অলিম্পিক গেমস অন্যান্য খেলার এবং অ্যাথলেটদের জন্য-এটা ফুটবলের জন্য নয়। আমি অন্তত এটাই মনে করি। জানি, খেলোয়াড়রা এখানে খেলতে আগ্রহী, কিন্তু আমাদের খুবই ঠাসা সূচি আছে এবং আমাদের প্রয়োজন তাদের সুরক্ষা দেওয়া।”

১৯৯২ সালে প্রথম ও সবশেষ অলিম্পিকের ফুটবল ইভেন্টের সোনা জিতেছিল স্পেন। সবশেষ ২০০০ সালে হয়েছিল রানার্সআপ। এবারও সেরা হওয়ার স্বপ্ন নিয়েই দলটি যাবে টোকিওতে। পেদ্রিও যে দলের সঙ্গী হবে, তা বুঝতে পারছেন কুমান।

“অস্কার মিনগেসা ও এরিক গার্সিয়াও পেদ্রির সঙ্গে স্পেনের অলিম্পিক দলে আছে। আমরা এখানে পরের মৌসুমের প্রস্তুতি শুরু করব এবং পরের মৌসুমে আমাদের জিততে হবে। দেখা যাক, কখন তারা অলিম্পিক শেষ করে ফিরে আসে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক