ফ্রি এজেন্ট হয়ে যাচ্ছেন মেসি, ‘শান্ত’ বার্সেলোনা

আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা বাকি। মাঝরাত পেরুলেই ‘ফ্রি এজেন্ট’ হয়ে যাবেন লিওনেল মেসি। তাহলে কি ১৩ বছর বয়সে ২০০১ সালে বার্সেলোনার সঙ্গে যে সম্পর্ক গড়েছিলেন মেসি, সেটা শেষ হয়ে যাবে? অনেকেই অবশ্য সেটি মানতে নারাজ। যত মনোমালিন্যই হোক, যত সমস্যাই আসুক না কেন, ঘরের ছেলে ঘরেই থাকবে; ক্লাব কর্মকর্তাদের ইতিবাচক সব মন্তব্যে এই ধারণা জন্মাতে শুরু করেছে।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 June 2021, 05:16 PM
Updated : 30 June 2021, 05:16 PM

বিশেষ করে শেষ দিনে এসেও বার্সেলোনা সভাপতি হুয়ান লাপোর্তা যে দৃঢ়ভাবে মেসির ভবিষ্যৎ প্রশ্নে ‘শান্ত’ থাকতে বললেন, তাতে বার্সেলোনা সমর্থকদের আশা বেড়েছে বৈকি।

তবে, বুধবার মাঝরাতের আগে কোনো ঘোষণা না এলে তো আপাতত আনুষ্ঠানিকভাবে বার্সেলোনা-মেসির সম্পর্ক শেষ হয়ে যাবে।

আর্জেন্টিনার কয়েকটি গণমাধ্যমের প্রতিবেদনেও বার্সেলোনার হয়ে ৭৭৮ ম্যাচে ৬৭২ গোল করা মেসির পুরনো ঠিকানায় থেকে যাওয়ার ইঙ্গিত মিলেছে। সেই সঙ্গে অবশ্য এটাও বলা হচ্ছে, চলতি কোপা আমেরিকা শেষ না হওয়া পর্যন্ত অন্য কোনো বিষয়ে মাথা ঘামাতে চান না রেকর্ড ছয়বারের বর্ষসেরা ফুটবলার।

জাতীয় দলের হয়ে কিছু জিততে না পারা মেসির এখনকার একমাত্র চাওয়া, যেকোনো মুল্যে জিততে হবে এবারের কোপা আমেরিকা। আকাশী-সবুজ জার্সিতে দারুণ ছন্দেও আছেন তিনি। আসরের তিনি সর্বোচ্চ গোলদাতা। মহাদেশ সেরা প্রতিযোগিতায় গ্রুপ সেরা হয়ে দল উঠেছে কোয়ার্টার-ফাইনালে। আগামী ১১ জুলাই হবে এর ফাইনাল। তাই, ধরে নেওয়া যায় আপাতত বার্সেলোনা-মেসি নিয়ে পাকাপাকি কোনো খবর আসছে না।

তাহলে, আসছে ১ জুলাই থেকে কোনো ক্লাবের সঙ্গে চুক্তি ছাড়াই কোপা আমেরিকায় খেলবেন মেসি। এখানে চলে আসছে কিছু গুরুত্বপূর্ণ এবং বার্সেলোনার জন্য দুর্ভাবনার প্রশ্ন।

এএসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নিয়মানুযায়ী কোপা আমেরিকা চলাকালীন যদি মেসি চোট পান তাহলে তার চিকিৎসার দায়িত্ব বার্সেলোনার থাকবে না। একইভাবে চোটের কারণে তিনি যদি লম্বা সময় বাইরে থাকেন তাহলে পরে বার্সেলোনার সঙ্গে তিনি চুক্তি করলেও তার অনুপস্থিতির সময়ের জন্য ফিফা থেকে কোনোরকম ক্ষতিপূরণ পাবে না ক্লাব।

চলতি ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে ফ্রান্সের হয়ে খেলার সময় উসমান দেম্বেলে চোট পেয়ে প্রায় চার মাসের জন্য ছিটকে গেছেন। ফিফা প্রোটেকশন প্রোগামের আওতায় এই ফরোয়ার্ডের মাঠের বাইরে থাকাকালীন সময়ের প্রতি দিন বাবদ ২০ হাজার ৫৪৮ ইউরো করে পাবে কাতালান ক্লাবটি, যার সর্বোচ্চ মেয়াদ এক বছর।

মাঝের এই সময়ে বার্সেলোনার জন্য আছে আরও কিছু সমস্যার জায়গা। স্পোর্তের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মেসির সঙ্গে নতুন চুক্তির আগ পর্যন্ত ক্লাবটি জার্সিতে মেসির ছবি বা ২০২১-২২ মৌসুম সংশ্লিষ্ট কোনো বিষয়েই তার ছবি ব্যবহার করতে পারবে না। ক্লাবের দোকান মেসির জার্সি বিক্রিও করতে পারবে না তারা।

এসবের ভিড়ে বড় আরেকটি দুঃশিচন্তার জায়গা আছে বার্সেলোনার। যেহেতু মেসি এখন ফ্রি এজেন্ট, তাই তার সঙ্গে চুক্তি করলে লা লিগা এটাকে নতুন খেলোয়াড় কেনা হিসেবে দেখতে পারে। সেক্ষেত্রে এটি ক্লাবের খেলোয়াড়দের ‘বেতনের সীমায়’ প্রভাব ফেলতে পারে।

আগে থেকেই বার্সেলোনার আর্থিক অবস্থা ভালো না। নতুন এসব সমস্যায় আরও খারাপের দিকেই যাবে।

তাদের মোট দেনার পরিমাণ এখন ১২০ কোটি ইউরোর কাছাকাছি। খেলোয়াড়দের বেতন বাবদ খরচ কমানো ক্লাবটির জন্য হয়ে পড়েছে খুব জরুরি। খেলোয়াড়দের বেতন দেওয়ার জন্যই মে মাসে তাদের ১০ কোটি ইউরো ব্যাংক ঋণ নিতে হয়েছিল বলে সংবাদমাধ্যমের খবর।

আবার ক্লাবের রেকর্ড ৩৫টি শিরোপা জয়ী মেসিকে ধরে রাখতে শুধু তাকে রাজি করালেই হবে না, বার্সেলোনাকে তাদের বেতন বাবদ খরচ কমাতে হবে প্রায় ২০ কোটি ইউরো এবং লা লিগার ফিনান্সিয়াল ফেয়ার প্লের আইনের সঙ্গে সঙ্গতি রাখতে হবে।

তবে যত সমস্যাই হোক না কেন, ক্লাবের ইতিহাসের সবচেয়ে সেরা খেলোয়াড়কে ধরে রাখতে মরিয়া লাপোর্তা। বারবার তিনি জোর দিয়ে বলেছেন, আলোচনা ঠিকঠাক এগোচ্ছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক