‘মেসিকে ছাড়া খেলা অসম্ভব’

প্রিয় কাম্প নউয়ে কি এটাই লিওনেল মেসির শেষ ম্যাচ? ম্যাচের আগে থেকেই উচ্চারিত হচ্ছিল প্রশ্নটা। সেল্তা ভিগোর বিপক্ষে বার্সেলোনার হারের পর তা উচ্চকিত আরও। সেই প্রশ্নের উত্তর জানা নেই রোনাল্ড কুমানেরও। তবে বার্সেলোনা কোচ ভালো করেই জানেন, মেসিকে ছাড়া খেলা অসম্ভব। 

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 May 2021, 09:32 AM
Updated : 17 May 2021, 09:33 AM

আগামী ৩০ জুন শেষ হবে বার্সেলোনার সঙ্গে মেসির চুক্তির মেয়াদ। নতুন করে চুক্তি না করলে রোববার সেল্তা ভিগোর বিপক্ষে ২-১ গোলে হারা ম্যাচটি হয়ে থাকবে ঘরের মাঠে তার সবশেষ ম্যাচ। অধিনায়কের চমৎকার হেডেই এ দিন এগিয়ে গিয়েছিল কাতালান ক্লাবটি।

চলতি আসরে যা মেসির ৩০তম গোল। অনেকটা এগিয়ে থেকে তিনি গোলদাতাদের তালিকার শীর্ষে। সবশেষ ১২ আসরে এ নিয়ে নবমবার করলেন অন্তত ৩০ গোল।

স্প্যানিশ শীর্ষ লিগে এক আসরে শীর্ষ গোলদাতার পুরস্কার- পিচিচি ট্রফি জয়ের আরও কাছে পৌঁছে গেলেন মেসি। সাতবার জিতে রেকর্ডটি আগে থেকেই তার।

একটি রেকর্ডে দুই কিংবদন্তি আলফ্রেদো দি স্তেফানো ও উগো সানচেসকে ছাড়িয়ে এককভাবে শীর্ষে ওঠার সুযোগ আর্জেন্টাইন তারকার সামনে। তিনজনই পিচিচি ট্রফি জিতেছেন টানা চার বার করে। ২০১৬-১৭ মৌসুম থেকে মেসি জিতে চলেছেন টানা।

সেল্তা ম্যাচ দিয়ে মেসি করলেন একটি ‘ট্রিপল সেঞ্চুরি।’ লা লিগায় তিনশ ভিন্ন ম্যাচে করলেন অন্তত এক গোল। দুইশ ম্যাচেই গোল নেই কারও, রিয়াল মাদ্রিদ কিংবদন্তি রাউল গঞ্জালেস গোল করেছেন ১৮৬ ম্যাচে। 

চলতি বছর ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লিগে সবচেয়ে বেশি গোলের সঙ্গে জড়িয়ে মেসির নাম। করেছেন ৩০ গোল, অবদান রেখেছে আটটিতে।

মেসির এমন অসাধারণ পারফরম্যান্সের পরও লিগে শেষ দিকে ধুঁকেছে বার্সেলোনা। সবশেষ ৫ ম্যাচে তাদের জয় কেবল একটি। এক রাউন্ড বাকি থাকতে ছিটকে গেছে শিরোপা লড়াই থেকে।  

মেসি না থাকলে তাহলে দলের অবস্থা কেমন হবে? সেটা ভেবেই কিনা মেসিকে ছাড়া বার্সেলোনা দল চিন্তা করতে পারছেন না কোচ কুমান।

“মেসি কাম্প নউয়ে শেষ ম্যাচ খেলে ফেলেছে কি না? আশা করি না। আজও সে তার কার্যকারিতা দেখিয়েছে এবং সে এখনও বিশ্বসেরা। তাকে ছাড়া খেলা অসম্ভব। কিন্তু লিও একাই খেলছে, ম্যাচ জেতাচ্ছে, পয়েন্ট এনে দিচ্ছে। আমাদের আরও কয়েকজন খেলোয়াড়ের গোল করা প্রয়োজন।”

“লিও ৩০টি গোল করেছে, আমাদের অনেক পয়েন্ট এনে দিয়েছে। কিন্তু তার ভবিষ্যৎ নিয়ে প্রশ্নটা তাকেই করতে হবে। আমার ও ক্লাবের দিক থেকে, আমরা আশা করে সে থাকবে। কারণ, যদি লিও না থাকে আমাদের জানা নেই গোলগুলো কে করবে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক