দলের ‘হাল না ছাড়ার’ মানসিকতায় গর্বিত কুমান

দুর্দান্ত খেলেও ছিটকে পড়ার শঙ্কায় পড়েছিল বার্সেলোনা। তবে মনোবল ধরে রেখে লড়ে যায় তারা। ঘুরে দাঁড়ায় খাদের কিনারা থেকে। সেভিয়ার বিপক্ষে রোমাঞ্চ ছড়ানো ম্যাচে কঠিন সমীকরণ মিলিয়ে কোপা দেল রের ফাইনালে ওঠার পর খেলোয়াড়দের ‘হাল না ছাড়ার’ মানসিকতার প্রশংসা করেন কাতালান ক্লাবটির কোচ রোনাল্ড কুমান।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 March 2021, 10:11 AM
Updated : 4 March 2021, 10:18 AM

সেভিয়ার মাঠে সেমি-ফাইনালের প্রথম লেগে ২-০ গোলে হারায় ফিরতি পর্বে কমপক্ষে ৩-০ গোলে জিততে হতো বার্সেলোনাকে। কাম্প নউয়ে বুধবার যোগ করা সময়ের গোলে ম্যাচ অতিরিক্ত সময়ে নেওয়ার পর ৩-০ ব্যবধানেই জেতে কুমানের দল। দুই লেগে মিলে ৩-২ ব্যবধানে এগিয়ে ওঠে ফাইনালে।

শুরু থেকেই প্রতিপক্ষের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে দ্বাদশ মিনিটে গোল আদায় করে নেয় স্বাগতিকরা। উসমান দেম্বেলের সেই গোলের পর সেভিয়ার রক্ষণ ভাঙতে একের পর এক আক্রমণ শানায় কাতালান দলটি। দ্বিতীয়ার্ধে পেনাল্টি সেভ করে দলকে কক্ষপথে রাখেন গোলরক্ষক মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন। আর জেরার্দ পিকের যোগ করা সময়ের হেডে ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। সেখানে হেডে তৃতীয় গোলটি করেন বদলি খেলোয়াড় মার্টিন ব্রাথওয়েট।

ড্যানিশ ফরোয়ার্ডের এই গোল এবং তাদের জয়ের ধরণ প্রতিযোগিতায় বার্সেলোনার পেছনের ম্যাচগুলোর কথা মনে করিয়ে দেয়। শেষ বত্রিশে তৃতীয় সারির দল কোরনিয়াকে ২-০ গোলে হারাতে অতিরিক্ত সময় পর্যন্ত খেলতে হয়েছিল দলটিকে। পরের রাউন্ডে দ্বিতীয় সারির দল রায়ো ভাইয়েকানোকে ২-১ গোলে হারিয়েছিল ঘুরে দাঁড়িয়ে।

এ যাত্রায় লিওনেল মেসিদের বিপক্ষে পেরে ওঠেনি সেভিয়া।

শেষ আটে গ্রানাদার বিপক্ষে ৮৮ মিনিট পর্যন্ত ২-০ গোলে পিছিয়ে ছিল প্রতিযোগিতার সফলতম দলটি। শেষ সময়ে দুই গোল করে ম্যাচ অতিরিক্ত সময়ে দেওয়ার পর তারা জিতেছিল ৫-৩ গোলে।

এবার সেভিয়ার বিপক্ষেও এলো তেমনই জয়। ম্যাচের পর উচ্ছ্বসিত কুমান ভূয়সী প্রশংসা করেন দলের মানসিকতার।

“আমরা সবসময় বিশ্বাস ধরে রেখেছিলাম, আমরা কখনোই কাপের আশা ছাড়িনি।”

“এটা মানসিকতার ব্যাপার এবং আজ যা দেখলাম কোচ হিসেবে এর বেশি কিছু আমি দলের কাছে চাইতে পারি না। যোগ করা সময়েও আমরা লড়াই চালিয়ে গেছি, অসাধারণ। যেভাবে আমরা আজ লড়েছি তাতে আমি খুশি। জয় আমাদেরই প্রাপ্য।”

কোপা দেল রেকে বাড়তি গুরুত্ব দিতে লিগ ম্যাচে খেলোয়াড়দের বিশ্রাম দিয়েছিলেন কুমান।  লা লিগায় আতলেতিকো অনেকটা এগিয়ে যাওয়ায় এবং চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কঠিন বাস্তবতা মেনে আগে থেকেই স্পেনের দ্বিতীয় সেরা এই প্রতিযোগিতার ট্রফি জয়ে লক্ষ্যস্থির করেন ডাচ কোচ।

“আমি খুব গর্বিত। দলের জন্য এটা গুরুত্বপূর্ণ এক মুহূর্ত এবং আমার জন্যও। কারণ এই ধরনের ম্যাচ জিতলে সবাই ভালো কোচ হিসেবে বিবেচনা করে, কিন্তু হারলে দেখা হয় খুবই খারাপ হিসেবে।”

“দলটি শারীরিক ও মানসিকভাবে খুব শক্তিশালী। আমরা সবসময় ভালো খেলতে পারি না, কিন্তু বল দখলে থাকলে সুযোগ তৈরি করা যায়। আজ রাতে আমরা যা করেছি তা অসাধারণ।”

ফাইনালে বার্সেলোনা খেলবে লেভান্তে ও আথলেতিক বিলবাওয়ের মধ্যে বিজয়ী দলের বিপক্ষে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক