টানা চার জয়ে শীর্ষে বসুন্ধরা কিংস

রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস অ্যান্ড সোসাইটির বিপক্ষে প্রথমার্ধেই ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নেওয়া বসুন্ধরা কিংস শেষ পর্যন্ত পেল অনায়াস জয়। টানা চার জয়ে প্রিমিয়ার লিগের পয়েন্ট তালিকায় শীর্ষে উঠল অস্কার ব্রুসনের দল।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 27 Jan 2021, 02:33 PM
Updated : 27 Jan 2021, 02:33 PM

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বুধবার ৩-০ গোলে জিতেছে ২০১৭-১৮ মৌসুমের লিগ চ্যাম্পিয়নরা।

আগের তিন ম্যাচে যথাক্রমে উত্তর বারিধারা, বাংলাদেশ পুলিশ এফসি ও ব্রাদার্স ইউনিয়নকে হারিয়েছিল বসুন্ধরা কিংস। চার জয়ে ১২ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে তারা।

এ নিয়ে টানা তিন ম্যাচ হারল রহমতগঞ্জ। সাইফ স্পোর্টিংয়ের বিপক্ষে ড্রয়ের পরের দুই ম্যাচে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র ও আবাহনী লিমিটেডের বিপক্ষে হেরেছিল রহমতগঞ্জ।

টানা তিন জয়ের আত্মবিশ্বাস নিয়ে খেলতে নামা বসুন্ধরা কিংস এগিয়ে যেতে পারত অষ্টম মিনিটে। জোনাথন দি সিলভেইরা ফের্নান্দেসের হেড পাসে রাউল অস্কার বেসেরা ঠিকঠাক ভলি করতে পারেননি। গোলরক্ষক রাসেল মাহমুদ লিটন কর্নারের বিনিময়ে ফেরান।

শুরু থেকে রক্ষণ জমাট রেখে খেলা রহমতগঞ্জের গোলরক্ষক লিটন ২৪তম মিনিটে আটকান মাহবুবুর রহমান সুফিলের দূরপাল্লার শট। একটু পর বসুন্ধরা কিংসের ফের্নান্দেসের শট বেরিয়ে যায় পোস্ট ঘেঁষে।

২৬তম মিনিটে ডি-বক্সে বলের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে বেসেরার সঙ্গে লিটনের সংঘর্ষ হয়। পেনাল্টি পায় বসুন্ধরা কিংস। বলের লাইনে ঝাঁপিয়েও রবসন দি সিলভা রবিনিয়োর শট আটকাতে পারেননি গোলরক্ষক।

মিনিট দশেক চিকিৎসা নিয়ে মাঠে ফিরেন বেসেরা। তবে খেলা চালিয়ে যেতে পারেননি। একটু পরই অস্বস্তি বোধ করায় অ্যাম্বুলেন্সে করে মাঠ ছাড়েন তিনি; বদলি নামেন সবুজ।

প্রথমার্ধের শেষ দিকে আত্মঘাতী গোলে দ্বিগুণ হয় ব্যবধান। ফের্নান্দেসের পাস ধরে সবুজ ডান দিক থেকে ডি-বক্সে ক্রস বাড়ান। ঝাঁপিয়ে পড়া লিটনের গ্লাভস গলে বল বেরিয়ে যাওয়ার পর ডিফেন্ডার মাহমুদুল হাসান কিরণের পায়ে লেগে জালে জড়ায়।

৬২তম মিনিটে ম্যাচে ফেরার সুবর্ণ সুযোগ নষ্ট হয় রহমতগঞ্জের। ডান দিক দিয়ে আক্রমণে ওঠা বদলি মিডফিল্ডার এনামুল ইসলাম ছোট ডি-বক্সে ঢুকে কাট ব্যক করেন। সুহেল মিয়া ও দিলশদ ভাসিয়েভ কেউই পা ছোঁয়াতে পারেননি।

৮৬তম মিনিটের গোলে জয় অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে যায় বসুন্ধরা কিংসের। প্রতিপক্ষের ভুলে বল পাওয়ার পর মাঝমাঠের একটু উপর থেকে রবিনিয়ো লং পাস বাড়ান ফের্নান্দেসকে। ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডের আড়াআড়ি পাসে সবুজের শট খুঁজে নেয় জাল।

দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ে গোলমুখ থেকে মিশরের ডিফেন্ডার আলাদিন নাসের বাইরে শট নিলে ব্যবধান কমানো গোলের দেখাও পায়নি রহমতগঞ্জ।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে গাম্বিয়ার ফরোয়ার্ড ওমর জোবের হ্যাটট্রিকে আরামবাগ ক্রীড়া সংঘকে ৬-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাব। এ নিয়ে লিগে টানা তিন ম্যাচ জিতল শফিকুল ইসলাম মানিকের দল।

দিনের আরেক ম্যাচে টঙ্গীর শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার স্টেডিয়ামে উত্তর বারিধারা ও ব্রাদার্স ইউনিয়নের ম্যাচটি ৩-৩ ড্র হয়। এ ড্রয়ে চলতি লিগে পয়েন্টের খাতা খুলল দুই দল।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক