তবুও গোলরক্ষক জিকোর খেলায় মুগ্ধ ডে

৫ গোলের ব্যবধানে হারের পরও গোলরক্ষকের খেলায় মুগ্ধ বাংলাদেশের প্রধান কোচ জেমি ডে। সবে আন্তর্জাতিক আঙিনায় পা রাখা আনিসুর রহমানের চেষ্টা আর দারুণ কিছু সেভ মন জয় করে নিয়েছে তার।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 Dec 2020, 07:51 PM
Updated : 4 Dec 2020, 07:51 PM

কদিন আগে নেপালেরবিপক্ষে প্রীতি ম্যাচে দেশের হয়ে খেলেন প্রথমবার। এবার কাতারের বিপক্ষে হলো প্রতিযোগিতামূলকফুটবলে অভিষেক। দলের বড় হারের পরও নজর কেড়েছেন ২৩ বছর বয়সী গোলরক্ষক জিকো।

দোহার আব্দুল্লাহআল খলিফা স্টেডিয়ামে শুক্রবার ২০২২ বিশ্বকাপ ও ২০২৩ এশিয়ান কাপের বাছাইয়ের ‘ই’ গ্রুপের প্রিলিমিনারি রাউন্ডেরদ্বিতীয় ধাপের ম্যাচে ৫-০ গোলে হারে বাংলাদেশ। প্রথম লেগে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামেবিশ্বকাপের আয়োজকদের কাছে ২-০ গোলে হেরেছিল দল।

দেশে নেপালের বিপক্ষেপ্রথম প্রীতি ম্যাচে পোস্টের নিচে অলস সময় কেটেছিল জিকোর। কাতারে তার উপর দিয়ে শুরুথেকে শেষ পর্যন্ত রীতিমতো ঝড় বয়ে গেছে। পাঁচবার পরাস্ত হয়েছেন বসুন্ধরা কিংসের এই গোলরক্ষক।তবে করেছেন ভালো কয়েকটা সেভও।

৩১তম মিনিটে দ্বিতীয়গোল হজমের আগ মুহূর্তে আকরাম হাসান আফিফের শট শেষ মুহূর্তে পা বাড়িয়ে আটকেছিলেন। ৫৫তম মিনিটে রিয়াদুল হাসান রাফির ভুলে বল পাওয়া আলাদিনের প্রচেষ্টা ফেরান কর্নারের বিনিময়েফেরান।

৬৪তম মিনিটে দূরপাল্লারএকটি শট অনেকটা লাফিয়ে ফিস্ট করে নিশ্চিত গোল বাঁচিয়েছেন। আল মোয়েজ আলির স্পট কিকেরসময়ও ছিলেন বলের লাইনে। কিন্তু ঝাঁপিয়ে পড়া জিকোর হাত ছুঁয়ে বল জালে জড়ায়।

জিকোর খেলায় তাইখুশি বাংলাদেশ কোচ। অল্প সময়ের প্রস্তুতি নিয়ে কাতারের বিপক্ষে দলের খেলায়ও সন্তুষ্টএই ইংলিশ কোচ।

“কাতার এশিয়ার সেরা দল। তারা চারমাস ধরে অনুশীলন করছে। আমরা অনুশীলন করেছি পাঁচ সপ্তাহ। আগের ম্যাচে তারা শক্তিশালীকোরিয়ার বিপক্ষে খেলে এসেছে। আমি মনে করি, তাদের বিপক্ষে ছেলেরা দারুণ খেলেছে।”

“আমি মনে করি, জিকোকে খেলিয়ে আমিঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সে চমৎকার কয়েকটা সেভ করেছে। (প্রতিযোগিতামূলক ফুটবলে) এটা তারপ্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ। সে অবিশ্বাস্য এবং বিশ্বমানের কিছু সেভ করেছে। তবে স্কোরলাইন৪-০ হলে ভালো হতো।”

এশিয়ার চ্যাম্পিয়নদেরসঙ্গে নিজেদের পার্থক্যের প্রসঙ্গও টানলেন বাংলাদেশ কোচ।

“কাতারের মতো বলের নিয়ন্ত্রণ এবংটেকিনিক্যাল সামর্থ্য আমাদের নেই। তবে ছেলেরা শতভাগ দিয়েছে। এই অল্প সময়ের মধ্যে কাতারেরবিপক্ষে খেলার প্রস্তুতি নেওয়ার জন্য কঠোর পরিশ্রম করেছে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক