সালাউদ্দিনকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে মানিক পেলেন ১ ভোট

বাদল রায় সরে দাঁড়ানোর পর বিরুদ্ধ স্রোতে একমাত্র তিনিই দাঁড়িয়েছিলেন। ফুটবলের উন্নয়নে দিয়েছিলেন ২১ দফা ইশতেহার। কিন্তু শফিকুল ইসলাম মানিক অর্জন করতে পারেননি ভোটারদের আস্থা। পুনরায় বাফুফে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন সালাউদ্দিন। ব্যালটে নাম থাকায় বাদল রায়ও পেয়েছেন উল্লেখযোগ্য সংখ্যাক ভোট। কিন্তু মানিকের প্রাপ্তি মোটে ১ ভোট!

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 Oct 2020, 03:30 PM
Updated : 3 Oct 2020, 04:53 PM

রাজধানীর একটি হোটেলে শনিবার বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের নির্বাচনে ১৩৯ জন কাউন্সিলরের মধ্যে ভোট দিয়েছেন১৩৫ জন। ৯৪ ভোট পেয়ে টানা চতুর্থবারের মতো সভাপতি হয়েছেন সালাউদ্দিন। বাদল পেয়েছেন ৪০ ভোট; অথচ দুই দফা সংবাদ সম্মেলন করে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা জানিয়েছিলেন এই সাবেক ফুটবলার।

সালাউদ্দিনের বিরুদ্ধে একমাত্র প্রার্থী হিসেবে তাই কার্যত টিকে ছিলেন মানিক। সাবেক এই ফুটবলার ও শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাবের কোচ ইশতেহার ঘোষণার সময় আশাবাদী ছিলেন ভোটারদের মন জয় করতে পারবেন। কিন্তু ভোটের মাঠে দেখা গেলো একেবারেই ভিন্ন চিত্র।

৬টা ২০ মিনিটে ভোট গ্রহণকেন্দ্র থেকে বেরিয়ে আসেন সভাপতি প্রার্থী মানিক। চলে যাওয়ার আগে অভিযোগও করে গেলেন তিনি।

“আমার মনে হয়, ভোট গণনার সময় আমার ওখানে থাকা উচিত। ভোট কারচুপি হচ্ছে কিনা কে দেখবে? আমি স্বতন্ত্র প্রার্থী। আমার ওখানে থাকা উচিত ছিল। কিন্তু তারা আমাকে ওখানে থাকতে দেয়নি।”

“নির্বাচন কমিশনারের কাছে যাওয়ার আগেই তারা আমাকে বলেছে, এখানে থাকতে পারবেন না। নির্বাচনী আচরণবিধিতে উল্লেখ করা আছে ভোট গ্রহণের সময় প্রার্থী থাকতে পারবে। কিন্তু ভোট গণনার সময় কী হবে, তার উল্লেখ নাই।”

এ ব্যাপারে প্রধান  নির্বাচন কমিশনার মেজবাহ উদ্দিন জানান, নির্বাচনী বিধি অনুযায়ীই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

“নির্বাচনী বিধিতে বলা আছে, ভোট গণনার সময় প্রার্থীর এজেন্ট বা প্রতিনিধি থাকতে পারবেন। প্রার্থী থাকতে পারবেন না। তাই তাকে থাকার অনুমতি দেওয়া হয়নি।” 

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক