সংখ্যার বাঁকে লিভারপুলের অর্জন

তিন দশকের অপেক্ষার অবসান হলো। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ নামকরণের পর প্রথম শিরোপা স্বাদ নিল লিভারপুল। চলতি লিগে দুর্বার গতিতে ছুটে চলা ইয়ুর্গেন ক্লপের দল আক্ষরিক অর্থেই এবার বাকিদের ধরাছোঁয়ার বাইরে।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 June 2020, 07:39 AM
Updated : 26 June 2020, 04:00 PM

নিজেদের সর্বশেষ ম্যাচে ক্রিস্টাল প্যালেসকে হারিয়ে উৎসবের প্রস্তুতি সেরে রেখেছিল লিভারপুল। চেলসির কাছে বৃহস্পতিবার ম্যানচেস্টার সিটি হেরে যাওয়ায় শেষ হয়েছে তাদের ক্ষণ গোনার পর্ব। সাত ম্যাচ হাতে রেখেই বাজিমাত করেছে লিভারপুল।

লিগের বাকি সময়ে আরও অনেক প্রাপ্তির হাতছানি আছে দলটির সামনে। শিরোপার মতো সেগুলোও ক্লপের দল ছুঁতে পারবে কিনা, বলে দেবে সময়। আপাতত দেখে নেওয়া যাক, পরিসংখ্যানের পাতায় লিভারপুলের শিরোপা জয়ের ছবি।

১৯৯২-৯৩ মৌসুমে প্রিমিয়ার লিগ নামকরণের পর এই প্রথম শিরোপা স্বাদ পেল লিভারপুল।

লিভারপুলের এই অর্জনের সঙ্গে ইতিহাসে নাম লেখা হয়ে গেছে ক্লপের। ইংল্যান্ডের শীর্ষ ফুটবল লিগের ১৩১ বছরের ইতিহাসে প্রথম জার্মান কোচ হিসেবে শিরোপা জয়ের কীর্তি গড়লেন ক্লপ।

তবে ‘১’ মানেই সবসময় সেরা নয়! গত ফেব্রুয়ারিতে ওয়াটফোর্ডের মাঠে ৩-০ গোলে উড়ে গিয়েছিল ক্লপের দল। অপ্রতিরোধ্য পথচলায় এখনও পর্যন্ত লিগে এটিই তাদের একমাত্র হার।

চলতি লিগে এ পর্যন্ত মাত্র দুই ম্যাচে পয়েন্ট ভাগাভাগি করেছে লিভারপুল। গত অক্টোবরে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে পিছিয়ে পড়েও তারা ড্র করতে পেরেছিল ১-১ গোলে। দ্বিতীয়বার পয়েন্ট ভাগাভাগি করতে হয়েছে গত রোববার, এভারটনের মাঠে গোলশূন্য ড্রয়ে।

লিগে ৭ ম্যাচ বাকি রেখেই শিরোপা নিশ্চিত করেছে লিভারপুর। ইংল্যান্ডের শীর্ষ লিগে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ বাকি রেখে শিরোপা জেতার রেকর্ড এটি।

৫ ম্যাচ আগেই শিরোপা জয়ের ঘটনা আছে চারটি। ১৯০৭-০৮ মৌসুমে প্রথম এই কৃতিত্ব দেখায় ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। তারা এটির পুনরাবৃত্তি  করে ২০০০-০১ মৌসুমে। এছাড়া ১৯৮৪-৮৫ মৌসুমে এভারটন এবং ২০১৭-১৮ মৌসুমে ম্যানচেস্টার সিটি অংশ হয়েছিল এই রেকর্ডের।

১২

এ পর্যন্ত প্রতিপক্ষের মাঠে ১৫ ম্যাচের ১২টি জিতেছে লিভারপুল। গত অগাস্টে সাউথ্যাম্পটনের মাঠে ২-১ গোলে জিতে অ্যাওয়ে ম্যাচের জয়যাত্রা শুরু করে দলটি। এ পর্যন্ত লিগে দুটি ড্র এবং একমাত্র হারের স্বাদ লিভারপুল পেয়েছে প্রতিপক্ষের ডেরায় গিয়ে।

১৬

চলতি লিগে নিজেদের মাঠ অ্যানফিল্ডে ১৬ ম্যাচের সবকটি জিতেছে লিভারপুল। বাকি আছে আর তিনটি হোম ম্যাচ। তিনটিই জিতলে এক মৌসুমে ঘরের মাঠে সবগুলো ম্যাচ জয়ের রেকর্ড নিজেদের করে নেবে তারা।

১৮টি করে জয় নিয়ে রেকর্ডের এই পাতায় যৌথভাবে আছে তিন দল, চেলসি (২০০৫-০৬), ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড (২০১০-১১) এবং ম্যানচেস্টার সিটি (২০১১-১২ ও ২০১৮-১৯)।

১৯

ইংল্যান্ডের শীর্ষ ফুটবলে লিভারপুলের মোট শিরোপা। ১৯০০-০১ মৌসুমে প্রথম লিগের শিরোপা জিতেছিল দলটি। সেসময় অবশ্য নাম ছিল প্রথম বিভাগ। ১৯ শিরোপার ১৮টি শিরোপাই ‘প্রথম বিভাগ যুগে’ জিতেছিল তারা।

১৯৮৯-৯০ মৌসুমের পর প্রথমবারের মতো ইংল্যান্ডের শীর্ষ লিগের শিরোপা জয়ের স্বাদ পেল ক্লাবটি।

২৩

দ্বিতীয় স্থানে থাকা সিটির সঙ্গে এ মুহূর্তে লিভারপুলের পয়েন্ট ব্যবধান ২৩। এই ব্যবধান ধরে রেখে লিগ শেষ করতে পারলেও আরেকটি রেকর্ড গড়বে তারা। ২০১৭-১৮ মৌসুমে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে ১৯ পয়েন্ট পেছনে রেখে শিরোপা জিতেছিল ম্যানচেস্টার সিটি। নিকটতম দলের চেয়ে সবচেয়ে বেশি ব্যবধানে এগিয়ে থেকে লিগ জয়ের রেকর্ড সেটিই।

২৮

লিগে এ পর্যন্ত ৩১ ম্যাচে ২৮ জয় লিভারপুলের। যে পথচলা শুরু হয়েছিল গত অগাস্টে, লিগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে অ্যানফিল্ডে নরিচ সিটিকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিয়ে। আত্মঘাতী গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর ওই ম্যাচে লক্ষ্যভেদ করেছিলেন মোহামেদ সালাহ, ভার্জিল ফন ডাইক ও দিভক ওরিগি ।

৩০

বছরের হিসেবে ইংল্যান্ডের শীর্ষ লিগে শিরোপার জন্য এটিই ছিল লিভারপুলের দীর্ঘতম অপেক্ষা।

৪৪

নিজেদের মাঠে ১৬ ম্যাচে দেওয়ার লিভারপুলের মোট গোল। ম্যাচ প্রতি গড় গোল ২.৭৫। হোম ম্যাচে হজম করা গোলের সংখ্যা ১২। প্রতিপক্ষের মাঠে ১৫ ম্যাচে এ পর্যন্ত ২৬টি গোল করেছে তারা, খেয়েছে ৯টি।

৭০

লিগে এ পর্যন্ত লিভারপুলের গোলসংখ্যা। গড়ে প্রতি ম্যাচে দুটির বেশি গোল দিয়েছে দলটি। হজম করেছে মাত্র ২১টি।

দলের ৭০ গোলে সর্বোচ্চ অবদান সালাহর (১৭টি)। লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় মিশরের এই ফরোয়ার্ড আপাতত আছেন দুইয়ে।

৮৬

শিরোপা নিশ্চিত হওয়ার সময় লিভারপুলের পয়েন্ট। তাদের সামনে আছে দারুণ এক কীর্তি গড়ার হাতছানি। লিগের ইতিহাসে এক মৌসুমে সর্বোচ্চ ১০০ পয়েন্ট পাওয়ার রেকর্ড ম্যানচেস্টার সিটির। বাকি ৭ ম্যাচে স্রেফ ১৫ পয়েন্ট পেলেই লিভারপুল পৌঁছে যাবে নতুন উচ্চতায়।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক