লেভানদোভস্কির ৪ গোল, টটেনহ্যামের দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তন

রবের্ত লেভানদোভস্কি মাঠে নামবেন আর গোল হবে না, তা যেন হতেই পারে না। মৌসুমের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত সেভাবেই নিজেকে মেলে ধরে চলেছেন তিনি। রেড স্টার বেলগ্রেডের বিপক্ষে যেমন একাই করলেন চারটি। বায়ার্ন মিউনিখও উপহার দিল আরেকটি গোল উৎসব।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 Nov 2019, 11:17 PM
Updated : 27 Nov 2019, 09:08 AM

গ্রুপের আরেক ম্যাচে অলিম্পিয়াকোসের বিপক্ষে ঘরের মাঠে ১৯ মিনিটের মধ্যে দুই গোল খেয়ে হারের শঙ্কায় পড়েছিল টটেনহ্যাম। দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়ে দুর্দান্ত এক জয়ে নকআউট পর্বে পা রেখেছে ইংলিশ ক্লাবটি।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে মঙ্গলবার রাতে ‘বি’ গ্রুপে আগেই নকআউট পর্ব নিশ্চিত করা বায়ার্ন সার্বিয়ার ক্লাব রেড স্টারের বিপক্ষে জিতেছে ৬-০ গোলে। আর অলিম্পিয়াকোসকে ৪-২ গোলে হারিয়েছে টটেনহ্যাম।

প্রতিপক্ষের মাঠে বায়ার্নের গোল বন্যার শুরু চতুর্দশ মিনিটে। ফিলিপে কৌতিনিয়োর ক্রসে হেডে ঠিকানা খুঁজে নেন জার্মান মিডফিল্ডার লেয়ন গোরেটস্কা।

লক্ষ্যে মোট ১৬টি শট নেওয়া বায়ার্ন বাকি পাঁচ গোল করে দ্বিতীয়ার্ধে। ৫৩তম মিনিটে স্পট কিকে স্কোরশিটে নাম লেখান লেভানদোভস্কি। ৬০ ও ৬৪তম মিনিটে জালে বল পাঠিয়ে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন তিনি। তিন মিনিট পর নিজের চতুর্থ ও দলের পঞ্চম গোলটি করেন পোলিশ এই স্ট্রাইকার।

আসরে তার মোট গোল হলো সর্বোচ্চ ১০টি। মৌসুমে তার গোলসংখ্যা দাঁড়ালো ২৭।

৮৯তম মিনিটে রেড স্টারের কফিনে শেষ পেরেক ঠুকে দেন ফরাসি মিডফিল্ডার তোলিসো।

ইউরোপ সেরা প্রতিযোগিতায় এই নিয়ে রেকর্ড ২০ বার ম্যাচে পাঁচ বা তার বেশি গোল করল জার্মানির ক্লাবটি।

টটেনহ্যাম হটস্পার স্টেডিয়ামে ষষ্ঠ মিনিটে মরক্কোর ফরোয়ার্ড ইয়োসেফ এল-আরাবির গোলে পিছিয়ে পড়ে স্বাগতিকরা। ১৯তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন পর্তুগিজ ডিফেন্ডার রুবেন সেমেদো।

প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে ব্যবধান কমান ডেলে আলি। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে সাত মিনিটের ব্যবধানে দুই গোল করে দলকে এগিয়ে নেন ইংলিশ স্ট্রাইকার হ্যারি কেইন। আর ৭৩তম মিনিটে অরিয়েরের গোলে জয় নিশ্চিত হয় জোসে মরিনিয়োর দল টটেনহ্যামের। 

পাঁচ ম্যাচের সবকটিতে জেতা বায়ার্নের পয়েন্ট ১৫। গ্রুপ রানার্সআপ টটেনহ্যামের পয়েন্ট ১০।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক