নিউক্যাসলকে হারিয়ে শেষের রোমাঞ্চের অপেক্ষায় লিভারপুল

প্রথমার্ধে দুই দফা এগিয়ে গেল লিভারপুল। নিজেদের মাঠে দারুণ খেলে দুবারই সমতা টানল নিউক্যাসল ইউনাইটেড। এরপর মোহামেদ সালাহ চোট পেয়ে মাঠ ছাড়লে জয় নিয়ে কিছুটা শঙ্কায় পড়ে যায় ‘অল রেড’ খ্যাত দলটি। তবে বদলি নেমে সব শঙ্কা উড়িয়ে লিভারপুলকে পুরো তিন পয়েন্ট এনে দিলেন দিভোক ওরিগি।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 May 2019, 08:50 PM
Updated : 4 May 2019, 09:39 PM

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে শনিবার রাতে নিউক্যাসলের মাঠ ৩-২ গোলে জিতে লিভারপুল। দারুণ এই জয়ে শীর্ষে ফিরে লিগ শিরোপার লড়াই জমিয়ে রাখল ইয়ুর্গেন ক্লপের দল। ৩৭ ম্যাচে ২৯ জয় ও সাত ড্রয়ে ৯৪ পয়েন্ট তাদের।

লিভারপুলের চেয়ে এক ম্যাচ কম খেলা ম্যানচেস্টার সিটি ৯২ পয়েন্ট নিয়ে নেমে গেছে দ্বিতীয় স্থানে।

গত ডিসেম্বরে লিগের প্রথম পর্বে অ্যানফিল্ডে নিউক্যাসলকে ৪-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছিল লিভারপুল।

প্রতিপক্ষের মাঠে ম্যাচের ত্রয়োদশ মিনিটে ট্রেন্ট আলেক্সান্ডার-আরনল্ডের কর্নারে ভার্জিল ফন ডাইক হেডে এগিয়ে নেন লিভারপুলকে। সাত মিনিট পর গোছালো আক্রমণে সমতায় ফেরে নিউক্যাসল। সালোমন রনদনের শট গোললাইন থেকে আলেক্সান্ডার-আরনল্ড কনুঁই দিয়ে ফেরানোর পর ঘানার ক্রিস্টিয়ান আটসু ফিরতি শটে জাল খুঁজে নেন।

২৬তম মিনিটে ভাগ্যের জোরে বেঁচে যায় অতিথিরা। সতীর্থের বাড়ানো বল ধরে পেরেসের নেওয়া জোরালো ভলি গোলরক্ষক আলিসনকে ফাঁকি দিয়ে ক্রসবারে লেগে ফিরে।

দুই মিনিট পর ফের এগিয়ে যায় আগের ম্যাচে বার্সেলোনার কাছে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ সেমি-ফাইনালের প্রথম লেগে ৩-০ গোলে হেরে আসা লিভারপুল। ড্যানিয়েল স্টারিজ ব্যাক হিল করার পর আলেক্সান্ডার-আরনল্ডের ক্রসে সালাহর সাইড ভলি ঠিকানা খুঁজে পায়।

লিগের শীর্ষ গোলদাতা সালাহর গোল হলো ২২টি। ২০টি করে গোল আছে ম্যানচেস্টার সিটির ফরোয়ার্ড সের্হিও আগুয়েরো ও সালাহর ক্লাব সতীর্থ সাদিও মানের।

দ্বিতীয়ার্ধে ফের ম্যাচ জমিয়ে তোলে নিউক্যাসল। ৫৪তম মিনিটের কর্নার পুরোপুরি বিপদমুক্ত করতে পারেননি জার্জিনিয়ো ভিনালডাম। তার হেডের পর হাভিয়েরও হেড করেই বল বাড়ান রনদোনকে; বুলেট গতির শটে লক্ষ্যভেদ করেন ভেনেজুয়েলার এই ফরোয়ার্ড।

৬৯তম মিনিটে আক্রমণে ওঠা সালাহর সঙ্গে গোলরক্ষকের সংঘর্ষ হয়। মিশরের এই ফরোয়ার্ড মাটিতে শুয়ে মাথায় ব্যথা পাওয়ার ইঙ্গিত করেন। কিছুক্ষণ চিকিৎসা নেওয়ার পর স্ট্রেচারে করে মাঠ ছাড়েন তিনি। সালাহর বদলি নামেন ওরিগি।

বদলি নেমে প্রত্যাশার প্রতিদান ওরিগি দেন ৮৬তম মিনিটে। জেরদান সাচিরির ফ্রি-কিকে হেডে লক্ষ্যভেদ করেন বেলজিয়ামের এই ফরোয়ার্ড। এ গোল ধরে রেখে স্বস্তির জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে লিভারপুল।

আগামী মঙ্গলবার ঘরের মাঠে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সেমি-ফাইনালের ফিরতি লেগে বার্সেলোনার মুখোমুখি হবে লিভারপুল। গুরুত্বপূর্ণ এ ম্যাচের আগে সালাহর চোট নিশ্চিতভাবেই বড় ভাবনায় ফেলে দিয়েছে দলটিকে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক