ইয়াং বয়েজে ধরাশায়ী ইউভেন্তুস

প্রথম পাঁচ ম্যাচে যে দল কোনো জয়ের দেখা পায়নি সেই ইয়াং বয়েজের কাছেই হেরে গেল ইউভেন্তুস। শেষ দিকে পাওলো দিবালা ব্যবধান কমালেও তা যথেষ্ট হয়নি।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 12 Dec 2018, 10:02 PM
Updated : 13 Dec 2018, 08:03 AM

ঘরের মাঠে বুধবার রাতে ‘এইচ’ গ্রুপের ম্যাচে ২-১ গোলে জেতে সুইস ক্লাবটি। আরেক ম্যাচে ভালেন্সিয়ার মাঠে একই ব্যবধানে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড হেরে যাওয়ায় গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে মাস্সিমিলিয়ানো আল্লেগ্রির শিষ্যরা।

আক্রমণাত্মক ফুটবলে ইউভেন্তুসের শুরুটা ছিল আশাব্যাঞ্জক। প্রথম ১৫ মিনিটে ভালো দুটি সুযোগও পায় তাদের সেরা তারকা ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। প্রথমবার গোলরক্ষককে একা পেয়েও শট নিতে দেরি করেন তিনি। দুই মিনিট পর তার কোনাকুনি শট অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়।

৩০তম মিনিটে গিয়ুম উয়াহুর স্পট কিকে উল্টো পিছিয়ে পড়ে ইউভেন্তুস। ডি-বক্সে ক্যামেরুনের মিডফিল্ডার গামালেউকে ইউভেন্তুসের ডিফেন্ডার আলেক্স সান্দ্রো ফাউল করলে পেনাল্টিটি পায় স্বাগতিকরা।

৪২তম মিনিটে ফেদেরিকো বের্নারদেস্কির ফ্রি-কিক রক্ষণ দেয়ালে প্রতিহত হয়। সতীর্থের হেডে ফিরতি বল পেয়ে রোনালদোর নেওয়া ভলি পোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে গেলে পিছিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় আগেই নকআউট পর্ব নিশ্চিত করা ইউভেন্তুস।

দ্বিতীয়ার্ধের দ্বিতীয় মিনিটে প্রতিপক্ষের ভুলে গোল পেয়েই যাচ্ছিল অতিথিরা। তাদের একটি আক্রমণ রুখতে পা বাড়িয়ে দেন উয়াহু, বল তার পায়ে লেগে ক্রসবারে বাধা পায়।

৬৮তম মিনিটে দারুণ এক পাল্টা আক্রমণে ব্যবধান বাড়ায় স্বাগতিকরা। সতীর্থের পাস পেয়ে একটু এগিয়ে ডি-বক্সের বাইরে থেকে বাঁ পায়ের জোরালো শটে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন ফরাসি ফরোয়ার্ড উয়াহু।  

আক্রমণের ধার বাড়াতে ৭২তম মিনিটে ডিফেন্ডার মাত্তিয়া দে শিলিওকে বসিয়ে পাওলো দিবালাকে নামান কোচ। আস্থার প্রতিদান দিতে দেরি করেননি তিনি। রোনালদোর ব্যাকপাস ডি-বক্সের বাইরে পেয়ে প্রথম ছোঁয়ায় জোরালো শটে ব্যবধান কমান আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড।

যোগ করা সময়ের শেষ মিনিটে দূরপাল্লার শটে বল জালে পাঠিয়ে উল্লাসে মেতেছিলেন দিবালা। কিন্তু রোনালদো অফসাইডে থাকায় গোল পায়নি ইউভেন্তুস। অভাবনীয় এক জয়ের উল্লাসে মাতে ইয়াং বয়েজ।

ছয় ম্যাচে চার জয়ে ইউভেন্তুসের পয়েন্ট ১২। তিন জয় ও এক ড্রয়ে ১০ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ রানার্সআপ হয়েছে জোসে মরিনিয়োর ইউনাইটেড।

তৃতীয় হয়ে ইউরোপা লিগে জায়গা করে নেওয়া স্পেনের ক্লাব ভালেন্সিয়ার পয়েন্ট ৮। ইয়াং বয়েজের পয়েন্ট ৪।

‘ই’ গ্রুপে আয়াক্স ও বায়ার্ন মিউনিখের মধ্যে রোমাঞ্চকর ম্যাচটি ৩-৩ গোলে ড্র হয়েছে।

চার জয় ও দুই ড্রয়ে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে জার্মান ক্লাব বায়ার্ন। তিনটি করে জয় ও ড্রয়ে ১২ পয়েন্ট নিয়ে নকআউট পর্বে তাদের সঙ্গী ডাচ ক্লাব আয়াক্স।

আরেক ম্যাচে এইকে অ্যাথেন্সকে ১-০ গোলে হারানো বেনফিকা ৭ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছে। ইউরোপা লিগে খেলবে তারা। অ্যাথেন্সের পয়েন্ট শূন্য।

‘এফ’ গ্রুপে হফেনহাইমকে ২-১ গোলে হারানো ম্যানচেস্টার সিটি চার জয় ও এক ড্রয়ে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ সেরা হয়েছে। আরেক ম্যাচে শাখতার দোনেৎস্কের মাঠে ১-১ গোলে ড্র করা ফ্রান্সের ক্লাব লিওঁ ৮ পয়েন্ট নিয়ে হয়েছে গ্রুপ রানার্সআপ।

৬ পয়েন্ট পাওয়া ইউক্রেনের ক্লাব শাখতার খেলবে ইউরোপা লিগে। জার্মান ক্লাব হফেনহাইম ৩ পয়েন্ট নিয়ে তলানিতে।

আগেই ‘জি’ গ্রুপের শীর্ষস্থান নিশ্চিত করা রিয়াল মাদ্রিদ শেষ ম্যাচে সিএসকেএ মস্কোর কাছে ঘরের মাঠে ৩-০ গোলে হেরে গেছে। ৬ ম্যাচে ৪ জয়ে ১২ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ পর্ব শেষ করেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা।

নকআউট পর্বে তাদের সঙ্গী রোমা গ্রুপের অন্য ম্যাচে চেক রিপাবলিকের ক্লাব ভিক্তোরিয়া প্লজেনের কাছে ২-১ গোলে হেরেছে। গ্রুপ রানার্সআপ হওয়া রোমার পয়েন্ট ৯।

মস্কো ও প্লজেনের পয়েন্ট সমান ৭। তবে মুখোমুখি লড়াইয়ে এগিয়ে ইউরোপা লিগের টিকেট পেয়েছে প্লজেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক