স্বপ্না থাকায় শিরোপা জিততে আরও প্রত্যয়ী বাংলাদেশ

পাকিস্তানকে উড়িয়ে দেওয়া ম্যাচে ছয় গোল তার। নেপালকে গ্রুপ পর্বে কষ্টে হারানো ম্যাচেও এক গোল করেছিলেন সিরাত জাহান স্বপ্না। হালকা চোটের কারণে ভুটানের বিপক্ষের সেমি-ফাইনালে না খেলা এই ফরোয়ার্ডকে ফাইনালে পাচ্ছে বাংলাদেশ। কোচ গোলাম রব্বানী ছোটনও জানিয়েছেন, স্বপ্না থাকায় সাফ অনূর্ধ্ব-১৮ মহিলা ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জিততে আরও প্রত্যয়ী তার দল।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 6 Oct 2018, 08:23 AM
Updated : 8 Oct 2018, 02:08 PM

ভুটানের থিম্পুর চাংলিমিথাং স্টেডিয়ামে রোববার প্রতিযোগিতার প্রথম আসরের ফাইনালে সন্ধ্যা ৭টায় মুখোমুখি হবে দুই দল। গ্রুপ পর্বের দেখায় নেপালকে ২-১ গোলে হারানো বাড়তি অনুপ্রেরণা যোগাচ্ছে বাংলাদেশকে।

পাকিস্তানকে ১৭-০ গোলে গুঁড়িয়ে দিয়ে প্রতিযোগিতা শুরু করা বাংলাদেশ সেমি-ফাইনালে স্বাগতিক ভুটানকে হারায় ৪-০ গোলে। নেপালও চমক উপহার দিয়েছে সেমি-ফাইনালে ভারতকে টাইব্রেকারে হারিয়ে। তবে নেপালকে সমীহ করলেও তাদের ওপর আধিপত্য ধরে রাখতে চান রব্বানী।

“নেপালের সঙ্গে গ্রুপ পর্বে ম্যাচ ছিল। এখন ফাইনাল। দুই ম্যাচের পার্থক্য আছে। কারণ আমাদের মতো ওরাও শিরোপার জন্য লড়বে। তবে আগের ম্যাচে যেমন স্বাভাবিক খেলা খেলেছি, ফাইনালেও সেভাবে স্বাভাবিক খেলে জিততে চাই।”

“নেপালকে হালকা করে দেখা কিছু নেই। ওদের আমরা গ্রুপ পর্বে হারিয়েছিলাম কিন্তু সেমি-ফাইনালে ওরা যেভাবে ভারতকে হারিয়েছে, সেটা আমরা মাঠে বসে দেখেছি। ওদের পারফরম্যান্স খুব ভালো ছিল। তাই ওদেরকে কঠিন প্রতিপক্ষ হিসেবে নিচ্ছি।”

দুই ম্যাচে আট গোল করা স্বপ্না চোট কাটিয়ে ফেরায় দল আরও আত্মবিশ্বাসী বলেও জানান রব্বানী। স্বপ্নাকে ছাড়া সেরা চারে ভুটানকে হারানো ম্যাচে গোল করা সানজিদা-শামসুন্নাহারদের ওপরও আস্থা আছে তার।

“স্বপ্নার চোট ছিল। তা থেকে সে সেরে উঠেছে। এখন দলের ২৩ জন খেলোয়াড়ের মধ্যে সবাই ফিট আছে। স্বপ্না দলের মূল ফরোয়ার্ড; তাকে পাওয়ায় দল আরও আত্মবিশ্বাসী। তবে বাকি যারা আছে, তারাও ভালো। আসলে আমাদের মেয়েদের মধ্যে ব্যবধান উনিশ-বিশ।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক