ভিয়েতনামের মুখোমুখি হওয়ার আগে ফিনিশিং নিয়ে কাজ করবে বাংলাদেশ

প্রথমার্ধে ৫টি কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে গোল এলো ২টি। সংযুক্ত আরব আমিরাতকে ৭-০ গোলে হারালেও দ্বিতীয়ার্ধে বেশি গোল না পাওয়ায় কিছুটা হতাশ বংলাদেশ গোলাম রব্বানী ছোটন ভিয়েতনামের বিপক্ষে শেষ ম্যাচের আগে ফিনিশিং নিয়ে আরও কাজ করতে হবে বলে জানিয়েছেন।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 21 Sept 2018, 01:21 PM
Updated : 21 Sept 2018, 01:21 PM

কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে শুক্রবার এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ মহিলা ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাইয়ে দলের জয়ে আনুচিং ৪টি, শামসুন্নাহার ও ইলামনি একটি করে গোল করেন। অপর গোলটি আত্মঘাতী।

তিন জয়ে ৯ পয়েন্ট বাংলাদেশের। শুক্রবার প্রথম ম্যাচে লেবাননকে ৭-০ গোলে হারানো ভিয়েতনামের পয়েন্টও ৯। দুই দলের গোল ব্যবধানও সমান ও মোট গোলও সমান। আগামী রোববার ‘এফ’ গ্রুপের সেরা হওয়ার লড়াইয়ে মুখোমুখি হবে দুই দল। ম্যাচটি ড্র হলে শীর্ষস্থানের নিষ্পত্তি হবে টাইব্রেকারে।

ম্যাচ শেষের সংবাদ সম্মেলনে আমিরাত কোচ হুরাইরা হোসেনের কথায় বাছাইয়ে গোল ব্যবধানের গুরুত্বের বিষয়টি উঠে আসে।

“স্কোরলাইন ১-০ হোক বা ৭-০ হোক; হার হারই। কিন্তু হারলেও আমি মেয়েদের পারফরম্যান্সে খুশি। তবে আমার মনে হয়, বাংলাদেশ জিতেও খুশি হয়নি। তারা আমাদেরকে ৮-০ গোলে হারালে খুশি হত।”

আমিরাতের বিপক্ষে জয়ের ব্যবধান ৮-০ হলে গোল গড়ে এগিয়ে শীর্ষে থাকত বাংলাদেশ। তখন শেষ ম্যাচে ড্র হলেও বাংলাদেশ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতো। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে কোচ রব্বানীও জানালেন ফিনিশিং নিয়ে কাজ করতে হবে তাকে।

“ম্যাচ জেতার লক্ষ্য ছিল। সে লক্ষ্য অনুযায়ী খেলেছে দল। স্বাভাবিক খেলা খেলেই মেয়েরা জিতেছে। দ্বিতীয়ার্ধে গোল কম এসেছে। আসলে আমাদের এই জায়গায় কাজ করার আছে এবং প্রতিটি ম্যাচের পর আমরা ফিনিশিংয়ের বিষয়টা নিয়ে কাজও করছি।”

“দ্বিতীয়ার্ধে গোল না হওয়ার আরেকটা কারণ ওদের গোলকিপার; সে দারুণ কয়েকটা সেভ করেছে বলে জয়ের ব্যবধানটা বাড়েনি।”

মারিয়া মান্ডার অনুপস্থিতিতে মাঝমাঠ একাই সামলেছেন মনিকা চাকমা। আস্থার প্রতিদান দিতে পেরে খুশি তিনি।

“আমরা ভালো খেলেছি। নিজেদের মধ্যে বল দেওয়া-নেওয়া করে খেলে গোল পেয়েছি। জিতেছি। মারিয়া ছিল না বলে আমার ওপর কোনো চাপ ছিল না। আমি নিজের খেলাটা খেলতে চেয়েছিলাম।”

প্রথমবারের মতো হ্যাটট্রিক পেয়ে দারুণ খুশি আনুচিং মোগিনি জানালেন আরও হ্যাটট্রিক করতে চান তিনি।

“আজ হ্যাটট্রিক করে আমি অনেক খুশি। এর আগে অনেক ম্যাচে দুটি করে গোল পেয়েছি কিন্তু হ্যাটট্রিক পাচ্ছিলাম না। চেষ্টা করব পরের ম্যাচে গোল এবং হ্যাটট্রিক করার।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক