সামার অ্যাথলেটিক্সের ১০০ মিটারে সেরা শিরিন-হাসান

জাতীয় সামার অ্যাথলেটিক্সে মেয়েদের ১০০ মিটারে আধিপত্য থাকল শিরিন আক্তারের। তবে ছেলেদের বিভাগে টানা সাতবারের সেরা মেজবাহ উদ্দিনকে পেছনে ফেলে চমক দেখিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (বিকেএসপি) মোহাম্মদ হাসান মিয়া।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 27 July 2018, 02:37 PM
Updated : 27 July 2018, 03:03 PM

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের ট্র্যাকে শুক্রবার ১২ দশমিক ২০ সেকেন্ড নিয়ে মেয়েদের বিভাগে সেরা হন শিরিন। সুলতানা পারভীন লাভলীর সাতবার দ্রুততম মানবী হওয়ার রেকর্ডে ভাগ বসালেন বাংলাদেশ নৌবাহিনীর এই অ্যাথলেট।

গত সামার অ্যাথলেটিক্সে সেরা হওয়া শিরিন দৌড় শেষ করেছিলেন ১২ দশমিক ৩০ সেকেন্ড। ভালো টাইমিং না হলেও লাভলীর রেকর্ডে ভাগ বসানোর আনন্দ আছে তার।

“খুবই ভালো লাগছে। সাতবার জয়ের রেকর্ড আছে লাভলী আপুর; আমি তার রেকর্ড স্পর্শ করলাম। চিন্তা ছিল এই গেমসে ভালো একটা টাইমিং করে প্রথম হব এবং সাতবার দ্রুততম মানবী হব।”

“সাত বছর ধরে আমি আমার জায়গাটা ধরে রাখতে পেরেছি। পরিশ্রম করেছি, এটা আমাকে শীর্ষস্থান ধরে রাখতে সাহায্য করছে। অন্যরাও অনুশীলন করছে কিন্তু আমি নিজেরটা ধরে রাখতে পারছি।”

গত এসএ গেমসে ১১ দশমিক ৯৯ সেকেন্ড সময় নিয়ে দৌড় শেষ করেছিলেন শিরিন। আগামী মার্চের এসএ গেমসে সাফল্য পেতে উন্মুখ তিনি।

“এসএ গেমসে একটা পদক জিতে আমি শেষ করতে চাই। স্বর্ণপদক জিতে শেষ করতে চাই। গত এসএ গেমসে ১১ দশমিক ৯৯ সেকেন্ড টাইমিং করেছিলাম; সেটা কমিয়ে এনে এবার সাফল্য পেতে চাই। মার্চে এসএ গেমস, তবে এর মধ্যে সময় কমিয়ে আনা অসম্ভব নয়।”

জুনিয়র অ্যাথলেটিক্সের গত দুই আসরে ১০০ মিটারে সেরা হওয়া হাসান এবারই প্রথম নেমেছিলেন সিনিয়রদের প্রতিযোগিতায়। গত সাতবারের দ্রুততম মানব মেজবাহর সঙ্গেও প্রথম লড়লেন। ১০ দশমিক ৮০ সেকেন্ডে বাজিমাত করতে পেরে তাই দারুণ খুশি বিকেএসপিতে নবম শ্রেণীতে পড়া এই অ্যাথলেট।

“আসলে আমি যখন ট্রেনিং শুরু করি তখন চিন্তাও ছিল না আমি মেজবাহ ভাইকে হারাব। তবে যুব গেমসে ভালো টাইমিং করেছিলাম। তখন কোচ (আব্দুল্লাহ হেল কাফি) বলেছিলেন সামার অ্যাথলেটিক্সে নিজের সেরাটা দৌড়ে এসো। কাউকে হারাতে না পারলেও নিজের সেরাটা দাও। আমি ওভাবে ভেবেই নেমেছিলাম-গোল্ড পাওয়ার জন্য নামিনি।”

“মেজবাহ ভাইয়ের সঙ্গে আমি এর আগে কখনও লড়াই করিনি কিন্তু ইচ্ছা ছিল নিজের সেরা টাইমিং করার। আসলে হিটে ভালো করার পরই মনে হয়েছিল আমার দ্বারা সম্ভব। আমার হিটে মেজবাহ ভাই ছিলাম না কিন্তু ওনার দৌড় থেকে আমার মনে হয়েছিল আমি পারব। তবে আমি কখনও ভাবতে পারিনি আমি গোল্ড জিততে পারব।”

“এসএ গেমসে আমার লক্ষ্য ভালো কিছু করার। কিন্তু আমি কেবল নবম শ্রেণীতে পড়ি। আমার সবেমাত্র শুরু। লক্ষ্য সামনে দিকে এগিয়ে যাব। এসএ গেমস, সাফ গেমস, এশিয়ান গেমসে ভালো করা।”

গত সামার অ্যাথলেটিক্সে ১০ দশমিক ৮০ সেকেন্ড সময় নেওয়া মেজবাহ দ্বিতীয় হয়েছেন দশমিক ১০ দশমিক ৯০ সেকেন্ড সময় নিয়ে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক