ফুটবলে পিছিয়ে পড়ছে এশিয়া, আফ্রিকা: ইরান কোচ

ফুটবলে ইউরোপ থেকে অন্য মহাদেশগুলো পিছিয়ে পড়ছে বলে মনে করেন কার্লোস কিরোস। ইরানের কোচের মতে, বিশ্বকাপ বাছাই পদ্ধতি ইউরোপের দেশগুলোর তুলনায় এশিয়া ও আফ্রিকার দলগুলোকে অসুবিধাজনক অবস্থায় ফেলে দিচ্ছে।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 21 June 2018, 12:49 AM
Updated : 21 June 2018, 12:49 AM

কাজান অ্যারেনায় বুধবার 'বি' গ্রুপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে স্পেনের কাছে ১-০ গোলে হারে ইরান। ম্যাচের ৫৪তম মিনিটে একমাত্র গোলটি করেন দিয়েগো কস্তা।

প্রথম ম্যাচে মরক্কোর বিপক্ষে ১-০ গোলে জয় পাওয়ায় ইরানের নক-আউট পর্বে ওঠার সম্ভাবনা এখনও আছে। সেক্ষেত্রে গ্রুপে নিজেদের শেষ ম্যাচে পর্তুগালের বিপক্ষে পয়েন্ট পেতে হবে এশিয়ার দলটিকে।

এশিয়ার ফুটবল ইউরোপের সমপর্যায়ে উঠে আসছে কি-না, এমন প্রশ্নের জবাবে কিরোস বলেন, "আমার মতামতটা ঠিক উল্টো। দুই বছর আগে আমি বলেছিলাম, অন্যান্য দেশ ও মহাদেশ থেকে ইউরোপিয়ান ফুটবল দ্রুত উন্নতি করেছে। অন্য মহাদেশগুলো লড়াই করছে।…এশিয়া ও আফ্রিকার জন্য ব্যবধানটা বেশি।"   

"মরক্কো বা সেনেগালের মতো কিছু দল আছে যাদের আমরা আফ্রিকান দল বলি। কিন্তু তারা আফ্রিকান দল নয়। তারা ইউরোপে খেলা আফ্রিকান খেলোয়াড়। তাই ইউরোপে খেলার কারণে যেসব খেলোয়াড় সুবিধা পায় তারা জাতীয় দলগুলোকেও সহযোগিতা করতে পারে। ফুটবলে ৩৭ বছরের অভিজ্ঞতা থেকে এটা আমার পরিষ্কার মতামত।"

এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন থেকে ২০১৮ বিশ্বকাপের টিকেট পেতে বাছাই পর্বে ১৮টি ম্যাচ খেলেছে ইরান। যেখানে ইউরোপের দলগুলোকে খেলতে হয় মাত্র ১০টি ম্যাচ।

ফুটবলে ইউরোপের সঙ্গে এশিয়ার মতো অঞ্চলগুলোর এমন ব্যবধানে দুঃখ প্রকাশ করেন কিরোস। নিয়ম পরিবর্তন না করলে এমনটা চলতেই থাকবে বলে মনে করেন ৬৫ বছর বয়সী পর্তুগিজ এই কোচ।

"এশিয়া ও আফ্রিকার উন্নয়ন পরিকল্পনা ঠিক ইউরোপের মতো হতে পারে না। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে একটা ম্যাচের জন্য একই নিয়মে জার্মানি, ব্রাজিল ও পর্তুগালের মতো ইরানকে আপনি চার দিনের মধ্যে প্রস্তুত হতে বলতে পারেন না। এর কোনো যৌক্তিকতা নেই।"

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক