অনুশীলনেও চমক দেখান সালাহ

লিভারপুলে দারুণ অভিষেক মৌসুম কাটানো মোহামেদ সালাহর প্রশংসা করে সতীর্থ সাদিও মানে জানিয়েছেন, ম্যাচের পাশাপাশি অনুশীলনেও চমক দেখান মিশরের এই ফরোয়ার্ড।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 April 2018, 03:58 PM
Updated : 29 April 2018, 03:58 PM

অ্যানফিল্ডে অভিষেক মৌসুমে সব ধরনের প্রতিযোগিতায় এরই মধ্যে ৪৩টি গোল করেছেন সালাহ। লিভারপুলের হয়ে এক মৌসুমে ইয়ান রাশের সর্বোচ্চ ৪৭ গোলের রেকর্ড ভাঙতে কমপক্ষে তিনটি ম্যাচ পাচ্ছেন এরই মধ্যে ৩৮ ম্যাচের প্রিমিয়ার লিগে এক মৌসুমে সবোর্চ্চ ৩১টি গোলের রেকর্ড ছোঁয়া এই খেলোয়াড়।

পরের ম্যাচে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমি-ফাইনালের দ্বিতীয় লেগে রোমার মুখোমুখি হবে লিভারপুল। প্রথম লেগে নিজেদের মাঠ অ্যানফিল্ডে ৫-২ গোলের বড় জয় পেয়েছে ইয়ুর্গেন ক্লপের দল।

সতীর্থের এমন পারফরম্যান্সে উচ্ছ্বসিত মানে। সালাহকে গোল করতে সাহায্য করে খুশি এই ফরোয়ার্ড।

“আমার কাছে এটা অবিশ্বাস্য কিছু। মো (সালাহ) সব সময় এমনই, এমনকি অনুশীলনেও। আমাদের জন্য এটা স্বাভাবিক। আমরা তাকে আরও গোল করতে সহায়তা করার চেষ্টা করি।”

চলতি মৌসুমে মানে নিজেও করেছেন ১৮ গোল। এদের সাথে ব্রাজিলিয়ান রবের্ত ফিরমিনোর ২৭ গোলে দারুণ একটা মৌসুম কাটছে লিভারপুলের। ২৬ বছর বয়সী মানে মনে করেন তিনজনের পারস্পারিক বোঝাপড়াই তাদের সাফল্যের মূল কারণ।

“আমি মনে করি রহস্যটা হচ্ছে আমরা একে অপরের খুব কাছের বন্ধু। আমি সবসময় এসব দারুণ খেলোয়াড়ের সাথে খেলতে ভালবাসি। কারণ আমরা একে অন্যকে খুব ভালো বুঝি।”

“আমরা একে অন্যের জন্য খেলতে চেষ্টা করি। যত বেশি আমরা একসাথে অনুশীলন করি এবং যত বেশি একে অন্যকে জানি ততই এটা আমাদের জন্য সহজ হয়ে ওঠে।”

“আমার কাছাকাছি মো ও রবের্তর মতো খেলোয়াড় আছে, এটা অনেক মজার। এটা সব সময় উপভোগ্য। আমার বন্ধুকে গোলে সহায়তা করতে পেরে আমি সবসময় খুশি।”

“আপনি এটা মাঠে দেখতে পারবেন। আমি সব সময় মো ও রবের্তকে খুজি এবং তারাও আমাকে খোঁজে। আমি মনে করি এটাই আমাদের ভালো একটা দল তৈরি করেছে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক